Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ০৮ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ২৪ ১৪২৮ ||  ০২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

শেষ প্রস্তুতিতে হ্যাজলউড-স্টার্কের গতির মহড়া

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৪:৪০, ২ আগস্ট ২০২১   আপডেট: ১৪:৫০, ২ আগস্ট ২০২১
শেষ প্রস্তুতিতে হ্যাজলউড-স্টার্কের গতির মহড়া

মিরপুর শের-ই বাংলায় বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের গতির পরীক্ষা নেবেন দুই তারকা জস হ্যাজেলউড ও মিচেল স্টার্ক। হোক না টি-টোয়েন্টি। ২২ গজে তারা সব সময়ই ধ্রুপদী। নতুন বলে গতির ঝড় তুলে নাড়িয়ে দিতে পারেন স্বাগতিক ব্যাটসম্যানদের ভিত। দুই পেসারের সেই ঝড়ের মহড়া দেখা মিললো শেষ দিনের প্রস্তুতিতে।

কোয়ারেন্টাইন শেষে প্রস্তুতিতে নেমে প্রথম দিন স্পিন নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন অজিরা। বল করতে দেখা যায়নি স্টার্ক-হ্যাজলউডদের। রানিং-ওয়ার্মআপ করে কাটিয়ে দেন সময়। তবে সোমবার (২ আগস্ট) অনুশীলনের দ্বিতীয় দিন ছিল বিপরীত দৃশ্য। গা গরম শেষে একাডেমি মাঠের মাঝের নেটে দুই পেসার নতুন বলে যুগলবন্দী হয়ে ঝড় তোলেন।

পাক্কা আধঘণ্টা শেষে থামেন দুজন। কখনো লেন্থ বল আর কখনো বাউন্সে মেতেছিলেন হ্যাজেলউড-স্টার্ক। বর্তমান দলে এ দুজনই দলের সবচেয়ে বড় নাম। তাদের ৮ ওভারে বড় পরীক্ষা দিতে হবে সৌম্য, নাঈমদের সেটাও অজানা নয়। শুধু তাই নয় নতুন বলে শের-ই বাংলায় ত্রাসও সৃষ্টি করতে পারেন তারা।

টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে ১৩ ম্যাচে ১৩ উইকেট নেওয়া হ্যাজেলউড এর আগে বাংলাদেশের বিপক্ষে কোনো ম্যাচই খেলেনি। আর স্টার্ক একমাত্র ম্যাচে ৪ ওভারে ২৫ রান দিয়ে নিয়েছেন ১টি উইকেট। এ ছাড়া টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে ওভারপ্রতি ৭.১৫ রান দিয়ে ৩৯ ম্যাচে নিয়েছেন ৪৮ উইকেট। সেরা বোলিং ফিগার ১১ রানে ৩ উইকেট।

দুজনকে মানসম্পন্ন বোলার আখ্যা দিয়ে বাংলাদেশ কোচ রাসেল ডমিঙ্গো জানিয়েছেন তাদের বিপক্ষে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে মুখোমুখি হওয়ার কথা, 'স্টার্ক ও হ্যাজেলউড মানসম্পন্ন বোলার। আমরা তাদের বোলিংয়ের ফুটেজ দেখেছি। দিনশেষে তারা মানুষ, তারাও খারাপ বল করে, মানসিকতা পরিস্কার রেখে তাদের খারাপ বলগুলো আত্মবিশ্বাসের সাথে খেলতে হবে।'

শেষদিনের প্রস্তুতিতে নতুন বলে এই দুই পেসারের বোলিংয়ই ছিল অন্যতম আকর্ষণ। সকাল ১০টা থেকে অনুশীলন করার শুরুর কথা থাকলেও তারা মাঠে আসেন সাড়ে ৯টার দিকে। একটু পরই নেমে পড়েন ওয়ার্মআপে। অনুশীলনের আগে পুরো দল যখন ওয়ার্মআপে ব্যস্ত তখন অজি কোচ ল্যাঙ্গার অধিনায়ক ম্যাথু ওয়েডকে নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন পিচ দেখায়।

পিচ কাভারে ঢাকা থাকায় প্রথমে দেখতে পাননি। এরপর তিনজন গ্রাউন্ডসম্যান পিপিই পরে এসে কাভার সরিয়ে দিলে দেখা শুরু করেন খুঁটিয়ে-খুতিয়ে। সঙ্গে নিজেদের মধ্যে আলাপ-আলোচনা করতেও দেখা যায় তাদের। এরপর একেএকে সবাই এসেই দেখে যান বহু কাঙ্ক্ষিত এই পিচ।

এর আগে গতকাল পিচ না দেখেই ব্যাটিং অলরাউন্ডার অ্যাস্টন টার্নার জানিয়েছিলেন তারা প্রত্যাশা করছেন স্পিন পিচের। এ জন্য রোমাঞ্চের কথাও বলেন তিনি। তবে আজ পিচ দেখলেও অজি দলের পিচ নিয়ে কোনো ভাবনা জানা যায়নি এখন পর্যন্ত।

মঙ্গলবার থেকে শুরু হচ্ছে পাঁচ ম্যাচের এই টি-টোয়েন্টি সিরিজ। বাকি ম্যাচগুলো হবে ৪, ৬, ৭ ও ৯ আগস্ট। মিরপুর শের-ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সবগুলো ম্যাচই সন্ধ্যা ৬টায়।

ঢাকা/রিয়াদ/ইয়াসিন

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়