Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||  আশ্বিন ৩ ১৪২৮ ||  ০৯ সফর ১৪৪৩

তৃতীয় ম্যাচেই সিরিজ নিশ্চিত করতে চায় বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২৩:০৮, ৪ আগস্ট ২০২১   আপডেট: ২৩:৩০, ৪ আগস্ট ২০২১
তৃতীয় ম্যাচেই সিরিজ নিশ্চিত করতে চায় বাংলাদেশ

আফিফ-সোহানের ব্যাটে জয়

টি-টোয়েন্টিতে এর আগে কখনো অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলেনি বাংলাদেশ। প্রথমবারেই টানা দুই ম্যাচ জিতে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে বাংলাদেশ। স্বাগতিকদের সামনে তৃতীয় ম্যাচে সিরিজ নিশ্চিত করার হাতছানি। সুযোগটি হাতছাড়া করতে চায় না বাংলাদেশ। 

বুধবার (৪ আগস্ট) রাতে এই লক্ষ্যের কথা জানিয়েছেন দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি জয়ের নায়ক আফিফ হোসেন ধ্রুব, 'অবশ্যই আমাদের প্রত্যেকটি ম্যাচ নিয়ে চিন্তা থাকে। আপাতত আমাদের চিন্তা থাকবে সামনের ম্যাচটা যেন ভালো খেলে জিততে পারি। জিততে পারলে সিরিজটি তো আমাদের পক্ষেই আসবে। চেষ্টা করব সামনের ম্যাচ জেতার।'

অস্ট্রেলিয়ার দেওয়া ১২২ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে বাংলাদেশ ৮ বল বাকি থাকতে ৫ উইকেটে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে। আফিফ ৩১ বলে সর্বোচ্চ ৩৭ রান করেন। ৫ চার ও ১টি ছয়ে আফিফের সাহসী ইনিংসেই বাংলাদেশ শেষ হাসি হাসে। এবার লক্ষ্য সিরিজ জয়।

একদিন বিরতি দিয়ে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচ হবে শুক্রবার (৬ আগস্ট)। জয়ের বৃত্তে থাকায় দলের মধ্যে একটা ভালো পরিবেশ তৈরি হয়েছে বলে আফিফের বিশ্বাস, ‘শেষ কয়েকটি সিরিজে আমরা ভালো ক্রিকেট খেলছি। সম্প্রতি জিম্বাবুয়ে সিরিজেও আমরা ভালো খেলেছি। তার আগে যে সিরিজ হয়েছে, সেটাতেও ভালো করেছি। ওই সিরিজগুলোর আত্মবিশ্বাস আমাদের সহায়তা করছে। এছাড়া সিনিয়ররাও আমাদের সহায়তা করছেন। খুব সুন্দর একটি দলীয় পরিবেশ তৈরি হয়েছে।'

বাংলাদেশের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স তাই বলছে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ফরম্যাটেই সিরিজ জিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে লড়ছেন আফিফরা। জিম্বাবুয়েতে টেস্ট ও ওয়ানডেতে জয় এসেছিল একচেটিয়াভাবে। টি-টোয়েন্টিতে এক ম্যাচ হারলেও জিতেছে সিরিজ। এর আগে এপ্রিলে ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডেতে সিরিজ জেতার সুখস্মৃতি রয়েছে।

মাঝে প্রায় এক মাস ধরে ঢাকা লিগে ক্রিকেটাররা খেলেছেন টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে। এরপরই জিম্বাবুয়ে যায় দল। সবকিছু মিলিয়ে ঘরের মাঠে দারুণ সময় কাটছে বাংলাদেশের। এ ছাড়া বছরের শুরুতেই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ওয়ানডেতে ধবলধোলাই করেছিল।

অস্ট্রেলিয়াকে বাংলাদেশ ১২১ রানের বেশি করতে দেয়নি। মোস্তাফিজ-শরিফুলদের আঁটসাঁট বোলিংয়ে হাপিত্যেশ করেছেন অজি ব্যাটসম্যানরা। বাধ্য হয়েছে ৫০টি ডট বল খেলতে। মোস্তাফিজ ৪ ওভারে মাত্র ২৩ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিয়ে সেরা বোলিং করেছেন। বোলারদের পারফরম্যান্স নিয়ে আফিফ বললেন, 'উইকেটের যে কন্ডিশন ছিল, মোস্তাফিজ ভাই ও শরিফুল খুব ভালো মূল্যায়ন করতে পেরেছে। উইকেটের কন্ডিশনের কারণে তারা খুব ভালো বোলিং করেছে।'

মিরপুরের চেনা কন্ডিশনের কথা বলতেও ভুল করেননি আফিফ। শের-ই-বাংলার স্লো উইকেটে স্পিনাররা যেমন সুবিধা পেয়েছেন, কার্যকর ছিলেন পেসাররাও। আগের দিন স্পিনাররা সামনে থেকে নেতৃত্ব দিলেও এদিন দুই পেসার ছিলেন আক্রমণে। মোস্তাফিজ-শরিফুল ডেথ ওভারে (শেষ চার ওভার) মাত্র ২২ রান দিয়েছেন। নিয়েছেন ৪ উইকেট। এখানেই অস্ট্রেলিয়ার পরাজয়ের চিত্রনাট্য লেখা হয়ে যায়। 

আফিফ বলেন, 'মিরপুরে আমাদের হোম কন্ডিশনে বোলিংয়ের একটা বাড়তি সুবিধা অবশ্যই থাকে। আমাদের বোলাররা সেই সুবিধাটা খুব ভালোভাবে কাজে লাগাচ্ছে। এ কারণেই আমাদের বোলিং ভালো হচ্ছে। এছাড়া ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিং টিম এফোর্ট পাওয়া যাচ্ছে।’ 

ঢাকা/রিয়াদ/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়