Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||  আশ্বিন ৩ ১৪২৮ ||  ০৯ সফর ১৪৪৩

মাহমুদউল্লাহর বার্তা, আফিফের উইকেট মূল্যায়ন ও সোহানের অবদান

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২৩:৩৯, ৪ আগস্ট ২০২১   আপডেট: ১৮:২৬, ৫ আগস্ট ২০২১
মাহমুদউল্লাহর বার্তা, আফিফের উইকেট মূল্যায়ন ও সোহানের অবদান

লক্ষ্য ছিল একেবারেই নাগালে। ১২০ বলে ১২২ রান। কিন্তু দ্রুত উইকেট হারিয়ে পথ ভোলা বাংলাদেশ এক সময়ে পিছিয়ে পড়ে। সেখান থেকে লড়াই করে ঘুরে দাঁড়ানো এরপর আধিপত্য দেখিয়ে প্রতিপক্ষকে শাসন এবং সবশেষে বিজয়ের হাসি।

আফিফ হোসেন ও কাজী নুরুল হাসানের ব্যাটে অস্ট্রেলিয়া বধের এপিটাফ লিখা হয় মিরপুরের ২২ গজে। ৫ উইকেটের জয়ে পাঁচ ম্যাচ সিরিজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে বাংলাদেশ।

তবে জয়ের বন্দরে নোঙর ফেলার পথটা সহজ ছিল না। ৬৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ যখন খাদের কিনারায় তখন ৪৪ বলে ৫৬ রানের জুটি গড়েন আফিফ, সোহান। আফিফের ৩১ বলে ৩৭ রান ও সোহানের ২১ বলে ২২ রানের ইনিংসে আরেকটি জয় পায় বাংলাদেশ। দায়িত্বশীল ও ম্যাচবিজয়ী ইনিংসগুলোর পেছনে রয়েছে ছোট-ছোট অবদান। ম্যাচশেষে সেগুলো জানালেন প্রথমবার ম্যাচসেরার পুরস্কার পাওয়া আফিফ হোসেন। তার প্রতি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের বার্তা ছিল, ‘ক্রিজে যাওয়ার পর যেন দুই-তিন ওভার স্বাভাবিক খেলি।’

আফিফ এগিয়েছেন সেভাবেই। শুরুটা ছিল ধীরস্থির। এরপর থিতু হয়ে খেলেছেন দারুণ সব শট। পেসার টাইকে এগিয়ে মিড উইকেট দিয়ে ছক্কা উড়িয়েছেন। স্টার্ককে কাভারের ওপর দিয়ে পাঠিয়েছেন বাউন্ডারিতে। যে শটে ছিল আগ্রাসন, প্রভাব ও প্রতিপক্ষকে নাড়িয়ে দেওয়ার বার্তা। হ্যাজেলউডের শর্ট বল আপারকাটে চার মেরে উইনিং শট পেয়েছেন। মুষ্টিবদ্ধ হাত শূন্যে ঘুষি দিয়ে তার জয় উদযাপনও ছিল দেখার মতো।

নিজের ইনিংস নিয়ে আফিফের ব্যাখ্যা, ‘ব্যাটিংয়ে নামার পর চেষ্টা করেছি উইকেট মূল্যায়ন করে খেলার। উইকেটের আচরণ কেমন, সেটা খেয়াল রেখে যেন উইকেট না দিয়ে ক্রিজে থাকতে পারি। শেষ পর্যন্ত যদি খেলতে পারি আমার বিশ্বাস ছিল, প্রয়োজনীয় রান রেট যত থাকুক না কেন, আমি ভালোভাবে শেষ করতে পারব।’

আফিফকে সঙ্গ দিয়ে চাপ দূর করেছেন সোহান। আফিফ জয়ের জন্য কৃতিত্ব দিলেন সোহানকেও, ‘সোহান ভাই খুবই ভালো ব্যাট করেছেন। আমাদের দুজনের পরিকল্পনা ছিল যে উইকেট দেবো না। বল টু বল রান দরকার ছিল তখন। উইকেট না দিয়ে রান কিভাবে করা যায়, সেই চেষ্টা করছিলাম। অপর পাশ থেকে ভালো সমর্থন পাওয়ায় আমি কোনো চাপ অনুভব করিনি।’

ছোট-ছোট অবদান, পরিকল্পনা ও দৃঢ়তায় যে বড় কিছু পাওয়া সম্ভব আফিফ-সোহানরা তা প্রমাণ করলেন মিরপুরের ২২ গজে। তার মতে এ জয় এসেছে, ‘টিম এফোর্টে।’

ঢাকা/ইয়াসিন/আমিনুল

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়