Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ০৮ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ২৪ ১৪২৮ ||  ০২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

মোস্তাফিজের কাটার রপ্ত করছেন শরিফুল

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:৫৫, ৮ আগস্ট ২০২১   আপডেট: ২২:১৪, ৮ আগস্ট ২০২১
মোস্তাফিজের কাটার রপ্ত করছেন শরিফুল

মোস্তাফিজুর রহমান ২২ গজে অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানদের যে কাটারে নাচিয়ে ছাড়ছেন, সেই অস্ত্র রপ্ত করছেন শরিফুল ইসলাম। বাংলাদেশের বাঁহাতি এ পেসার জানান, কাটার নিয়ে দুজন আলাদা কাজও করছেন।

বোলিংয়ে দুজনই বাঁহাতি। প্রায় একই রকম বোলিং অ্যাকশন তাদের। কিন্তু মোস্তাফিজের কাছে আছে দুর্বোধ্য কাটার। সেখানে পিছিয়ে শরিফুল।

তাই তো সতীর্থের কাছ থেকে সেই কাটার শেখার তালিম নিয়ে নিচ্ছেন শরিফুল। রোববার (৮ আগস্ট) এই পেসার বলেন, ‘মোস্তাফিজ ভাইয়ের কাছে আমি শেখার চেষ্টা করছি, তিনি কীভাবে কাটার করেন। আমি অনুশীলনে এটা চেষ্টা করছি, ম্যাচে এখনো করা হয়নি। আমি শিখছি, তিনি বলছেন তার কাটারটা একদম ভিন্ন ধরনের, তার মতো চেষ্টা করছি। মিরপুরে ডানহাতির জন্য কাটারটা সবসময়ই বিপজ্জনক বল, এমনটা বলেছেন তিনি। কারণ (বল) হালকা থেমে টার্ন করে স্পিনের মতো। কাটারটা বেশি ব্যবহার করতে বলছিলেন তিনি।’

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ ও বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে মোস্তাফিজ ও শরিফুল ছিলেন একই দলে। তাদের ঘনিষ্ঠতা সেই সময় থেকেই। ঘরোয়া ক্রিকেটের পর জাতীয় দলে একসঙ্গে খেলায় দুই পেসারের কাজ করা সহজ হয়ে গিয়েছে। পাশাপাশি মাঠে মোস্তাফিজের পরামর্শ বেশ কাজে আসছে বলে দাবি করলেন শরিফুল, ‘আমি শেষ বঙ্গবন্ধু টি–টোয়ন্টি কাপে মোস্তাফিজ ভাইয়ের সঙ্গে খেলেছিলাম, ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ খেলেছি, এখন আবার জাতীয় দলে খেলছি। ওনার সঙ্গে বোলিং করার মজাই আলাদা। বোলিংয়ের সময় উনি ইতিাবচক কথা বলেন। কোনটা করলে ভালো, কোনটা না করলে ভালো। ব্যাটনম্যানকে তাড়াতাড়ি বুঝতে পারেন। আমি যখন বোলিংয়ে আসি তার আগেই আমাকে বলে দেন যে এরকম করলে ভালো হয়, তোর যেটা ভালো মনে সেটাই করে দেখ। আমি তো অভিজ্ঞ নই, তখন সেটা তাড়াতাড়ি নিলে জিনিসটা সহজ হয়।’

মিরপুরের উইকেট মন্থর হওয়ায় পেসার ও স্পিনাররা বাড়তি সুবিধা পেয়েছে। চার ম্যাচে দুজনই ৭টি করে উইকেট নিয়েছেন। মোস্তাফিজের ইকোনমি ছিল ৩.৫৬। শরিফুলের ৬.৩৮। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে দুজনের বোলিংই আদর্শ। শরিফুল জাতীয় দলে এসেছেন খুব বেশিদিন হয়নি। শ্রীলঙ্কায় তার অভিষেক হয়েছিল। এরপর নিউ জিল্যান্ড, জিম্বাবুয়ে সফর করেছেন। এবার ঘরের মাঠে খেলছেন অস্ট্রেলিয়া সিরিজে।

অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহর ইতিবাচক মনোভাব ও সতীর্থদের সহযোগিতা তাকে ভালো করতে আত্মবিশ্বাসী করে তুলছে। তার বিশ্বাস দলীয়ভাবে সামনে আরো ভালো কিছু অর্জন করবে বাংলাদেশ। শরিফুলের কথা, ‘আমাদের দলে এখন সবাই পারফর্ম করছে। সবাই সবার ওপর ভরসা রাখতে চায়, একজনের ওপর ছেড়ে দিচ্ছে না। এই জিনিসটা আসলে ভালো লাগে যে, কেউ কারো ওপর ভরসা করছে না, সবাই নিজের ওপর ভরসা করছে। একজন গেলে আরেকজন হাল ধরছে। এই ব্যাপারটা যত দিন থাকবে আমার মনে হয়, দলকে জয় এনে দেওয়া কঠিন হবে না। সবাই যদি সবার দিক থেকে ইতিবাচক চিন্তা করে, আমি যখন সুযোগ পাব সেরাটা দিয়ে দলকে জিতিয়ে আনব। এভাবে যখন ভাবা হবে, একজনের ওপর ভরসা না করবে, তখন খেলাটা আরও সহজ হবে।’

ঢাকা/ইয়াসিন/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়