Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৯ অক্টোবর ২০২১ ||  কার্তিক ৩ ১৪২৮ ||  ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বাংলাদেশের ক্রিকেটকে রাঙিয়েছেন নাদির

সালেক সুফী || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:৩৮, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১   আপডেট: ১৪:৪১, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১
বাংলাদেশের ক্রিকেটকে রাঙিয়েছেন নাদির

বাংলাদেশ ক্রিকেট অঙ্গনে সবার প্রিয় নাদির শাহ অসময়ে ইনিংস অসম্পন্ন রেখেই চিরতরের জন্য ‘সাজঘরে’ ফিরে গেলেন। ক্রিকেট মাঠে কুশলী চৌকষ দক্ষতা দিয়ে যেমন দর্শক মাতিয়েছেন তেমনি আম্পয়ারিং দক্ষতায় বিশ্ব ক্রিকেট অঙ্গনে আলো ছড়িয়েছেন। দুর্ভাগ্য, বাজিকরের ফাঁদে অচেতন ভাবে ফস্কে না গেলে হয়তো নাদির হতেন আইসিসি এলিট প্যানেলে বাংলাদেশের প্রথম আম্পায়ার।

হালকা পাতলা গড়নের নাদির লেগ স্পিন করতেন বিশেষ ভঙ্গিতে। আমি তাকে গুগলি, ফ্লিপার সব কিছুই করতে দেখেছি। ব্যাট হাতে সাবলীল ভাবেই চার ছক্কা হাঁকাতে পারতেন। ফিল্ডার হিসেবেও দারুণ। এক কথায় যাদের আমরা চৌকষ ক্রিকেটার বলে থাকি, নাদির শাহ ছিলেন পুরোদুস্তর সেই ঘরানার ক্রিকেটার। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের এই বৃহস্পতি সময়ে নাদির শাহ হতে পারতেন সেরাদের সেরা। 

ঢাকার মাঠে তো বটেই, দেশের অন্যান্য শহরেও কিছু ম্যাচে আমি নাদির শাহ’র বিরুদ্ধে খেলেছি। ওর অগ্রজ আজিম শাহ এবং জাহাঙ্গীর শাহ বাদশার বিরুদ্ধেও একই সময় খেলেছি। নাদিরের সঙ্গে কয়েকটি ম্যাচে আম্পায়ারিংও করেছি। যদিও বাদশার সঙ্গে অপেক্ষাকৃত অধিক ঘনিষ্ঠতা ছিল আমার। তবে ক্রিকেট আলোচনার বিভিন্ন আসরে নাদিরের বুদ্ধিদীপ্ত অংশগ্রহণ পুরো ক্রিকেট আড্ডাকে জীবন্ত করে রাখতো। আমি ২০০৫ প্রবাস জীবন বেছে নেওয়ার পর নাদিরের সঙ্গে শেষ দেখা হয়েছিল ধানমন্ডির খেলার মাঠে।  জালাল ভাই , ববি ভাইও ছিলেন সেই ক্রিকেট আড্ডায়। আমার দেখা নাদির দেখলাম তেমনি প্রাণবন্ত উচ্ছল যদিও নাদিরের শরীরে তখন ক্যান্সার বাসা বেঁধেছে। কিন্তু তাও কি দারুণ প্রাণবন্ত উচ্ছল নাদির, সেদিনের ক্রিকেট গল্পে। 

শেষ যখন বাংলাদেশ গেলাম টেলিফোন করলাম ববি ভাইয়ের কাছ থেকে নম্বর নিয়ে। কণ্ঠ শুনেই চিনলো। কথায়, বাচনে সেই উচ্ছলতা যা ওকে আর দশজন থেকে আলাদা করে রাখতো। যুগে যুগে নাদিরের মতো বিশেষ চরিত্র ক্রিকেটকে নানান রঙে রাঙিয়েছে। একসময় অগ্রজ কোরান ভাই, শহীদ জুয়েল ভাই, দৌলত ভাই, তানভীর হায়দার ভাই বাংলাদেশ ক্রিকেটে বর্ণময় চরিত্র। নাদির ওর সময়ের সেই ঘরনার স্টাইল আইকন হয়ে ক্রিকেটকে আকর্ষণীয় করে রেখেছিলো।

হাসপাতালের বিছানায় বসেও নাদির মাথায় ঠিক পরে আছে ক্রিকেটের ক্যাপ। সারাক্ষণ ক্রিকেটের খোঁজখবর রাখা নাদির শাহ মস্তিকে ও হৃদয়ে বাংলাদেশকে ধারণ করেই জীবন ইনিংস শেষ করল। আমি নিশ্চিত অন্য জগতেও নাদির ক্রিকেট নিয়েই গল্পে সময় কাটাবে। 

 

সালেক সুফী: মেলবোন প্রবাসী জ্বালানি বিশেষজ্ঞ ও ক্রিকেট বিশ্লেষক।


 

মেলবোর্ন/ সস/এমএম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ