Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||  আশ্বিন ১১ ১৪২৮ ||  ১৭ সফর ১৪৪৩

দুঃসহ যন্ত্রণা ভুলে বর্তমানে তাসকিনের ডুব

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:১২, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১  
দুঃসহ যন্ত্রণা ভুলে বর্তমানে তাসকিনের ডুব

প্রেস ব্রিফিংয়ের সময় গলাটা বারবার ধরে আসছিল মাশরাফি মুর্তজার। ব্রিফিং শেষে গাড়িতে ওঠার সময় আর নিজেকে ধরে রাখতে পারলেন না। ছোট শিশুর মতোই চোখ থেকে ঝরঝর করে পানি গড়িয়ে পড়ল। বাচ্চাদের মতই দুই হাতে চোখ মুছতে মুছতে গাড়িতে টিম ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজনের পাশে গিয়ে বসলেন। দুজনকে নিয়ে সাদা রঙের গাড়িটি স্টেডিয়াম ছেড়ে ছুটে চলল হোটেলের দিকে।

২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ঘটনা। টুর্নামেন্ট চলাকালে আইসিসি জানিয়ে দেয়, তাসকিন আহমেদ ও আরাফাত সানীর বোলিং অ্যাকশন অবৈধ। স্পিনার হওয়ায় সানীর বোলিং অ্যাকশন নিয়ে মাশরাফি তেমন প্রতিবাদ করেননি। তবে তাসকিনকে নিয়ে ছিল তার দৃঢ় বিশ্বাস। সেই বিশ্বাস থেকেই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামার আগে মাশরাফি আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে আইসিসির সমালোচনা করে বলেছিলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি তাসকিন পুরোপুরি ঠিক। আমি কথা বলছি বাংলাদেশের একজন অন্যতম প্রতিশ্রুতিশীল বোলারকে নিয়ে, যে ছেলেটি আগামী ১০ বছর বাংলাদেশকে সার্ভিস দেবে। ও যাতে যথাযথ ন্যায়বিচার পায়, তা নিয়ে কথা বলা উচিত।’

সেই বিশ্বকাপে তাসকিনের আর খেলা হয়নি। তাসকিনের খেলা হয়নি ২০১৯ সালের বিশ্বকাপেও। সেবার মাশরাফি অধিনায়ক থাকলেও ইনজুরির কারণে তাকে দলে নেয়নি টিম ম্যানেজমেন্ট। দল ঘোষণার পর বিসিবি একাডেমির সামনে তাসকিন সেদিন চোখের পানি ফেলেছিলেন। আর বলেছিলেন, ‘না, ঠিক আছে, যেটা ভালো হয় সেটাই করেছে। সবাই তো ভালোই চায় (আমার)। খারাপ চায় না কেউ। সামনে আরও সুযোগ আছে। সুপার লিগের ম্যাচ আছে। সেখানে ভালো করার চেষ্টা করব।’

পরপর দুই বিশ্বকাপ তাসকিনের কাছে দুঃসহ যন্ত্রণার। বাদ পড়া ও অবিচারের যন্ত্রণার ক্ষত কেটেছে অনেকটা সময়। নিজের আইডলের সেই কান্না ও নিজের অশ্রুর মূল্য বোঝেন তাসকিন। বোঝেন বলেই বারবার নিজেকে ফিরিয়ে আনার চেষ্টায় উঠেপড়ে লেগে থাকেন ২২ গজে। এবার পায়ের নিচে মাটি শক্ত করেই যাচ্ছেন বিশ্বকাপের মঞ্চে। অতীত ভুলে বর্তমানে ডুবে থাকা এ পেসারের সাফ কথা, ‘সত্যি কথা বলতে দুটি স্মৃতিই আলাদা আলাদা... যেগুলো অতীত, বর্তমানেই নজর দিতে চাই। দোয়া করবেন আল্লাহ যেন আমাকে সুস্থ রাখে আর ভালো করতে পারি।’

ওমানের বিপক্ষে ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম পর্বে একটি ম্যাচ খেলেছিল বাংলাদেশ। জয় পাওয়া সেই ম্যাচে খেলে এক উইকেট পেয়েছিলেন তাসকিন। তবে সংযুক্ত আরব আমিরাতে খেলার সুযোগ হয়নি তার। ২০১৮ এশিয়া কাপে বাংলাদেশ সেখানে খেলে ফাইনালে উঠেছিল। ওমান ও সংযুক্ত আরব আমিরাতে ম্যাচ খেলার রোমাঞ্চ ছুঁয়ে যাচ্ছে দ্রুত গতি বোলারের, ‘আমি খুবই উত্তেজিত। কারণ ওমানে এর আগে আমার কখনো খেলতে যাওয়া হয়নি। এমনকি দুবাইতেও যে ইভেন্টগুলো হয়েছে, আমি এখন পর্যন্ত ম্যাচ খেলিনি। দুই জায়গায় খেলাটা একদম নতুন হবে আমার জন্য। একই সময়ে আমি ভালো কিছু উপহার দিয়ে ম্যাচ জেতাতে চাই।’

তবে এবার ম্যাচ খেলার সুযোগ হবে কি না তা নিয়ে চিন্তাও আছে। মোস্তাফিজ, সাইফউদ্দিন, শরিফুল ভালো করায় তার সুযোগ নাও আসতে পারে। ম্যাচ খেলার অনভ্যস্ততাও একটা বিষয়, শেষ ১০ টি-টোয়েন্টিতে মাত্র একটি ম্যাচ খেলেছেন তাসকিন। তবে সেসব নিয়ে এখনই ভাবছেন না। বাংলাদেশের বিশ্বকাপ প্রস্তুতি শুরু হবে ওমানে। সেখান থেকে নিজের পরিকল্পনা শুরু করতে চান দ্রুতগতির এ বোলার।

ঢাকা/ইয়াসিন/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়