Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||  আশ্বিন ১১ ১৪২৮ ||  ১৭ সফর ১৪৪৩

মাস্ক ছাড়াই বই প্রকাশ অনুষ্ঠানে যান ভারতের ক্রিকেটাররা!

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৩৩, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১  
মাস্ক ছাড়াই বই প্রকাশ অনুষ্ঠানে যান ভারতের ক্রিকেটাররা!

ইংল্যান্ড-ভারত সিরিজের পঞ্চম টেস্ট বাতিল নিয়ে বিতর্ক থামছেই না। ম্যাচটি না হওয়ার পেছনে আইপিএলকে যেমন দায়ী করা হচ্ছে, অভিযুক্ত হচ্ছেন রবি শাস্ত্রীও। চতুর্থ টেস্টের আগে লন্ডনের এক অভিজাত হোটেলে তার বই প্রকাশ অনুষ্ঠানকে ঘিরে দায় চাপানো হচ্ছে ভারতীয় কোচের ওপর, যেখানে যায় দলের ক্রিকেটাররাও। মূলত ওই অনুষ্ঠানের পর ওভাল টেস্টের মাঝপথে করোনায় আক্রান্ত হন তিনিসহ তিন কোচিং স্টাফ। আর শেষ টেস্টের আগে আরেকজন সদস্যের করোনা পজিটিভ হলে ম্যাচের দিন দুই ঘণ্টা আগে তা বাতিলের ঘোষণা হয়।

এখন আবার সেই অনুষ্ঠান খবরের শিরোনামে। ওই ইভেন্টে অংশ নিতে ভারতীয় দল বোর্ডের অনুমতি নেয়নি বলে বিসিসিআই বিবৃতি দেওয়ার পর সাবেক ক্রিকেট দিলীপ দোশি দিলেন আরেকটি হতবাক করা খবর। ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকা এই সাবেক ক্রিকেটার জানান, খেলোয়াড়রা তো সেখানে ছিলেনই, তাদের কারও মুখে মাস্ক পর্যন্ত ছিল না।

দিলীপ আরও জানান, ওই অনুষ্ঠানে বেশি ভিড় থাকায় খেলোয়াড়দের বেশিরভাগই পাঁচ থেকে দশ মিনিটের বেশি ছিলেন না। ইন্ডিয়া অ্যাহেড তার উদ্ধৃতি দিয়ে লিখেছে, ‘আমি বই প্রকাশ অনুষ্ঠানে ছিলাম। তাজ গ্রুপ আমাকে আমন্ত্রণ করেছিল। অনেক বিশিষ্ট ব্যক্তি ও টিম ইন্ডিয়ার খেলোয়াড়রা সেখানে ছিল, কিছুক্ষণের জন্য। কিন্তু আমি হতভম্ব হয়ে গেলাম যখনক দেখলাম তাদের কেউ মাস্ক পরেনি।’

ম্যানচেস্টারে হতে যাওয়া শেষ টেস্টটি বাতিল হওয়ায় ম্যাচটি জিতে সিরিজে বিজয়ী হয়ে ইতিহাস গড়ার সুযোগ হাতছাড়া করে ভারত। অবশ্য ভারতীয় দলে করোনা হানা দেওয়ার সঙ্গে ওই অনুষ্ঠানের কোনো সম্পর্ক নেই বলেছেন শাস্ত্রী। জোর গলায় দাবি করেন, পুরো যুক্তরাজ্যই তো খোলা। কারণ ইংল্যান্ডে বেশিরভাগ মানুষ পুরোপুরি টিকা নিয়েছে।

তারপরও মাস্ক পরাটা সবার উচিত ছিল দাবি দিলীপের, ‘জনগণকে মাস্ক পরতে হবে কি না, সেটা বাধ্যতামূলক নাকি না, সেই সিদ্ধান্ত নেয় রাজনীতিকরা। প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে টিকা কর্মসূচি নেওয়ার কারণে ইংল্যান্ড যথেষ্ট নিরাপদ এবং ইমিউনিটি উচ্চপর্যায়ে। এ কারণে সবকিছু খুলে দেওয়া হয়েছিল।’

তার ব্যাখ্যা, ‘সুতরাং, বিষয়টিকে দুইভাবে দেখা যায়। একটি সফরকারী দল হিসেবে যখন আপনি একটি মিশনে, তখন আমি প্রত্যাশা করি যে সবসময় ভারতীয় দল জনসমাগমের মধ্যে যাবে, আমি হলে অবশ্যই একটা মাস্ক পরতাম, আমি অন্যকে বিশ্বাস করি না এ কারণে নয় কিন্তু আমি নিজেকে সংক্রমণ থেকে রক্ষা করতে তা পরতাম।’

ঢাকা/ফাহিম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়