Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ২১ ১৪২৮ ||  ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

শেষ পর্যন্ত হাল ধরে রাখার প্রত্যয় আফগানিস্তান অধিনায়কের

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:১৮, ১৫ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ০৯:৪৮, ১৬ অক্টোবর ২০২১
শেষ পর্যন্ত হাল ধরে রাখার প্রত্যয় আফগানিস্তান অধিনায়কের

রশিদ খানের নেতৃত্বে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলার কথা ছিল আফগানিস্তানের। টুর্নামেন্টের দল ঘোষণার পর অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেন এই লেগস্পিনার। দায়িত্ব পড়েছে এশিয়া কাপ, ২০১৪ টি-টোয়েন্টি ও ২০১৫ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপে নেতৃত্ব দেওয়া মোহাম্মদ নবীর কাঁধে। প্রথম রাউন্ড থেকে আসা দলের বিপক্ষে তাদের বিশ্বকাপ শুরু হবে সুপার টুয়েলভ দিয়ে। শেষ পর্যন্ত হাল ধরে রাখার প্রত্যয় এই ৩৬ বছর বয়সী অলরাউন্ডারের।

দুই ফরম্যাটে বিশ্বকাপের নেতৃত্ব দিয়ে সুখকর অভিজ্ঞতা হয়নি নবীর। সাত বছর আগে বাংলাদেশের আয়োজিত টুর্নামেন্টে তিন ম্যাচে মাত্র একটি ম্যাচ জিতে আফগানিস্তান বাদ পড়ে প্রথম রাউন্ডে। আর ওয়ানডে বিশ্বকাপে ছয় ম্যাচ খেলে মাত্র একটি জয়। দলের ব্যর্থতায় ২০১৫ সালের এপ্রিলে পদত্যাগ করেন তিনি।

সেই নবীকেই দেওয়া হয়েছে অধিনায়কত্ব। আইসিসির সময় অনুযায়ী চূড়ান্ত দল ঘোষণার শেষ দিন ১০ অক্টোবর তাকে অধিনায়ক ঘোষণা করা হয়। শুরুতেই নেতৃত্ব প্রসঙ্গে বললেন, ‘হ্যাঁ, এটা (অধিনায়কত্ব) কঠিন একটা কাজ। বিশ্বকাপে দলকে নেতৃত্ব দিতে এবং টুর্নামেন্টে ভালো পারফর্ম করতে আমি আমার সর্বোচ্চ চেষ্টা করব। (আমি) সত্যিই রোমাঞ্চিত এই ইভেন্টে অধিনায়ক হিসেবে খেলতে যাচ্ছি বলে।’

আগামী ২৫ আগস্ট প্রথম ম্যাচ আফগানিস্তানের। রাউন্ড ওয়ান থেকে উঠে আসা দলের মুখোমুখি হবে তারা। সুপার টুয়েলভে দুই নম্বর গ্রুপে তাদের অন্য প্রতিপক্ষ ভারত, পাকিস্তান, নিউ জিল্যান্ড ও কোয়ালিফায়ারের দ্বিতীয় দল।

আগস্টে তালেবান ক্ষমতা দখলের পর আফগানিস্তানের বিশ্বকাপে খেলাই পড়েছিল শঙ্কায়। শেষ পর্যন্ত আইসিসি তাদের পাশে দাঁড়ায়। ভিসা সমস্যার কারণে দল আগেভাগে আমিরাতে পৌঁছাতে পারেনি। আপাতত কাতারে তারা অনুশীলন সারছে। দলের মানসিক অবস্থা নিয়ে নবী বললেন, ‘তারা (খেলোয়াড়রা) আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নিচ্ছে। কাতার ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবহাওয়া প্রায় একই। আমরা টুর্নামেন্টে আমাদের সেরা পারফর্মের চেষ্টা করব এবং শেষ পর্যন্ত হাল ধরে থাকব।’

নিজের পারফরম্যান্স নিয়ে অধিনায়ক বললেন, ‘ম্যাচ পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করছে, যখন আমাকে দলের প্রয়োজন হবে। যদি টপে (অর্ডার) চাপ পড়ে যেমন আমরা রান পেলাম না, তখন আমি চেষ্টা করব শেষ পর্যন্ত আমার উইকেট বাঁচাতে এবং তারপর চেষ্টা করব রান করার। এই মানসিকতা নিয়ে আমি সবসময় খেলি, ম্যাচ পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করে এবং এটা আমাকে অনেক সহায়তা করেছে।’

ঢাকা/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়