Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ২৭ নভেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ১৩ ১৪২৮ ||  ২০ রবিউস সানি ১৪৪৩

মিরপুর থেকে মরুর বুকে, বদলে গেল মাহমুদউল্লাহদের রঙ

আবু ধাবি থেকে ক্রীড়া প্রতিবেদক  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৩৬, ২৭ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ২০:২৮, ২৭ অক্টোবর ২০২১
মিরপুর থেকে মরুর বুকে, বদলে গেল মাহমুদউল্লাহদের রঙ

ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়া-নিউ জিল্যান্ডকে উড়িয়ে দিয়ে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ একটা কথা যেন বারবার স্মরণ করে দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বাংলাদেশ আর ছোট দল নেই। কিন্তু ঘরের মাঠ মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম থেকে মরুর বুকে আরব আমিরাতে আসতেই যেন আসল চেহারা বেরিয়ে পড়েছে।

অস্ট্রেলিয়া-নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে সংগ্রাম করলেও বল হাতে দুরন্ত ছিল বাংলাদেশ। আমিরাতে সেই ব্যাটিং দুর্দশা থেকে তো বেরিয়ে আসতে পারেইনি, বরং বল হাতে আর ফিল্ডিংয়ে অসহায় আত্মসমর্পণ। বুধবার আবু ধাবির শেখ জায়েদ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশ টস জিতে আগে ব্যাটিং নেয়। কিন্তু প্রথম সারির ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার মিছিলে বাংলাদেশের ইনিংস থামে ৯ উইকেট হারিয়ে ১২৪ রানে। টার্গেটে খেলতে নেমে ৩৫ বল বাকি থাকতে ৮ উইকেটে জয় পায় ইংলিশরা। বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভের ম্যাচে এমন আত্মসমর্পণ সত্যিই বেমানান।

লক্ষ্য ছিল মাত্র ১২৫। রান তাড়া নিয়ে ছিল না কোনো ভয়। দুই ওপেনার জেসন রয় ও জস বাটলার দারুণ শুরু করেন। ১৮ বলে ১৮ রান করে বাটলার আউট হলে পঞ্চম ওভারে ভাঙে ওপেনিং জুটি। তবে অন্য ওপেনার জেসন থামেন ৩৮ বলে ৬১ রান করে, জয়ের ভিত গড়ে দিয়ে। দুই ওপেনার ফিরে গেলেও জয় পেতে কোনো সমস্যা হয়নি ইংলিশদের। ডেভিড মালান ২৫ বলে ২৮ ও জনি বেয়ারস্টো ৪ বলে ৮ রান করে দলকে জিতিয়ে তবে মাঠ ছাড়েন।

নাসুম আহমেদ ও শরিফুল ছাড়া বাংলাদেশের কোনো বোলারই উইকেটের দেখা পাননি। বিশ্বকাপে অভিষেক ম্যাচ খেলতে নামা শরিফুল জেসনকে আউট করেন। এ ছাড়া সাকিব আল হাসান, মেহেদী হাসান ও মোস্তাফিজুর রহমানের ঝুলিতে জমা হয়নি কোনো উইকেট। বরং খরুচে ছিলেন তারা। মেহেদী ২ ওভারে ২১ রান দিয়েছেন। সাকিব ৩ ওভারে ২৪ আর মোস্তাফিজ সমান সংখ্যক ওভারে ২৩ রান দেন। নাসুম ও শরিফুল দেন সমান ২৬টি করে রান। এক কথায় বোলাররা পাত্তাই পাননি।

এর আগে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা অস্বস্তিকর সূচনা করে। বাংলাদেশের ইনিংসে একমাত্র টি-টোয়েন্টিসুলভ ইনিংস ছিল এই নাসুম অপরাজিত ছিলেন ১৯ রান করে।

শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামের উইকেট কিছুটা ধীরগতির ছিল। কিন্তু বল ব্যাটে আসছিল ঠিকঠাকই। একটু দেখেশুনে, ফোকাস রেখে খেললে হয়তো স্কোরবোর্ডে রান আরও কিছুটা জমা হতো। যেমনটা ধরা যায় অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিমের ইনিংসকে। তার ব্যাট থেকেই আসে ৩০ বলে সর্বোচ্চ ২৯ রানের ইনিংস। একপ্রান্তে যখন উইকেট বিলিয়ে দিয়ে আসছেন ব্যাটসম্যানরা তখন মুশফিকের প্রয়োজন ছিল আরো দায়িত্ববান হওয়া। কিন্তু তিনি সেই রিভার্স সুইপ খেলতে গিয়ে ফেরেন সাজঘরে।

শুধু মুশফিক নয়, ওপেনার লিটন দাস, মোহাম্মদ নাঈম থেকে শুরু করে প্রথম সারির ব্যাটসম্যানরা আত্মাহুতি দিয়ে এসেছেন উইকেটে। ইনিংসের তৃতীয় ওভারের দ্বিতীয় বলে মঈন আলীর বলে ক্যাচ দিয়ে ৮ বলে ৯ রান করে সাজঘরে ফেরেন লিটন। ব্যাট হাতে টানা ব্যর্থ লিটন যেন এখন দলের বোঝা। কিন্তু পরের বলে নাঈম যা করলেন তাতে বিস্ময়ে চোখ ছানাবড়া। মিড অনে বল তুলে দিলেন ওকসের হাতে। ধারাভাষ্যকার বলতে বাধ্য হলেন ‘পুওর ক্রিকেট’। তিনি ৭ বলে ৫ রান করেন।

পাওয়ার প্লের শেষ ওভারে সাকিবও উইকেট দিয়ে এসেছেন। ওই মুহূর্তে বাংলাদেশের প্রয়োজন ছিল টিকে থাকা। কিন্তু ওকসের বলে ফাইন লেগে মাথার উপর দিয়ে মারতে গিয়ে ধরা পড়েন আদিল রশিদের হাতে।

মুশফিক-মাহমুদউল্লাহ জুটি কিছুটা স্বস্তি দিয়েছিল। কিন্তু রিভার্সসুইপে মুশফিকের আত্মাহুতিতে ৩২ বলে ৩৭ রানের বেশি আসেনি। মুশফিকের আউটের পর আফিফ উইকেটে আসেন এবং মাহমুদউল্লাহর ভুল কলে রান আউট হন ৬ বলে ৫ রান করে। আর ক্রিজে থিতু হয়ে যখন মাহমুদউল্লাহর জ্বলে ওঠার কথা তখন তিনি ফেরেন সাজঘরে। তার ব্যাট থেকে আসে ২৪ বলে ১৯ রান।

শেষ দিকে নুরুল হাসান ১৮ বলে ১৬, মেহেদী হাসান ১০ বলে ১১ ও নাসুম ৯ বলে ১৯ রান না করলে বাংলাদেশের কপালে দুঃখই ছিল।

ঘরের মাঠে স্পিন উইকেটে খেললেও বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা যেন স্পিন খেলতে ভুলে গিয়েছেন। লেগ স্পিন হলে তো কোনো কথাই নেই। ইংল্যান্ডের হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন টাইমাল মিলস। এ ছাড়া মঈন আলী ও লিয়াম লিভিংস্টোন নেন ২টি করে উইকেট।

বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে ইংল্যান্ড টানা দুটি দুর্দান্ত জয় তুলে নিয়েছে। আর বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ক্যাচ কিসে ম্যাচ হাতছাড়া করার পর আজ ইংল্যান্ডের কাছে পাত্তাই পায়নি। আগামী ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তারাও প্রথম দুটি ম্যাচে হেরেছে। বাংলাদেশ কি পারবে উইন্ডিজের বিপক্ষে ঘুরে দাঁড়াতে?

আবু ধাবি/রিয়াদ/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়