ঢাকা     রোববার   ১৬ জানুয়ারি ২০২২ ||  মাঘ ২ ১৪২৮ ||  ১২ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

নিজের আয়নায় দাঁড়িয়েও উত্তর খুঁজে পাচ্ছেন না মাহমুদউল্লাহ

ইয়াসিন হাসান || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৩৪, ৪ নভেম্বর ২০২১   আপডেট: ২০:৪৫, ৪ নভেম্বর ২০২১
নিজের আয়নায় দাঁড়িয়েও উত্তর খুঁজে পাচ্ছেন না মাহমুদউল্লাহ

বাংলাদেশের ক্রিকেটের বিজ্ঞাপনের বাজারে ‘দেইখা লন, বাইচ্ছা লন, উইকেট লন, উইকেট লন’ জিঙ্গেলটা ব্যবহার হতেই পারে! ধরে নিন আপনার সৌম্য বা লিটনের উইকেট লাগবে। আপনাকে খুব বিশেষ কিছু করতে হবে না। নিবেদনে প্রবল ঘাটতি থাকা এ ব্যাটসম্যানরা আপনাকে নিজের ইচ্ছায় উইকেট দিয়ে আসবে। আপনাকে শুধু নিজের সামর্থ্যে বিশ্বাস রাখতে হবে।

আপনি একা নেবেন কেন? সতীর্থদের উৎসাহিত করতে পারেন। তারাও নিজেদের পকেটে এক-দুইজন ব্যাটসম্যানের উইকেট পুরতে পারবেন। মরুর বুকে গোটা দলের ব্যাটিং লাইন আপের চিত্র এতটাই ভয়াবহ, জীর্ণ যে এ ফরম্যাটে নিজেদের সামর্থ্য নিয়ে আরেকবার ভাবতে পারে বাংলাদেশ। একটা সময় প্রতিযোগিতা হতো কে কার থেকে কতটা ভালো? এই দলের চিত্র হচ্ছে, কে কার থেকে কতটা খারাপ!

প্রশ্ন উঠতেই পারে, আসলেই কি বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি খেলতে পারে? মাঠে নামার ৫-৬ ওভারেই যে ম্যাচের ফল নিশ্চিত হয়ে যায় তাদের কি সত্যিই টি-টোয়েন্টি খেলার সামর্থ্য রয়েছে! দ্বিপাক্ষিক সিরিজের ফল অনেকেই আদর্শ মনে করেন না। স্বাগতিক সুবিধা নেয় বলেই যত সমস্যা।

এজন্য বৈশ্বিক মঞ্চ নিজেদের প্রমাণের সবচেয়ে বড় জায়গা। অথচ ২০০৭ টি-টোয়েন্টির পর বিশ্বকাপের মূল পর্বে কোনো জয় নেই। আগের পাঁচ আসরে একটি-দুটি জয়ের আশা দেখাত বাংলাদেশ। এবার মাহমুদউল্লাহরা সেমিফাইনালের আশা দেখায়। তাতে প্রত্যাশা বেড়ে যায় বহুগুণ। অথচ এই দলটি এবারও কোনো জয় পায়নি। ১৪ বছর ধরে যে পরাজয়ের বৃত্তে ঘুরপাক খাচ্ছে সেখানেই আটকা। বড় মঞ্চে বাংলাদেশ এর আগেও পারেনি। দ্বিপাক্ষিক সিরিজেও পারেনি। টানা ম্যাচ হারের রেকর্ডও আছে।

কিন্তু এবারের বিশ্বকাপে ক্রিকেটারদের শারীরিক ভাষা ছিল হতশ্রী। হারের আগেই হার মেনে নেওয়া, দুর্বল মানসিকতা, কঠিন পরিস্থিতিতে লড়াইয়ের সদিচ্ছার ঘাটতি, ন্যূনতম তাড়না না থাকায় মাঠের পারফরম্যান্সে বেহাল দশা।

কারণটা কী? মাহমুদউল্লাহ নিজেও খুঁজে পান না উত্তর। মাঠের মতো সংবাদ সম্মেলনেও অধিনায়ক অসহায় আত্মসমর্পণ করলেন, ‘আমিও সেই একই প্রশ্নের উত্তর খুঁজছি, আমরা কেন পারছি না, আমাদের কোন জিনিসটা মিসিং, আমাদের কী করা প্রয়োজন? আমরা একসঙ্গে বসেছি, কথা বলেছি, প্রত্যেকের মত চেয়েছি, জানতে চেয়েছি কেন পারছি না পারফরম্যান্স করতে। বিশেষ করে, শ্রীলঙ্কা ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের ম্যাচটা ছাড়া পুরো টুর্নামেন্টে বাজে পারফরম্যান্স করেছি। দলগতভাবে এটা হতাশার। আমি নিজেও সেই উত্তরগুলো জানি না। এখনো খুঁজে বেড়াচ্ছি।’

আক্ষেপের সুরে আরো বলে গেলেন, ‘কিছু কিছু প্রশ্নের উত্তর আমি খুঁজে পাচ্ছি না। আমাকে এখন আসলে এগুলো জটিল করছে। এজন্য আসলে এড়িয়ে যাচ্ছি। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এখনো আমরা নিজেদের পায়ের নিচে মাটি খুঁজছি। সম্ভবত আমরা ঘরের মাটিতে ভালো করছি কিন্তু দেশের বাইরে আমরা নিজেরা নিজেদের অবস্থান দেখেছি। আমরা বুঝতে পারছি ব্যবধান। টপ টিমের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করতে গেলে আমাদের কোথায় উন্নতি করতে হবে সেটাও বুঝতে পারছি। অনেক অনেক উন্নতির প্রয়োজন।’ 

ঢাকা/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়