ঢাকা     বুধবার   ১৯ জানুয়ারি ২০২২ ||  মাঘ ৬ ১৪২৮ ||  ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

ইংল্যান্ড জানে অস্ট্রেলিয়া হারতে পারে: অ্যান্ডারসন

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:২৮, ২ ডিসেম্বর ২০২১  
ইংল্যান্ড জানে অস্ট্রেলিয়া হারতে পারে: অ্যান্ডারসন

অ্যাশেজ শিরোপা পুনরুদ্ধারের মিশনে নামছে ইংল্যান্ড, ২০১৯ সালে যুক্তরাজ্যে ২-২ এ ড্র করে যেটা ধরে রেখেছিল অস্ট্রেলিয়া। ‍দৃঢ় আত্মবিশ্বাস নিয়ে আগামী ৮ ডিসেম্বর ব্রিসবেনের গ্যাবায় স্বাগতিকদের মুখোমুখি হবে ইংল্যান্ড। মাঠে নামার আগে প্রতিপক্ষকে প্রচ্ছন্ন হুমকি দিয়ে রাখলেন জেমস অ্যান্ডারসন।

এই শতাব্দিতে সফরকারী ইংল্যান্ড কেবল চারটি টেস্ট জিতেছে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে এবং শেষ ১০ ম্যাচের ৯টিতে হার। কিন্তু অ্যান্ডারসন বিশ্বাস করেন, নিজেদের মাটিতে অস্ট্রেলিয়া যে হারতে পারে সেই প্রমাণ মিলেছে গত কয়েক বছরে।

ইংল্যান্ডের স্বকালের শীর্ষ টেস্ট বোলার বিবিসিকে বলেছেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি আমাদের দলে একগুচ্ছ খেলোয়াড় পেয়েছি যারা জিততে পারে। আমি শুধু বলার জন্য বলছি না। হয়তো বলতে পারেন যে ইতিবাচক থাকতে এটা বলছি, কিন্তু আমরা প্রকৃতভাবে বিশ্বাস করি সেখানে আমরা জিততে পারি।’

১৯৮৬ সাল থেকে গ্যাবায় জিততে পারেনি ইংল্যান্ড। কিন্তু এই মাঠে অস্ট্রেলিয়া ২৩ বছরের অপরাজেয় মর্যাদা হারায় গত জানুয়ারিতে ভারতের কাছে পরাজিত হয়ে। এছাড়া ২০১৬ সালে অস্ট্রেলিয়ায় ২-১ এ সিরিজ জিতেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। তারাই এবারের অ্যাশেজে ইংল্যান্ডের অনুপ্রেরণা।

অ্যান্ডারসন বললেন, ‘আমরা জানি তারা অস্ট্রেলিয়ায় হারতে পারে। আমরা কয়েকটি দলকে দেখেছি সেটা করতে। কয়েক বছর আগে তারা ছিল আধিপত্য বিস্তার করা এক শক্তি, সেখানে আপনাকে যেতে হতো পরীক্ষা দেওয়ার জন্য। কিন্তু ভারত তাদের শেষ দুটি সফর এখানে জিতেকছে, দক্ষিণ আফ্রিকাও জিতেছিল। এটা অসম্ভব কাজ নয়।’

অ্যান্ডারসনের আগের চারটি অ্যাশেজ সফরে ইংল্যান্ড দুটি হেরেছে ৫-০ ও ৪-০ তে, কিন্তু ২০১০-১১ মৌসুমে তারা জিতেছিল ২-১ এ, যেখানে ব্রিসবেনে প্রথম টেস্ট শুরু করেছিল ড্র দিয়ে।

তাই ইংল্যান্ডের এই পেসার প্রথম টেস্টকে খুব গুরুত্ব দিচ্ছেন, ‘যদি আপনি গ্যাবায় হেরে যান, তাহলে কঠিন হয়ে যাবে। ২০১০ সালে যখন আমরা ব্রিসবেন থেকে ড্র পেলাম, সেটাই আমাদের সিরিজ জয়ের ভিত গড়ে দিলো।’

এছাড়া ইংল্যান্ডের অধিনায়ক জো রুটের এই বছরের চমৎকার পারফরম্যান্সের কথাও উল্লেখ করলেন অ্যান্ডারসন। ২০২১ সালে রুট ছয়টি সেঞ্চুরি করেছেন টেস্টে। দলের প্রধান অলরাউন্ডার বেন স্টোকসের ফেরাও আত্মবিশ্বাসী করে তুলছে পেস আক্রমণের নেতৃস্থানীয় খেলোয়াড়কে, ‘আমরা বিশ্বমানের কয়েকজন খেলোয়াড় পেয়েছি। বিশ্বের সেরা ব্যাটসম্যান ও অলরাউন্ডার আমাদের আছে। আমরা সত্যিই বিশ্বাস করি আমাদের একটি ভালো সুযোগ আছে।’

ঢাকা/ফাহিম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়