ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৪ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ১০ ১৪২৯ ||  ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

আইপিএল নিলামে অংশ নিতে দোটানায় অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ডের খেলোয়াড়রা

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৫১, ১৭ জানুয়ারি ২০২২  
আইপিএল নিলামে অংশ নিতে দোটানায় অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ডের খেলোয়াড়রা

অ্যাশেজ চলাকালে অস্ট্রেলিয়ান ও ইংল্যান্ডের কয়েকজন শীর্ষ খেলোয়াড় আসন্ন ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) তাদের অংশগ্রহণের ব্যাপারে কথা বলে আলোচনায় ছিলেন। মনস্থির করতে তারা হাতে পাচ্ছেন আরো কয়েকদিন।

আইপিএলের সময়সীমায় পরিবর্তন আনার কারণে ভারতীয় ক্রিকেট নিয়ন্ত্রণ বোর্ড (বিসিসিআই) নিলামের তালিকাভুক্তির শেষ তারিখ বাড়িয়ে ২০ জানুয়ারি করেছে। আগামী ১২ ও ১৩ ফেব্রুয়ারি বেঙ্গালুরুতে হবে নিলাম।

জো রুট, বেন স্টোকস, প্যাট কামিন্স ও মিচেল স্টার্কের মতো বড় তারকারা এবারের নিলামে হতে যাচ্ছেন বড় আকর্ষণ। কিন্তু তারা খুব ঠাণ্ডা মাথায় ভাবছেন। রুট তো স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন, তিনি অংশ নিচ্ছেন না।

হোবার্টে রোববার (১৬ জানুয়ারি) অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পঞ্চম টেস্ট শেষে ইংল্যান্ডের অধিনায়ক রুট বলেছেন, ‘না, আমি দেইনি (নিলামের জন্য নাম)। আমি মনে করি এই দলের জন্য আমাদের অনেক কিছু করার দরকার। এই দল আমার সর্বশক্তি দাবি করে। আমি সত্যিই আশা করি, এই সুযোগ পাব। আমি যত পারি বিসর্জন করব, কারণ আমাদের দেশের ক্রিকেট নিয়ে আমি সবচেয়ে বেশি ভাবি এবং চেষ্টা করব আমাদের যেখানে থাকার সেখানে নিয়ে যাওয়ার।’

রুটের মতো স্টোকসকে নিয়েও শঙ্কা আছে। আইপিএলের নিলামে অংশ নেওয়া নিয়ে গুরুতরভাবে ভাবছে অস্ট্রেলিয়ানরাও। তারা পড়েছে উভয় সংকটে। কারণ আইপিএল খেললে জুলাই পর্যন্ত ২২ সপ্তাহ ধরে বায়ো-বাবলে থাকতে হতে পারে। কারণ তাদের সামনে ঠাসা আন্তর্জাতিক সূচি। কামিন্স ও স্টার্কের মতো সব ফরম্যাটের খেলোয়াড়দের তাই দ্বিতীয়বার ভাবতে হচ্ছে। কারণ ডিসেম্বর থেকে তারা বিরতিহীন ক্রিকেট খেলছেন।

অ্যাশেজ শেষ হওয়ার পর অস্ট্রেলিয়া স্বাগত জানাবে নিউ জিল্যান্ডকে। তিনটি ওয়ানডে ও এক টি-টোয়েন্টি হবে ৩০ জানুয়ারি থেকে ৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। ২৩ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের উদ্দেশে রওনা হওয়ার আগে ১১ থেকে ২০ ফেব্রুয়ারি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে অজিরা ঘরে খেলবে পাঁচ টি-টোয়েন্টি। মাসব্যাপী পাকিস্তান সফরের পর প্রায় দুই মাসের আইপিএল এবং পরে শ্রীলঙ্কা সফরে দুটি টেস্ট ও পাঁচ ওয়ানডে খেলবে জুন-জুলাইয়ে।  

হোবার্টে পঞ্চম অ্যাশেজ টেস্টের আগে এই বিষয়ে কথা বলেন অজি পেসার স্টার্ক, ‘আমার কাগজপত্রের কাজ করার জন্য দুই দিন সময় আমি পেয়েছি। আজ ট্রেনিংয়ের আগে হয়তো কিছু করব।’

এখনো নিলামের জন্য নাম দেননি বলেছিলেন স্টার্ক, ‘এখনো আমার নাম জমা দেইনি। কিন্তু এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে দুয়েকদিন পাব। এটা অবশ্যই আলোচনার মধ্যে আছে, যদিও সামনে অনেক ব্যস্ত সূচি। আমি ছয় বছর কিংবা তারও বেশি দিন খেলিনি (আইপিএলে)। এই বছরের শেষ দিকে বিশ্বকাপ, এজন্য এটাকে বিবেচনা করতে হবে।’ তবে অস্ট্রেলিয়ান পেসারও এখন সংশয়ে। তার ম্যানেজারের কাছ থেকে এই ব্যাপারে সাড়া পাওয়া যায়নি।

সূচি আর দলের প্রতি আনুগত্য ছাড়া আরেকটি ব্যাপার ভাবাচ্ছে দুই দেশের শীর্ষ খেলোয়াড়দের। সেটি হলো আইপিএল ভেন্যু। শোনা যাচ্ছে করোনায় জর্জর ভারত থেকে সরিয়ে এটি আয়োজিত হতে পারে শ্রীলঙ্কা কিংবা দক্ষিণ আফ্রিকায়। যদিও বিসিসিআই সূত্রগুলো বলেছেন, বিকল্প পরিকল্পনা থাকলেও ভারতেই টুর্নামেন্ট আয়োজনে বদ্ধপরিকর তারা।

ঢাকা/ফাহিম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়