ঢাকা     বুধবার   ১৮ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ৪ ১৪২৯ ||  ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩

বিপিএলের সূচিতে পরিবর্তন চান সুজন, সালাউদ্দিন দুষছেন ব্যাটসম্যানদের

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:২৯, ২৩ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৮:৩৩, ২৩ জানুয়ারি ২০২২
বিপিএলের সূচিতে পরিবর্তন চান সুজন, সালাউদ্দিন দুষছেন ব্যাটসম্যানদের

বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) শুরুর দুইদিন না যেতেই আলোচনা উইকেট নিয়ে। শের-ই বাংলার উইকেটের চরিত্র সময়ের পরিবর্তনের সঙ্গে বদলে যায়। অর্থ্যাৎ দুই সময়ে দুইরকম আচরণ করে। দুপুরের ম্যাচে দেখা যায় রান খরা, আর রাতের ম্যাচে হয় রান উৎসব।

এটা থেকে পরিত্রাণ পেতে বিপিএলের সময়সূচি পরিবর্তনের কথা বলেছেন ফরচুন বরিশালের কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন। অন্যদিকে উইকেট একটু কঠিন হলেও ব্যাটসম্যানদের দুষছেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের কোচ সালাউদ্দিন।

সুজনের কাছে একই উইকেটের ভিন্ন আচরণের কথা জানতে চাইলে সূচি পরিবর্তনের মতামত দেন। জানিয়েছেন শিশিরের সমস্যার কারণে রাতের ম্যাচে উইকেটের আচরণ পাল্টে যায়। তাই বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল বিপিএলের সূচি পরিবর্তন করতে পারে চাইলে।

রোববার (২৩ জানুয়ারি) গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে সুজন বলেন, ‘শিশির একটা বড় ফ্যাক্টর হতে পারে। দুইটা দলের জন্যই একই রকম থাকবে। খেলা শুরু হয় সাড়ে ৫টায়। তখন থেকে শিশির পড়ে। সাড়ে ৭টার পরে এটি বেশি হচ্ছে। এখানে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের চিন্তা করার থাকলেও থাকতে পারে। টুর্নামেন্ট আমাদের। আমরা চাই সেরা ক্রিকেটটা হোক। আমরা যদি খেলাগুলো এগিয়ে নিতে আসতে পারি, এটি আমার মতামত, প্রথম খেলাটা যদি সাড়ে ১০টার মধ্যে শুরু করতে পারি আর দ্বিতীয়টা আড়াইটা-তিনটার মধ্যে করতে পারি তাহলে শিশিরের ঝামেলায় পড়বো না।’

বিপিএলের সূচি অনুযায়ী প্রথম ম্যাচ শুরু হয় সাড়ে ১২টায় আর দ্বিতীয় ম্যাচ সাড়ে ৫টায়। ব্যতিক্রম শুক্রবার। এদিন প্রথম ম্যাচ দেড়টায় আর দ্বিতীয় ম্যাচ সাড়ে ৬টায়। শিশিরের ঝামেলা এড়ানোর জন্য সুজন চান সন্ধ্যা নামার আগেই দুই ম্যাচ শেষ করতে। কিন্তু তখন বিপিএলে দেখা যাবে আরও রান খরার। বিকেলের ম্যাচে যে রান হয় তাও দেখা যাবে না।

দুই দিনের চার ম্যাচের চিত্রটা একটু দেখা যাক। প্রথমদিন প্রথম ম্যাচে আগে ব্যাট করা চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স তুলেছিল ১২৫। রান তাড়া করে সেটি জেতে ফরচুন বরিশাল। আর দ্বিতীয় দিন প্রথম ম্যাচে আগে ব্যাটিং করে সিলেট একশ’ও তুলতে পারেনি, অলআউট হয় ৯৬ রানে। সেটি তাড়া করতে গিয়ে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের ঘাম ছোটে, পড়ে যায় ৮ উইকেট।

আর প্রথম দিন দ্বিতীয় ম্যাচে আগে ব্যাটিং করা মিনিস্টার ঢাকা তুলে ১৮৪, সেটি তাড়া করে জিতে খুলনা টাইগার্স। দ্বিতীয় দিন চট্টগ্রাম আগে ব্যাটিং করে তুলে ১৬১, সেটি তাড়া করতে গিয়ে ১৩১ রানে অলআউট হয় ঢাকা।

এদিকে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের কোচ সালাউদ্দিন বলছেন উইকেটে কোনো রহস্য নেই। তার কাছে এক’শ রানের উইকেটও মনে হয়নি। সালাউদ্দিনের মতে ব্যাটসম্যানরা রান করতে ব্যর্থ হয়েছেন, ‘আমি মনে করি যে ব্যাটসম্যানরা ভালো খেলেনি। উইকেট যতই কঠিন থাকুক আমার মনে হয় এই রানটা আমাদের খুব ভালোভাবে চেজ করা উচিত ছিল। ব্যাটসম্যানরা উইকেট বুঝে খেলতে পারে নাই। কিন্তু উইকেট একটু কঠিন ছিল, তাই বলে শুধু এক’শ রানের উইকেট ছিল এটা আমি বিশ্বাস করবো না।’

সুজনের মতো রাতের ম্যাচে শিশিরের সমস্যার কথা বলেছেন সালাউদ্দিনও, ‘উইকেটে কোনো রহস্য নেই। এখানে আসলে শিশির একটা বড় ফ্যাক্টর। রাতের বেলায় উইকেটে যেহেতু ডিউ পড়ে তখন আসলে বলটা ব্যাটে চলে যায়। তখন এই কারণে আসলে স্কোরটা বেশি হচ্ছে।’

রিয়াদ/আমিনুল

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়