ঢাকা     বুধবার   ২৫ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯ ||  ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩

মুশফিকের রিভার্স সুইপে আপত্তি নেই ডমিঙ্গোরও, তবে…

ক্রীড়া প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম থেকে || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:১৭, ১৩ মে ২০২২  
মুশফিকের রিভার্স সুইপে আপত্তি নেই ডমিঙ্গোরও, তবে…

একটি পরিসংখ্যান, ২০২১ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ১৮ বার রিভার্স সুইপের প্রচেষ্টায় দুটি চার পেয়েছে মুশফিকুর রহিম। আর আউট হয়েছেন চারবার।

সবশেষ দক্ষিণ আফ্রিকায় রিভার্স সুইপে তার আউট ছিল একেবারেই দৃষ্টিকটু। যে শট খেলায় প্রবল সমালোচনায় বিদ্ধ বাংলাদেশের ব্যাটিং স্তম্ভ। দক্ষিণ আফ্রিকায় দল যখন খাদের কিনারায় তখন মুশফিক রিভার্স সুইপ খেলে বোল্ড হয়ে নিজের উইকেট বিলিয়ে দিয়ে আসেন।

দলের ফলোঅন তখন চোখ রাঙানি দিচ্ছিল। বিরতি ৫ মিনিট পরই। দলের বিপদে মাটি কামড়ে পড়ে থাকতে হতো। কোনোভাবেই উইকেট দেবেন না এমন পণ থাকা লাগতো। কিন্তু ফিফটিতে পৌঁছার এক বল পরই মুশফিক রিভার্স সুইপ করলেন। বল নিচু হয়ে তার অফস্টাম্পে আঘাত করে।

তার ওই শটে আউট হওয়ার পর প্রতিক্রিয়ায় টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সোজাসুজি বলেছেন, ‘ওর কাছ থেকে ওইরকম শট আমরা কেউ আশা করিনি। ওয়ানডে বা টি-টোয়েন্টিতে আমরা এই শট মেনে নেই। কারণ রানের খেলা, রান করতে হবে। কিন্তু কেন টেস্টে? পুরোপুরি অপ্রত্যাশিত।’

অবশ্য মুশফিকের এমন শটে কোনো সমস্যা দেখেন না টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক। দক্ষিণ আফ্রিকা সফর শেষে মুমিনুল হক বলেছিলেন, ‘রিভার্স সুইপ কিন্তু ক্রিকেটের একটা শট, তাই না? ক্রিকেটের বাইরে কোনো শট না এটি। অবশ্যই এটা একটা শট। এই শট তো খেলতেই পারেন উনি। উনার ম্যাচ পরিকল্পনায় যদি এই শট থাকে তাহলে তো খেলবেনই। আর এটা এমন না যে উনি খেলে রান করেনি বা ব্যর্থ খুব। আমার মনে হয় উনাকে সাপোর্ট করা উচিত। আমি উনাকে সাপোর্টও করি।’ 

শুক্রবার দলের কোচ রাসেল ডমিঙ্গোও জানালেন, রিভার্স সুইপে তার কোনো আপত্তি নেই। তবে ঝুঁকিপূর্ণ এই শট খেলতে শিষ্যকে উপযুক্ত সময় বের করে নিতে বললেন, ‘যদি এটা (রিভার্স সুইপ) কোনো শট হয়ে থাকে এবং যদি আত্মবিশ্বাস নিয়ে খেলা যায়, যদি বিশ্বাস থাকে তাহলে অবশ্যই সেটা একটা অপশন। এটা খেলা নিশ্চয়ই কোনো দোষের নয়। ও অসাধারণ রিভার্স সুইপ খেলতে পারে এবং এই শটে প্রচুর রানও করেছে। আমি মনে করি এটা খেলার জন্য উপযুক্ত সময়টা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। আপনি কখন এই শটটা খেলবেন সেটা গুরুত্বপূর্ণ। কেন এই শটটা খেলবেন। ফিল্ডারদের বিভ্রান্ত করার জন্য কি এই শট?’

শিষ্যর পাশে থেকে ডমিঙ্গো জোর গলায় বলেছেন, ‘ওপেনিং ব্যাটসম্যান কভার ড্রাইভ করতে গিয়ে যদি আউট হয়ে যায় তাহলে কি সে কভার ড্রাইভ করা বন্ধ করে দেবে? নাকি মিড উইকেটে খেলে এলবিডিব্লিউ হয়ে যাবে? আপনি যদি বাঁহাতি ব্যাটসম্যান হয়ে থাকেন তাহলে প্রথম ২০-৩০ বলে কভার ড্রাইভ খেলা ঝুঁকিপূর্ণ। আপনি যখন ৫০ বা ৬০ রান পেরিয়ে যাবেন তখন খেলতে পারেন।’

ইয়াসিন/আমিনুল

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়