ঢাকা     রোববার   ২৬ জুন ২০২২ ||  আষাঢ় ১২ ১৪২৯ ||  ২৫ জিলক্বদ ১৪৪৩

ভিনির গোলে চ্যাম্পিয়ন রিয়াল

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০১:০৩, ২৯ মে ২০২২   আপডেট: ০৪:২৪, ২৯ মে ২০২২
ভিনির গোলে চ্যাম্পিয়ন রিয়াল

স্কোর: লিভারপুল ০-১ রিয়াল মাদ্রিদ 

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। শনিবার দিবাগত রাতে ফ্রান্সের ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে লিভারপুলকে ১-০ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগের ১৪তম শিরোপা শোকেসে তুলেছে লস ব্লাঙ্কোসরা। জয়সূচক একমাত্র গোলটি করেন রিয়ালের ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড ভিনিসিউস জুনিয়র।

৮২ মিনিটে আবারও সালাহ, আবারও কোর্তোয়া। এ সময় ফাবিনহোর ক্রস থেকে সালাহ বক্সের মধ্যে বল পেয়ে যান। রক্ষণভাগের খেলোয়াড়কে পেছনে ফেলে সামনে এগিয়ে যান। তার সামনে ছিলেন কেবল কোর্তোয়া। শট নেন সালাহ, বল কোর্তোয়ার পায়ে লেগে বল বাইরে চলে যায়।

৬৯ মিনিটে গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন মোহাম্মদ সালাহ। এ সময় দিয়েগো জতার হেড থেকে বক্সের মধ্যে বল পেয়ে যান তিনি। ডানকোণা দিয়ে মিশরীয় এই ফুটবলার চেষ্টা করেন বল জালে জড়ানোর। কিন্তু দেয়াল হয়ে ওঠা কোর্তোয়া আবাও রক্ষা করেন রিয়ালকে।

ভিনিসিউসের গোলে এগিয়ে রিয়াল:
বিরতি থেকে ফিরে গোল পেয়ে যায় রিয়াল। ৫৯ মিনিটে ডান দিয়ে বল পেয়ে পাল্টা আক্রমণে যান ফেদেরিকো ভালভার্দে। বল নিয়ে তিনি ডানদিক দিয়ে ঢুকে পড়েন বক্সে। এরপর বামদিকে থাকা ভিনিসিউস জুনিয়রকে বাড়িয়ে দেন। আনমার্ক ভিনিসিউস ডান পায়ে শটে কাছের পোস্ট দিয়ে বল জালে জড়ান। অ্যালিসন বেকার কোনোপ্রকার সুযোগই পাননি বল ধরার।

এই গোল করার মধ্য দিয়ে ব্রাজিলিয়ান এই ফরোয়ার্ড হয়ে যান একমাত্র খেলোয়াড়, যার জন্ম ২০০০ সালের পরে কিন্তু চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে গোল করেছেন।
 

অফসাইডে রিয়ালের গোল বাতিল, প্রথমার্ধ গোল শুন্য

অফ সাইডে রিয়ালের গোল বাতিল। প্রথমার্ধ গোল শূন্য। প্রথমার্ধে রিয়ালের ওপর প্রভাব বিস্তার করে খেলেছে লিভারপুল। তারা প্রায় অর্ধডজন আক্রমণ শানিয়েছে। তবে তার কোনোটিই রিয়ালের গোলরক্ষক থিবাউট কোর্তোয়াকে ফাঁকি দিতে পারেনি। প্রথমার্ধে ৫২ শতাংশ বলের দখল ছিল লিভারপুলের কাছে। আর ৪৮ শতাংশ রিয়ালের কাছে। ৪৫ মিনিটে লিভারপুল ১০টি আক্রমণ শানায়। তার মধ্যে ৫টি ছিল অন টার্গেটে। অন্যদিকে রিয়াল মাত্র একটি আক্রমণ শানাতে সক্ষম হয়। শেষ দিকে বেনজেমা বল জালে জড়ালেও সেটি অফসাইডের কারণে বাতিল হয়।

অফ সাইডে গোল বাতিল

৪৩ মিনিটে জটলার মধ্যে বল পেয়ে জালে জড়িয়ে দিয়েছিলেন করিম বেনজেমা। কিন্তু অফসাইড কল করা হয়নি। এরপর ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি (ভিএআর) সময় নিয়ে চেক করেন। শেষ পর্যন্ত গোলটি বাতিল হয়।

কোর্তোয়া যেন দেয়াল

৩৪ মিনিটে সালাহর আরও একটি সুযোগ নসাৎ করে দেন কোর্তোয়া। এ সময় ডানদিক থেকে ক্রসে বল বাড়িয়ে দেন আর্নল্ড। বল ক্রস সরাসরি পেয়ে যান সালাহ। হেড নেন, সেটি সরাসরি কোর্তোয়ার হাতে জমে যায়।

লিভারপুলের দুর্ভাগ্য 

২১ মিনিটে গোলের আরও একটি সুযোগ পেয়েছিল লিভারপুল। এ সময় থিয়াগো আলকানতারা বল বাড়িয়ে দেন সাদিও মানেকে। মানের নেওয়া শট ধরতে পারেননি কোর্তোয়া। দুর্ভাগ্য মানের, দুর্ভাগ্য লিভারপুলের। বল পোস্টে লেগে ফিরে আসে।

কোর্তোয়াতে রিয়ালের রক্ষা 

পরের মিনিটেই লুইজ দিয়াজের নেওয়া শট ধরে ফেলেন কোর্তোয়া।

সালহর শট ঠেকিয়ে দিলেন কোর্তোয়া

১৭ মিনিটে গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন সালাহ। এ সময় ডানদিক থেকে ট্রেন্ট আলেক্সান্ডার আর্নল্ড ক্রসে বল বাড়িয়ে দেন সালাহকে। তার প্লেসিং শট কোনোরকমে শুয়ে পড়ে ঠেকান থিবাউট কোর্তোয়া।

৩৬ মিনিট দেরিতে শুরু ফাইনাল

৩৬ মিনিট দেরিতে শুরু হয়েছে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনাল। বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় শুরু হওয়ার কথা থাকলেও দর্শক ঢুকতে সমস্যা হওয়াতে সম্ভব হয়নি। 

কে জিতবে ফাইনাল

এর আগে ৮ বার দেখা হয়েছিল দুই দলের। ১৯৮১ থেকে ২০০৯ পর্যন্ত লিভারপুল টানা ৩ ম্যাচ জেতে। ২০১৮ পর্যন্ত পরের ৬ দেখায় রিয়াল জেতে। এর আগে দুবার ফাইনালে দেখা হয়। প্রত্যেক দল জেতে ১ বার করে। এবার কে জিতবে? 

আরও ২১ মিনিট দেরিতে শুরু হচ্ছে ফাইনাল:
লিভারপুল ও রিয়ালের ভক্ত-সমর্থকরা এখনো সবাই মাঠে প্রবেশ করতে পারেননি। তাদের কথা বিবেচনা করে চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনাল আরও ২১ মিনিট পেছানো হয়েছে। বাংলাদেশ সময় রাত ১টা ৩০ মিনিটে শুরু হবে ম্যাচটি। তার আগে চলুন দেখে নেওয়া যাক রিয়াল মাদ্রিদ ও লিভারপুলের একাদশ।

লিভারপুলের একাদশ:
অ্যালিসন বেকার, ট্রেন্ট আলেক্সান্ডার আর্নল্ড, ইব্রাহিম কোনাটে, ভির্জিল ফন দাইক, অ্যান্ডি রবার্টসন, জর্ডান হেন্ডারসন, ফাবিনহো, থিয়াগো আলকানতারা, মোহাম্মদ সালাহ, সাদিও মানে ও লুইস দিয়াজ।

রিয়াল মাদ্রিদের একাদশ:
থিবাউট কোর্তোয়া, এদার মিলিতাও, ডেভিড আলবা, ফারল্যান্ড মেন্ডি, দানি কারবাহাল, টনি ক্রুস, কাসেমিরো, লুকা মদ্রিচ, ফেদেরিকো ভালভার্দে, করিম বেনজেমা ও ভিনিসিউস জুনিয়র।

ভক্তদের মাঠে আসতে দেরি, ১৫ মিনিট পর ফাইনাল শুরু:
উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনাল বাংলাদেশ সময় শনিবার দিবাগত রাত ১টায় শুরু হওয়ার কথা থাকলেও ভক্ত-সমর্থকদের কথা চিন্তা করে ১৫ মিনিট দেরিতে শুরু হচ্ছে। উয়েফা আনুষ্ঠানিকভাবে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

মূলত প্রচণ্ড চাপের কারণে দর্শক মাঠে প্রবেশে দেরি হচ্ছে। তারা যাতে খেলা দেখা থেকে বঞ্চিত না হয়, সে কারণেই ১৫ মিনিট দেরিতে শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে উয়েফা।

ঢাকা/আমিনুল/রিয়াদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়