ঢাকা     বুধবার   ২৯ জুন ২০২২ ||  আষাঢ় ১৫ ১৪২৯ ||  ২৮ জিলক্বদ ১৪৪৩

কীভাবে থামানো যেতে পারে বাটলার-মিলারকে?

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:৩০, ২৯ মে ২০২২  
কীভাবে থামানো যেতে পারে বাটলার-মিলারকে?

ডেভিড মিলারের নামই হয়ে গেছে ‘কিলার মিলার’। দক্ষিণ আফ্রিকান এই ব্যাটসম্যান মিডল অর্ডারে নেমে শেষ করে দিয়ে আসছেন ম্যাচ। আইপিএল ফাইনালে রাজস্থান রয়্যালসের জন্য বড় ধরনের হুমকি গুজরাট টাইটান্সের এই ব্যাটসম্যান।

অন্যদিকে জস বাটলার হঠাৎ করেই ফর্মে ফিরেছেন। লিগ পর্বের শেষ দিকে হারানো ছন্দ ফিরে পেয়েছেন রাজস্থানের ইংলিশ ব্যাটসম্যান। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে এক আসরে রেকর্ড চতুর্থ সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে বিরাট কোহলির পাশে বসেছেন। ফাইনালে তিনি হতে যাচ্ছেন গুজরাট টাইটান্সের বড় বাধা।

আরেকটি দারুণ ব্যাপার হলো, এই দুই ব্যাটসম্যানই দুইবারের দেখায় একে অন্যের সঙ্গে দারুণ পারফরম্যান্স করেছেন। যদিও বাটলারের দুটি প্রচেষ্টাই ব্যর্থ হয়েছে। লিগের দেখায় বাটলার ২৪ বলে ৫৪ রান করেছিলেন। ওই ম্যাচে রান তাড়া করতে নেমে রাজস্থান হেরে যায় ৩৭ রানে। আগে ব্যাটিং করতে নেমে মিলারের ১৪ বলে অপরাজিত ৩১ রানের ছোট্ট ঝড়ে ১৯২ রান করেছিল গুজরাট।

দ্বিতীয়বারও দুই তারকা জ্বলে উঠেছিলেন। লিগের শেষ তিন ম্যাচে ৭, ২, ২ রান করার পর প্রথম কোয়ালিফায়ারে গুজরাটের বিপক্ষে ৮৯ রানের দারুণ ইনিংস খেলেন বাটলার। কিন্তু জবাব দেন মিলার। ৩৮ বলে ৬৮ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন, শেষ ওভারে প্রথম তিন বলে ছক্কা মেরে প্রয়োজনীয় ১৬ রান করে ফেলেন সহজেই।

এই মৌসুমে তৃতীয়বার দেখা হচ্ছে দুই দলের। অনেকের মতে, এই দুজনকে বোতলবন্দি করে রাখতে পারলে সহজ হয়ে যাবে জয়ের কাজটা। এক্ষেত্রে বাটলারকে থামাতে রশিদ খানের লেগস্পিন ব্যবহার করতে পারে গুজরাট। কারণ টি-টোয়েন্টিতে রশিদের চেয়ে বেশিবার বাটলারকে আউট করতে পারেননি আর কেউই। সব মিলিয়ে চারবার ইংলিশ ব্যাটসম্যানকে আউট করেছেন আফগান স্পিনার।

আট ইনিংসে বাটলার ৬০ এর নিচে স্ট্রাইক রেটে মাত্র ২৫ রান করতে পেরেছেন। কিন্তু তার শুরুটা ছিল বিপরীত। প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে প্রথম দশ ডেলিভারিতে স্ট্রাইক রেট ৮১। আর রান তাড়ায় একই সংখ্যক বলে তার স্ট্রাইক রেট ১৬৯ এর কাছাকাছি। তাই বাটলারের বিরুদ্ধে রশিদকে আগেভাগে এনে ঝুঁকি নিতে পারে গুজরাট।

এদিকে মিলারের সাফল্যে লাগাম টানতে স্পিনের দ্বারস্থ হতে পারে রাজস্থানও। এখন পর্যন্ত তার সেরা গড় ৯৬ ও স্ট্রাইক রেট ১৪৪। সব মিলিয়ে অশ্বিনের কাছে তিনি তিনবার আউট হয়েছেন। মানে মিলার আসার পরপরই সাঞ্জু স্যামসন এই ভারতীয় অফস্পিনারকে বল দিয়ে জুয়া খেলতে পারেন। প্রতিপক্ষ ত্রাসকে তাড়াতাড়ি ফেরাতে পারলে ভালোই হবে রাজস্থানের।

ঢাকা/ফাহিম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়