ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৬ আগস্ট ২০২২ ||  ভাদ্র ১ ১৪২৯ ||  ১৬ মহরম ১৪৪৪

২০১৮ সালের সফর থেকে এবার ওয়েস্ট ইন্ডিজে ভালো করছি, এটা তো উন্নতি: নাজমুল

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০১:১৭, ২৭ জুন ২০২২   আপডেট: ১২:৩২, ২৭ জুন ২০২২
২০১৮ সালের সফর থেকে এবার ওয়েস্ট ইন্ডিজে ভালো করছি, এটা তো উন্নতি: নাজমুল

চার বছর আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজে নিজেদের টেস্টে সর্বনিম্ন দলীয় ৪৩ রানে অলআউট হয়েছিল বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ইনিংসে করে ১৪৪ রান। তিন দিনেই শেষ হয়েছিল অ্যান্টিগা টেস্ট। এর আগে প্রথম টেস্টে কিংসটনে দুই ইনিংসে রান ১৪৯ ও ১৬৮। সেই ম্যাচও হেরেছিল তিনদিনে। দুই টেস্টে চার ইনিংসে ব্যাটিংয়ে দলীয় ব্যর্থতায় প্রচণ্ড সমালোচনায় বিদ্ধ ছিলেন ক্রিকেটাররা।

চার বছর পর সেই একই চিত্র এবারের সফরে। ক্যারিবিয় পেসারদের দাপটে স্রেফ অসহায় ব্যাটসম্যানরা। তবে এই সফরে উন্নতি দেখছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। নির্দিষ্ট করে না বলেও তিনি বোঝাতে চেয়েছেন, প্রথম টেস্ট চার দিনে নিয়ে যাওয়া, দুই টেস্টে দুইশর বেশি রান করা, বোলারদের নৈপুণ্য বিশেষ করে খালেদ, ইবাদতদের দারুণ বোলিং উন্নতির লক্ষণ।

রোববার রাতে এক অনুষ্ঠানে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান বলেছেন,‘আমরা চাইব আমাদের দল জিতুক। আমরা যদি মনে করি হেরে গেলে খুব খারাপ অবস্থা, এটাতে কিন্তু আমি একমত না। সারা জীবন তো হেরেই আসছি। বরং আমি বলব, প্রথম টেস্ট যদি আমি দেখি গতবার যখন গিয়েছি ২০১৮ সালে তার চেয়ে এবারের পারফরম্যান্স ভালো। নিশ্চিতভাবে এটা আমার কাছে উন্নতি। তবে এখনো অনেক পথ বাকি, সেটা নিয়ে আমরা কাজ করছি।’

নাজমুল হাসান এমন দিনে কথাগুলো বলেছেন যেদিন বাংলাদেশ টেস্ট মর্যাদা পাওয়ার ২২ বছর পূর্ণ করেছে। তাইতো প্রশ্ন উঠছে দীর্ঘ এই সময়ে টেস্টে কেমন করছে বাংলাদেশ? কোথায় অবস্থান করছে সাকিব-তামিমরা?

নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকতে নাজমুল হাসান অন্য দেশগুলোর বিভ্রান্তিকর হিসেব তুলে ধরেন গণমাধ্যমে,‘আমার কাছে মনে হয় আমাদের সবচেয়ে দুর্বল দিক হচ্ছে এখনো টেস্ট। এ ছাড়াও টি-টোয়েন্টিতেও আমরা এখনো ভালো করতে পারিনি। তবে একটা জিনিস ঠিক, অনেক দেশ যারা নাকি এখন অনেক অনেক ভালো করছে টেস্টে, তাদের ইতিহাস যদি দেখেন ২০-২২ বছরে তাদের পারফরম্যান্সও ভালো ছিল না। সংস্কৃতি গড়ে উঠতে সময় লাগবে। প্রায় ২৬ বছর লেগে গেছে ভারতের প্রথম ম্যাচ জিততে। (ভারতের প্রথম টেস্ট জিততে সময় লাগে ২০ বছর। ১৯৩২ সালে তাদের টেস্ট অভিষেক। ১৯৩৬ থেকে ১৯৪৬ পর্যন্ত যুদ্ধের কারণে কোনো ম্যাচ খেলতে পারেনি তারা। ১৯৫২ সালে ২১তম টেস্টে প্রথম জয়। সময় লেগেছিল ২০ বছর)। এতো অস্থির হলে হবে না। ধৈর্য ধরতে হবে।’

সঙ্গে বর্তমান টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের চ্যাম্পিয়ন নিউ জিল্যান্ডের কথাও তুলে ধরেন বোর্ড সভাপতি,‘বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন নিউজিল্যান্ড, তারা বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর ৮ সিরিজে ২টা জিতেছে, টেস্ট ম্যাচ দুটা জিতে ড্র করেছে। ওরা বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়েও তো পারছে না। তাই বলে কি খারাপ হয়ে গেছে। এত হতাশ হওয়ার কিছু নেই।’

আশাহত না হয়ে আরো ধৈর্য ধরার পক্ষে নাজমুল হাসান,‘আমাকে যদি ২২ বছরের কথা বলেন…আমরা দেশের মাটিতে জেতা শুরু করেছি। তাই বলে সবগুলো যে জিতে যাব তা না। আমরা কয়েকটা টেস্ট ম্যাচ জিতেছি বড় দলের সঙ্গে, এটা আমাদের উন্নতি। বিদেশে যেয়ে যে আমরা জিততে যে পারি, সেটার একটা আভাস পেয়েছি। তাই বলে টেস্টে যে আমরা একটা ভালো দল হয়ে গেছি সেটা প্রশ্নেই উঠেনা। আমাদের বিশ্বাস রাখতে হবে।’

টেস্ট ক্রিকেটে উন্নতির জন্য আলাদা টেস্ট সেটআপ করার ঘোষণাও দিয়েছেন তিনি, ‘টানা খেলার মধ্যে আপনি টেস্ট সংস্কৃতি কিভাবে তৈরি করবেন। আপনি বলবেন ঘরোয়া ক্রিকেট। কিন্তু টানা ট্যুর করে কোন ছেলেটা ঘরোয়া ক্রিকেট খেলতে পারবে? আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেট খেলার সুযোগই তো নেই। তাহলে আপনি উন্নতিটা করবে কীভাবে? একমাত্র অপশন হচ্ছে, নতুন একটা সেট তৈরি করা। যেটা আসলে এর আগে আমরা চিন্তা করিনি, এখন চিন্তা করছি। আমাদের আলাদা একটা সেট থাকবে যারা এই জাতীয় দলের কোনো খেলা খেলবেন না। তারা ঘরোয়া ক্রিকেট খেলবে দেশে এবং দেশের বাইরে।’

ঢাকা/ইয়াসিন

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়