ঢাকা     বুধবার   ১৭ আগস্ট ২০২২ ||  ভাদ্র ২ ১৪২৯ ||  ১৮ মহরম ১৪৪৪

পরিত্যক্ত ম্যাচ বাড়িয়ে গেল ব্যাটিং দুশ্চিন্তা 

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৪:১৮, ৩ জুলাই ২০২২   আপডেট: ০৪:৩১, ৩ জুলাই ২০২২
পরিত্যক্ত ম্যাচ বাড়িয়ে গেল ব্যাটিং দুশ্চিন্তা 

ডোমিনিকা থেকে ছবি পাঠিয়েছেন মিলটন আহমেদ।

রোদ-বৃষ্টির লুকোচুরির মাঝে উইন্ডসর পার্কের ২২ গজে যে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ হলো তা রীতিমতো বিরক্তকর। যদিও ডোমিনিকার হাজার দুয়েক সমার্থকদের জন্য এই ৭৫-৮০ মিনিটের লড়াই উৎসবের বড় কারণ।

২০১৭ সালে ঘূর্ণিঝড় মারিয়ায় লণ্ডভণ্ড হয়েছিল এই সবুজের গালিচা। প্রায় ৬ মিলিয়ন ডলারের সংস্কার কাজের পর বাংলাদেশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের ম্যাচ দিয়ে এই মাঠের পাঁচ বছরের বন্ধ দুয়ার খুলেছে।

উইকেট সম্পর্কে স্বাগতিকদের ধারণা কম। তাইতো টস জিতে নিকোলাস পুরান অতিথিদের ব্যাটিংয়ে পাঠায়। কিন্তু প্রকৃতির তো মন খারাপ। ভারী বৃষ্টিতে মাঠ ভেজা। নেই সূর্য মামার দেখা। প্রায় দেড় ঘণ্টা পর খেলার সুযোগ মেলে।

সেটাও ১৬ ওভারের ম্যাচ। এরপর দুই দফায় বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ। ম্যাচ নেমে আসে ১৪ ওভারে। সেটাও পূর্ণ হয় না বৃষ্টির বাগড়ায়৷ ১৩ ওভার ব্যাটিং করা বাংলাদেশ ৮ উইকেটে ১০৫ রান তোলে। বৃষ্টি আইনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৪ ওভারে নতুন লক্ষ্য পায় ১০৮ রান৷

স্থানীয় সময় ৫টা ১৮ মিনিটের আগে কমপক্ষে পাঁচ ওভারের খেলার সিদ্ধান্ত নিতে হতো। কিন্তু বৃষ্টিতে খেলার সুযোগই মেলেনি। তাইতো নির্ধারিত সময়ের তিন মিনিট আগে ম্যাচ পরিত্যক্ত করতে বাধ্য হন আম্পায়াররা।

তবে এই পরিত্যক্ত হওয়া ম্যাচ বাংলাদেশ শিবিরে বাড়িয়ে গেছে ব্যাটিং দুশ্চিন্তা। ছন্দ হারিয়ে স্রেফ এলোমেলো মাহমুদউল্লাহর দল। শুরুটা দুর্দান্ত হওয়ার পর ২১ রানেই নেই ৫ উইকেট। এই ফরম্যাটে একবার পা পিছলে পড়লে সব শেষ!  বাংলাদেশের ইনিংসে তেমন কিছুই হয়েছে।

শুরুতে মুনিমকে (২) হারানোর পর এনামুল ও সাকিবের প্রতি আক্রমণে স্কোরবোর্ড গতি পায়। বিশেষ করে সাত বছর পর টি-টোয়েন্টি দলে খেলা ফেরা এনামুলের তিনটি চারে বাংলাদেশের বড় কিছু আশা দেখতে পায়। সঙ্গে আকিল হোসনকে পরপর দুই বলে ছক্কা ও চার হাঁকিয়ে এবং শেফার্ডকে কাট করে উড়িয়ে সাকিব থিতু হয়ে যান৷ 

কিন্তু কেউই বড় কিছু করতে পারেন না। এনামুল ১৬, সাকিব ১৫ বলে ২৯ করে বিদায় নেন। এরপর বাংলাদেশের রানের চাকা থেমে যায়। লিটন, আফিফ, মাহমুদউল্লাহ, মেহেদী ছিলেন আসা-যাওয়ার মিছিলে।

শেষমেশ কাজী নুরুল হাসান সোহানে মুখ রক্ষা। ১৬ বলে ১ চার ও ২ ছক্কায় ২৫ রান তুলে বাংলাদেশের রান একশ ছাড়িয়ে নিয়ে যান। তারও সুযোগ ছিল ইনিংসের শেষ পর্যন্ত খেলে রান বাড়ানো। কিন্তু ওডেন স্মিথকে উড়াতে গিয়ে এ ব্যাটসম্যান ক্যাচ দেন মিড উইকেটে।

ব্যাটসম্যানরা চোখে আঙুল দিয়ে বুঝিয়ে দিয়েছেন, এ ফরম্যাটে উন্নতির আরো কত বাকি! ৬ ওভারে ২ উইকেটে ৫৬ রান তোলার পরও পরের ৪ ওভারে মাত্র ২৩ রান তোলেন ব্যাটসম্যানরা। টি-টোয়েন্টিতে ভালো করার একটাই মন্ত্র, ছন্দ ধরে রাখা। অথচ বারবার রেললাইন থেকে গাড়ি ছুট! তাতে ভালোভাবে ম্যাচে নিয়ন্ত্রণ থাকলেও শেষের হাসিটা হাসতে পারে না বাংলাদেশ।

এই ম্যাচ দিয়ে অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরু হলো। বৃষ্টির বাগড়ায় ম্যাচটা ঠিকঠাক মতো না হলেও ২২ গজে ব্যাটসম্যানরা দুশ্চিন্তা বাড়িয়ে গেলেন। 

এই মাঠেই আগামীকাল (রোববার) দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি! এনামুল, সাকিব, লিটন, মাহমুদউল্লাহররা জেগে উঠবেন তো?

ঢাকা/ইয়াসিন/রিয়াদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়