ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৯ নভেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ১৫ ১৪২৯ ||  ০৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

সময় দিয়ে সেরা ফল পাওয়ার অপেক্ষা

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৫৩, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২   আপডেট: ১৯:২৪, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২
সময় দিয়ে সেরা ফল পাওয়ার অপেক্ষা

প্রায় একই ধরণের কথা মিরাজকে নিয়ে আগেও বলেছিলেন নাজমুল হাসান। নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে মিরাজ জায়গায় দাঁড়িয়ে ছক্কা হাঁকানোর পর বিসিবি সভাপতি বলেছিলেন, ‘মিরাজ যে ছক্কা মারতে পারে আমি তো জানতাম-ই না আগে।’ 

সংযুক্ত আরব আমিরাতে এশিয়া কাপের শেষ ম্যাচ থেকে দ্বিপক্ষীয় সিরিজে নিয়মিত ওপেনিং করেছেন মিরাজ। তিন ম্যাচে তার রান যথাক্রমে ৩৮, ১২ ও ৪৬। শুধু ব্যাটে রান নয়, বোলিংয়েও পেয়েছেন ৩ উইকেট। এছাড়া ফিল্ডিংয়ে দুর্দান্ত তা নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না। এমন মিরাজকে নিজ দলে পেয়ে বিসিবি সভাপতি যারপরনাই খুশি। বুধবার মিরপুরে মিরাজকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন, ‘মেহেদী হাসান মিরাজের মতো খেলোয়াড়কে আমরা টি-টোয়েন্টি দলে নিতামই না কখনো। এখন সাংঘাতিক ইম্প্যাক্ট খেলার মধ্যে থাকে। হয় ফিল্ডিংয়ে, না হয় বোলিংয়ে না হয় ব্যাটিংয়ে। কোথাও না কোথাও সে কিছু একটা করছে।’

মিরাজ যেমন পারফর্ম করে বোর্ড সভাপতির ভাবনা পাল্টে দিয়েছেন, বাকিরাও ঠিক এমন কিছু করবেন বলেই বিশ্বাস করেন তিনি। এজন্য সময় দেওয়ার কথা বললেন নাজমুল হাসান, ‘এখন আমাদের দলে অনেকগুলো খেলোয়াড় আছে, যারা ভালো খেলছে। কিন্তু ওদেরকে একটু সময় দিতে হবে। আফিফ, এখনো কিন্তু মুশফিক বা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ হয়ে যায়নি। সোহানও ওদের মতো হয়নি এখন পর্যন্ত। মানে এখনো দূরে যেতে হবে। কিন্তু ওদের সামর্থ্য আছে। লিটন দাস এখনো তামিমের কাছাকাছিও যায়নি। জিনিসগুলো আমাদের বুঝতে হবে। ওদের সম্ভাবনা আছে এবং যদি একটা বছর সময় দেয়া যায় তাহলে ভালো কিছু হবে।’

নাজমুল হাসান শ্রীলঙ্কার উদাহরণ টেনে বলেছেন, ‘শ্রীলঙ্কা যেমন একটা দল নিয়ে কাজ করেছে দীর্ঘদিন। সাড়ে তিন বছর পর গিয়ে ফল পেল।’

সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিপক্ষে জয় পাওয়া দুই ম্যাচ থেকে আত্মবিশ্বাস পেলেও সামনের কঠিন পরিস্থিতির কথা মনে করিয়ে দিয়েছেন নাজমুল হাসান, ‘এই দুই জয় ওদের আত্মবিশ্বাস বাড়াবে এটা সত্য। কিন্তু একটা জিনিস মনে রাখতে হবে (সিরিয়াস মুডে), অস্ট্রেলিয়া সম্পূর্ণ ভিন্ন পরিবেশ। অস্ট্রেলিয়ার ওই কন্ডিশন সম্পর্কে অনেকের কোনো ধারনা-ই নেই। ওখানকার যে উইকেট, ওখানকার যে পেস বাউন্স, আর যাদের বিরুদ্ধে খেলবে, রাবাদা, বুমরাহ, শাহীন শাহ আফ্রিদি এদের বল ফেস করতে হবে। কাজেই জিনিসটা পুরোপুরি ভিন্ন। এটার সঙ্গে ওটার কোনো মিল নেই।’

ইয়াসিন/আমিনুল

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়