ঢাকা     শনিবার   ২৮ জানুয়ারি ২০২৩ ||  মাঘ ১৫ ১৪২৯

ইংলিশ পরীক্ষায় ইরান ডাহা ফেল 

ক্রীড়া প্রতিবেদক  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:৪১, ২১ নভেম্বর ২০২২   আপডেট: ২২:৪৭, ২১ নভেম্বর ২০২২
ইংলিশ পরীক্ষায় ইরান ডাহা ফেল 

আল খলিফা স্টেডিয়ামে নিজেদের খুঁজে পেতে ইংল্যান্ডকে অপেক্ষা করতে হয়েছে ৩৪ মিনিট। আর আগে বেশ কয়েকবার গোলের খুব কাছে গিয়েও ফিরতে হয়েছিল। বেলিংহামের প্রথম গোলের পর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। 

রীতিমত গোল উৎসব করে সোমবার (২১ নভেম্বর) আল খলিফা স্টেডিয়ামে ইরানকে ৬-২ গোলে উড়িয়ে দেয় থ্রি লায়ন্সরা। সময় নষ্ট হওয়ায় এই ম্যাচটি অতিরিক্ত ২৯ মিনিট খেলা হয়। বিশ্বকাপের ইতিহাসে এটি অন্যতম একটি দীর্ঘ ম্যাচ। বড় কোনো টুর্নামেন্টে রাশিয়ার এটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বড় জয়। এর আগে পানামাকে রাশিয়া বিশ্বকাপে হারিয়েছিল ৬-১ গোলে।      

ম্যাচের নবম মিনিটে কেনের দারুণ ক্রসে আক্রমণ করে ইংল্যান্ড। সেটি বাঁচাতে গিয়ে আহত হন ইরানি গোলরক্ষক বেইরানভান্দ। নাক থেকে ঝরে রক্ত। সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। ফিজিও-চিকিৎসকদের সেবা শুশ্রূষার পর আবার গ্লাভস হাতে দাঁড়ান। কিন্তু মিনিট খানেকের বেশি থাকতে পারেননি। আবার লুটিয়ে পড়েন। ১৮ মিনিটের সময় স্ট্রেচারে করে মাঠ ছাড়েন তিনি। বদলি গোলরক্ষক হিসেবে নামেন হোসেইনি। 

মুহুর্মুহু আক্রমণের পর বেলিংহামের হেডে ইংল্যান্ডের গোল। শেষ কয়েক মিনিট মুহুর্মহু আক্রমণ করে ইংল্যান্ড। কিন্তু কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পায়নি তারা। অবশেষে এটি এলো ৩৫ মিনিটে বেলিংহামের হেড থেকে। বাঁ দিক থেকে শর ক্রস থেকে ডি বক্সে থাকা বেলিংহাম লাফিয়ে উঠে দুর্দান্ত হেডে ইরানের জাল স্পর্শ করেন। ইংলিশ জার্সিতে বেলিংহামের এটি প্রথম গোল।

বেলিংহামের পর ৪৩ মিনিটে শাকার গোল। ২-০ গোলে এগিয়ে ইংল্যান্ড। মাগুইয়ারের সহায়তায় ডি বক্সে বল পান শাকা। এর আগে কয়েবার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছিলেন তিনি। কিন্তু শাকাকে এবার থামানো যায়নি। ডান দিক দিয়ে হাওয়ায় ভাসানো জোরালো শটে লক্ষ্যভেদ করেন দ্বিতীয়বারের মতো। 

১০ মিনিটের ব্যবধানে ইরানের জালে ইংলিশদের ৩ গোল! ৩৫ ও ৪৩ মিনিটের পর ৪৫ মিনিটে এবার স্টার্লিংয়ে গোলে এগিয়ে যায় ইংল্যান্ড। কেনের নিচু ক্রস থেকে দারুণ দক্ষতায় ইরানের জালে তৃতীয়বারের মতো লক্ষ্যভেদ করে ইংল্যান্ড। আগের দুটি গোল করেন বেলিংহাম ও শাকা। 

বিরতির পর এসেও একই ধার বজায় রাখে ইংল্যান্ড। রহিম স্টার্লিং থেকে বল পেয়ে দ্বিতীয় গোল করতে ভুল করেননি শাকা। ডি বক্স থেকে দারুণ দক্ষতায় বাঁ দিক দিয়ে ৬২ মিনিটে নিচু শটে লক্ষ্যভেদ করে। হালি পূর্ণ করে ইংলিশরা। 

এক হালি খাওয়ার পর ইরান প্রথম গোলের দেখা পায়। গুণে গুণে চারটি গোল হজমের পর প্রথম গোলের দেখা পায় ইরান। গোলিজাদেহর পাস থেকে বল পেয়ে দারুণ শটে পিকফোর্ডকে ফাঁকি দিয়ে ৬৫ মিনিটে ইংলিশদের জালে বল জড়ান।

এরপরেই রাশফোর্ডের রেকর্ড। কেনের সহায়তায় ডান দিক দিয়ে বল পেয়ে এগিয়ে যান রাশফোর্ড। ইরানি ডিফেন্ডার মোহারারামিকে ফাঁকি দিয়ে পায়ের আলতো ছোঁয়ায় জাল খুঁজে নেন। অথচ ফিল ফোডেনের বদলি হিসেবে মাঠে নামার তখনো মিনিটও পার হয়নি। মাঠে নামার ৪৯ সেকেন্ডে তিনি গোলটি করেন। বিশ্বকাপের ইতিহাসে বদলি নামা কোনো ফুটবলারের দ্রুততম গোলের রেকর্ড এটি।

রাশফোর্ডের পর হাফডজন পূর্ণ করেন গ্রিলিশ। মাঝ মাঠ থেকে বল পেয়ে ডান দিয়ে এগিয়ে যেতে থাকে উইলসন। গোল বারের সামনে যেয়ে গোলরাক্ষকের মুখোমুখি হয়েও শট নেননি। ডি বক্সে থাকা গ্রিলিশকে পাস দিলে তিনি আলতো শটে ফাঁকা পোস্টে লক্ষ্যভেদ করেন। ৮৯ মিনিটে হাফডজন পূর্ণ করে ইংল্যাড। দুই হাতে মেলে কাঁধ ঝাঁকিয়ে অসাধারণ নৃত্যতে গোল উৎসব করেন এই তারকা ফুটবলার।

শেষে হয় অতিরিক্ত সময়ের ১০ মিনিটে পিকফোর্ড বল সেভ করতে গিয়ে ভুল করেন। ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির মাধ্যমে পেনাল্টি ঘোষণা করেন মাঠের রেফারি। ১৩ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল দিয়ে ব্যবধান কমান তারেমি। 

ইরান বধ করার এবার অপেক্ষাকৃত শক্তিশালী যুক্তরাষ্ট্রের মুখোমুখি হবে ইংল্যান্ড। আগামী শুক্রবার মাঠে নামবে তারা। একইদিন ওয়েলসের বিপক্ষে মাঠে নামবে ইরানও।
 

/রিয়াদ/

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়