ঢাকা, সোমবার, ১ পৌষ ১৪২৬, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

টস জিতে ব্যাটিং, সাহসিকতা নাকি আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত

কলকাতা থেকে ক্রীড়া প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১১-২২ ৯:১৮:১৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১১-২২ ৯:৫০:০৯ পিএম
ছবি: মিলটন আহমেদ

উমেশ যাদবকে ধ্রুপদী শটে পয়েন্ট ও গালির মাঝ দিয়ে চার হাঁকালেন সাদমান ইসলাম। ইডেন হুট করে নিস্তব্ধ হয়ে গেল। পরের বলে পুল করে আবার চার। ইডেন আবার নিরব। মনে হচ্ছিল সাদমানের ওই দুই শটে ছন্দ পেয়েছিল বাংলাদেশ।

বিশেষ করে টস জিতে ব্যাটিং করতে নেমে শুরুর ৬ ওভারে কোনো উইকেট না হারানোয় ভালো কিছুর আশা দেখছিল বাংলাদেশ। কিন্তু ভারতের পেসারদের দাপটে লণ্ডভণ্ড বাংলাদেশ শিবির। ইন্দোরে ১৫০ করেছিল, সেখানে ইডেনে বাংলাদেশ করতে পারল মাত্র ১০৬। মাথা চাড়া দিয়ে একটাই প্রশ্ন উঠছে, টস জিতে নেওয়া ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত কি সঠিক ছিল? সিদ্ধান্তটা সাহসি ছিল নাকি আত্মঘাতী?

তিনটি ইস্যু ছিল ভাবনার। 

প্রথমত, ভারতের শক্তিশালী বোলিং আক্রমণ। 

ইন্দোরে ভারতের বোলিং আক্রমণের ঝাঁজ টের পেয়েছিল বাংলাদেশ। সেখানে তাদের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাটিং নেওয়ার সিদ্ধান্তটা এক প্রকার নিজেদেরই পরীক্ষায় ঠেলে দেওয়া। কারণ ব্যাটসম্যানরা কেউই নেই ফর্মে। ব্যাটে রান নেই। ব্যাটিংয়ে ছন্দ নেই। আত্মবিশ্বাস তলানিতে। এমন সময়ে শামি, ইশান্ত, উমেশদের শক্তিধর পেস আক্রমণ সামলানো অনেক কঠিন। মুমিনুল পরপর দুবার টস জিতেছেন। দুবারই দলের এমন বিপর্যয়।

দ্বিতীয়ত, গোলাপি বলের টেস্ট।

প্রথমবারের মতো দিবারাত্রির টেস্ট খেলছে বাংলাদেশ। এমনিতেই কোনো প্রস্তুতি ম্যাচ ছিল না বাংলাদেশের এ সফরে।  এছাড়া গোলাপি বলে পূর্ণাঙ্গ অনুশীলন করার সুযোগ মিলেছে মাত্র চার সেশন। দিবারাত্রির টেস্টে নামার আগে এতটুকু প্রস্তুতি কোনোভাবেই যথেষ্ট নয়। সেখানে প্রথমবারের মতো গোলাপি বলের টেস্টে ব্যাটিং নেওয়াটা বিস্ময়কর।

তৃতীয়ত, ইডেনের উইকেট।

ইডেন গার্ডেনের উইকেট শেষ তিন বছর ধরেই পেস বোলিং বান্ধব। এখানে শেষ তিন টেস্টে পেসারদের দাপটের কথা প্রায় সবারই জানা এবং পরিসংখ্যানও বলছে, পেসাররা ইডেনের উইকেটে রুদ্রমূর্তি ধারণ করেন। ইডেনে বাংলাদেশকে স্বাগত জানিয়েছে সবুজ আভার উইকেট।  এমন উইকেটে ব্যাটিং নেওয়াটা বেশ সাহসিকতাই বটে।

টস হারা অধিনায়ক বিরাট কোহলিও অবশ্য বলেছেন, তারও ব্যাটিং নেওয়ার ইচ্ছা ছিল। তার ধারণা ছিল প্রথম দুই সেশনে স্পিনাররা এবং শেষ সেশনে পেস বোলাররা দ্যুতি ছড়াবেন। কিন্তু ৩০ ওভারের বোলিংয়ে জাজেদা করেছেন মাত্র ১ ওভার। বাকি ২৯ ওভারই পেসাররা। তাতেই কুপোকাত বাংলাদেশ।

ইশান্তের ৫, উমেশ যাদবের ৩ ও সামির ১ উইকেটে বাংলাদেশ টেস্টের ভবিষ্যত চিত্র এঁকে দিয়েছে প্রথম ইনিংসেই।


কলকাতা/ইয়াসিন/পরাগ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন