ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৯ নভেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ১৫ ১৪২৯ ||  ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

সিলেটের অসহনীয় গরম গায়েই মাখছেন না বাংলাদেশের মেয়েরা 

সিলেট থেকে ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:২৮, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২   আপডেট: ১২:৩৫, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২
সিলেটের অসহনীয় গরম গায়েই মাখছেন না বাংলাদেশের মেয়েরা 

সূর্যের চোখ রাঙানিতে পুড়ছে সিলেট। খালি চোখে তাকানোই দায়। খোলা আকাশের নিচে মিনিট কয়েক দাঁড়ালেই বাড়তে থাকে শরীরের তাপমাত্রা, ঝরতে থাকে ঘাম। এমন অসহনীয় গরমের মধ্যে সিলেটে শুরু হচ্ছে নারীদের এশিয়া কাপ। তবে এই গরমকে গায়েই মাখছেন না বাংলাদেশের মেয়েরা। অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতির কথায় বোঝা গেলো সেটা। 

থাইল্যান্ডের বিপক্ষে স্বাগতিক বাংলাদেশের ম্যাচ দিয়ে আগামীকাল শনিবার শুরু হবে এবারের এশিয়া কাপ। তার আগে শুক্রবার অসহনীয় গরম নিয়ে এক প্রশ্নে সাংবাদিকদের জ্যোতি বলেছেন, এই গরম তাদের জন্য কোনও সমস্যা না। 

জ্যোতি বলেন, ‘আবহাওয়া নিয়ে এখন আমরা চিন্তা করছি না। কারণ  যেহেতু আমরা আবুধাবিতে খেলে এসেছি, ওখানে কিন্তু গরমের মাত্রা আরও বেশি ছিল। সব মিলিয়ে ভালো একটা প্রস্তুতি কিন্তু আমাদের হয়েছে, আরও ভালো খবর হচ্ছে ওই গরমে কোনও খেলোয়াড়ের পেশিতে টান পড়েনি বা কোনও চোট আমরা পাইনি। তার মানে সব খেলোয়াড় ফিট আছে, তাই এখানেও আমরা চাইবো সব খেলোয়াড় যেন ফিট থাকে, সবাই যেন তৈরি থাকে।’

গরমের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়া প্রসঙ্গে জ্যোতি টেনেছেন আবুধাবিতে খেলার কথা। সেখানে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব খেলতে গিয়ে বাংলাদেশ ছিল ২০ দিনের মতো। ওখানে চ্যাম্পিয়ন হয়ে দেশে ফিরেছে লাল সবুজের মেয়েরা। আরব আমিরাতের রাজধানী আবুধাবির চেয়ে অবশ্য সিলেটের গরম কমই। আজ তাপমাত্রা ৩৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস দেখালেও অনুভব হচ্ছে তারচেয়ে বেশি। মরুর বুকে ক্যাম্প করার কারণে জ্যোতিদের কারণে সিলেটের এই গরম কিছু না। 

এই প্রতিবেদন লেখা সময় বাংলাদেশ-ভারত সিলেটের আউটার স্টেডিয়ামে অনুশীলন করছিল। কিছুক্ষণ ওয়ার্ম আপ করে বাংলাদেশ ড্রেসিংরুমে বিশ্রাম নিয়ে আবার অনুশীলন শুরু করে। কিছুক্ষণ পরপর মেয়েরা পানি পানের জন্য ছুটে আসছিলেন ড্রেসিংরুমের সামনে। গরমকে পাশ কাটিয়ে নিজেদের সেরাটা খেলতে হবে, এটা জ্যোতিরা বেশ ভালো করেই জানেন। তাই তো নিজেদের প্রস্তুতিতে কোনও ঘাটতি রাখছেন না। 

বাংলাদেশ এই টুর্নামেন্টে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন। নিজেদের মাঠে খেলা, জ্যোতিদের জন্য এই ট্রফি ধরে রাখা চ্যালেঞ্জেরও বটে। তবে তেমন কিছু মনে হচ্ছে না অধিনায়কের, ‘নিজের ঘরে ওভাবে চ্যালেঞ্জ আমরা মনে করছি না। কারণ আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে ম্যাচ বাই ম্যাচ খেলা, অন্য দলের স্ট্রেন্থও আমরা দেখছি না। সবগুলো দলই কিন্তু উন্নতি করেছে। আমরাও কিন্তু উন্নতি করেছি। সব মিলিয়ে আমরা আমাদের ক্রিকেটটা খেলতে চাই এবং আমরা আমাদের পরিকল্পনায় এগোতে চাই।’

সিলেট/রিয়াদ/ফাহিম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়