ঢাকা     শনিবার   ২২ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৮ ১৪৩১

এবার বিসিবির নজর সাকিব-তামিমদের মনোজগতে

ক্রীড়া প্রতিবেদক  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:৩৩, ৪ জুন ২০২৩  
এবার বিসিবির নজর সাকিব-তামিমদের মনোজগতে

ইনজুরি, ফর্মহীনতার কারণে একসময় তাসকিন আহমেদকে বাতিলের খাতায় ফেলে দিয়েছিলেন অনেকে। সেই তাসকিন এখন বাংলাদেশ দলের অপরিহার্য সদস্য। তাসকিনের এমন বদলে যাওয়ার পেছনে আছেন একজন মাইন্ড ট্রেনার। তাসকিনের বদলে যাওয়া রূপ দেখে তার অনেক সতীর্থও সেই ট্রেনারের শরণাপন্ন হয়েছেন। যাদের মধ্যে অন্যতম নাজমুল হোসেন শান্ত।

ক্রিকেটাররা ব্যক্তিগতভাবে মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে কাজ করে পেয়েছেন সাফল্যের দেখা। এবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ক্রিকেটারদের মনোজগত নিয়ে বৃহৎভাবে কাজ করার পরিকল্পনা করেছে। অস্ট্রেলিয়ান মাইন্ড ট্রেনার অ্যালান ব্রাউনের মাধ্যমে সেটি আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়ে গেলো আজ (রোববার) থেকে।

ছুটি কাটিয়ে ঢাকায় ফেরার সময় ব্রাউনকে সঙ্গে নিয়ে আসেন প্রধান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। দুজনে একসঙ্গে আসেন মাঠেও। এসেই কাজ শুরু করে দিয়েছেন ব্রাউন। অনুশীলন শুরুর আগে প্রায় ঘণ্টা ব্যাপী ক্রিকেটারদের মেন্টাল স্ট্রেন্থের সেশন নেন এই অস্ট্রেলিয়ান।

ব্রাউন কীভাবে কাজ করবেন? সেটির একটি ব্যাখ্যা দিয়েছেন বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের ম্যানেজার শাহরিয়ার নাফিস, আজ থেকে অ্যালান ব্রাউন কাজ করা শুরু করেছেন। প্রথম ধাপে আগামী দুই সপ্তাহ উনি সশরীরে কাজ করবেন, যদিও উনার অনলাইন কাজগুলো আগে থেকেই শুরু হয়েছে। উনার কাজ হচ্ছে, একটা দলের ভেতর খেলোয়াড়দের আলাদা আলাদা যে কোয়ালিটি আছে, ওটা দলের ভেতর কীভাবে কাজে লাগানো যায়, ওই বিষয়টি নিয়েই কাজ করছেন।

মানসিক অবসাদের কারণে বেন স্টোকসের মতো তারকা খেলায় বিরতি টেনেছিলেন। এতেই বোঝা যায় মানসিক স্বাস্থ্য একজন অ্যাথলেটের উপর কেমন প্রভাব ফেলে। মাইন্ড ট্রেনারের পর বিসিবি নিয়ে আসছে একজন মনোবিদও। ক্রিকেট বোর্ড মানসিক স্বাস্থ্যকে গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছে। তারই ধারাবাহিকতায় এশিয়া কাপের আগে ১১ আগস্ট ঢাকায় আসবেন মনোবিদ ফিল জন্সি। তিনি কাজ করবেন ক্রিকেটারদের নানা ধরণের মানসিক সমস্যা নিয়ে তথা মনোজগত নিয়ে।

ব্রাউন-ফিলের কাজ নিয়ে নাফিস বলেন, স্পোর্টস সাইকোলজিস্ট একজন খেলোয়াড়ের ব্যক্তিগত সমস্যা সমাধানের কাজ করে। তবে অ্যালান ব্রাউনের কাজ হচ্ছে, একটা খেলোয়াড়ের দক্ষতাকে কীভাবে দলের সঙ্গে এক করা যায়, ওটা নিয়ে কাজ করা।

এতদিন ধরে ক্রিকেটাররা নিজ উদ্যোগে নিজেদের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে কাজ করেছে। এবার বিসিবি কি ক্রিকেটারদের চাওয়া থেকে এমন সিদ্ধান্ত হাতে নিয়েছে? 

ক্রিকেটার থেকে কর্তা হওয়া নাফিস বলেন, এখনকার পরিস্থিতিতে প্রয়োজন হয়েছে বলেই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড উনাকে নিয়োগ করেছে। এটা আমাদের সভাপতিও (নাজমুল হাসান পাপন) বলেছিলেন, আমরা এ ধরনের বিষয়গুলো দলের সঙ্গে আরও যুক্ত করতে চাই। দলের প্রয়োজনীয়তা হয়েছে, ম্যানেজমেন্টের প্রয়োজনীয়তা হয়েছে, বোর্ড সেটা অনুভব করেছে বলেই তাদের কাজে লাগাচ্ছে।

সামনে ক্রিকেটারদের ব্যস্ত সূচি। চলতি বছরেই আছে বাংলাদেশের সবচেয়ে প্রিয় সংস্করণ একদিনের ক্রিকেটের বিশ্বকাপ। এই বিশ্বকাপকে ঘিরে স্বপ্ন দেখছে বাংলাদেশ। ২০১১ সালে বিশ্বকাপের আগে ভারত দলের সঙ্গে কাজ করেছিলেন মনোবিদ প্যাডি আপটন। সেবার বিশ্বকাপ জিতেছিলেন শচীন টেন্ডুলকাররা। এবার কি বাংলাদেশ একজন মনোবিদ নিজেদের সঙ্গে রাখবে? নাফিস জানিয়েছেন, এখন পর্যন্ত এমন সিদ্ধান্ত নেয়নি বোর্ড।

রিয়াদ/কেআই

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়