ঢাকা     সোমবার   ২২ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ৯ ১৪৩১

৭০ হাজার মেট্রিক টন সার আমদানির প্রস্তাব অনুমোদন

বিশেষ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:১৮, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  
৭০ হাজার মেট্রিক টন সার আমদানির প্রস্তাব অনুমোদন

কৃষকের হাতে সময়মতো সার তুলে দিতে রাষ্ট্রীয় উদ্যোগে সৌদি আরব থেকে ৪০ হাজার মেট্রিক টন ডিএপি সার এবং কর্ণফুলী ফার্টিলাইজার কোম্পানি লিমিটেড (কাফকো) থেকে ৩০ হাজার মেট্রিক টন ব্যাগড ইউরিয়া সার এবং চট্টগ্রামের টিএসপিসিএলের জন্য ১০ হাজার মেট্রিক টন ফসফরিক এসিড আমদানির পৃথক তিনটি প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় প্রস্তাবগুলোতে অনুমোদন দেওয়া হয়। সভা শেষে অনুমোদিত প্রস্তাবগুলোর বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সাঈদ মাহবুব খান।  

অতিরিক্ত সচিব বলেন, সভায় রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে চুক্তির আওতায় সৌদি আরব থেকে দ্বিতীয় লটে ৪০ হাজার মেট্রিক টন ডিএপি সার আমদানির প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। বিএডিসি সৌদি আরব থেকে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে চুক্তির মাধ্যমে ডিএপি সার আমদানি করে। এর আগে সম্পাদিত চুক্তির কার্যক্রম সম্পন্ন হওয়ায় বিদ্যমান চুক্তির শর্তগুলো অভিন্ন রেখে চুক্তি নবায়ন করা হয়। সার আমদানি চুক্তিতে উল্লেখ করা মূল্য নির্ধারণ পদ্ধতি অনুসারে সৌদি আরব থেকে দ্বিতীয় লটে ৪০ হাজার (+১০%) মেট্রিক টন ডিএপি সার আমদানিতে ব্যয় হবে বর্তমান আন্তর্জাতিক বাজারমূল্য অনুযায়ী ২ কোটি ৩০ লাখ ৪০ হাজার মার্কিন ডলারের সমপরিমাণ ২৫৩ কোটি ৪৪ লাখ টাকা।  প্রতি মেট্রিক টন ডিএপি সারের দাম ৫৭৬ মার্কিন ডলার।

তিনি বলেন, কর্ণফুলী ফার্টিলাইজার কোম্পানি লিমিটেড (কাফকো), বাংলাদেশের কাছ থেকে ১৪তম লটে ৩০ হাজার মেট্রিক টন ব্যাগড গ্র্যানুলার ইউরিয়া সার কেনার একটি প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরে পরিকল্পনা মোতাবেক কাফকো, বাংলাদেশ হতে ৫ লাখ ৫০ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার কেনার সংশোধিত চুক্তি করা হয়। ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরে ১৪তম লটে ৩০ হাজার মেট্রিক টন ব্যাগড গ্র্যানুলার ইউরিয়া সার কেনার জন্য প্রাইস অফার পাঠানোর অনুরোধ করা হলে কাফকো, বাংলাদেশ প্রাইস অফার পাঠায়। কাফকোর সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী সারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়। ৩০ হাজার মেট্রিক টন ব্যাগড গ্র্যানুলার ইউরিয়া সার কিনতে প্রতি মেট্রিক টন ৩৭১.৩৭৫ মার্কিন ডলার হিসেবে মোট ১ কোটি ১১ লাখ ৪১ হাজার ২৫০ মার্কিন ডলারের সমপরিমাণ ১২২ কোটি ৫৫ লাখ ৩৭ হাজার ৫০০ টাকা ব্যয় হবে।

সভায় চট্টগ্রামের টিএসপিসিএলের জন্য ১০ হাজার মেট্রিক টন (+৫%) ফসফরিক এসিড আমদানির কেনার প্রস্তাবে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত সচিব। তিনি বলেন, টিএসপি সার উৎপাদনের প্রধান কাঁচামাল ফসফরিক এসিড বিদেশ থেকে আমদানি করতে হয়। ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরে ১০ হাজার মেট্রিক টন (+১০%) ফসফরিক এসিড কেনার জন্য আন্তর্জাতিক উম্মুক্ত দরপত্র আহ্বান করা হলে তিনটি দরপত্র জমা পড়ে। দরপত্র তিনটিই কারিগরিভাবে রেসপনসিভ হয়। দরপত্রের সব প্রক্রিয়া শেষে টিইসি কর্তৃক সুপারিশকৃত রেসপনসিভ সর্বনিম্ন দরদাতা প্রতিষ্ঠান মেসার্স বেস্ট ইস্টার্ন, ঢাকা ১০ হাজার মেট্রিক টন ফসফরিক এসিড সরবরাহ করবে। এতে মোট ব্যয় হবে ৬২ কোটি ৯২ লাখ টাকা। প্রতি মেট্রিক টন ফসফরিক এসিডের দাম ৫৭২ মার্কিন ডলার।

হাসনাত/রফিক

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়