ঢাকা     সোমবার   ১৭ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৩ ১৪৩১

ইসলামিক ব্যাংকগুলোর আর্থিক প্রতিবেদন

তারল্য সংকটের মধ্যেও বাড়ছে ঋণ-আমানত

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:২৮, ৩০ মে ২০২৪  
তারল্য সংকটের মধ্যেও বাড়ছে ঋণ-আমানত

ছবি: ইন্টারনেট

তারল্য সংকটের মধ্যেও ইসলামীধারার ব্যাংকগুলোর ঋণ ও আমানত বেড়েছে। তবে কমেছে প্রবাসী আয় (রেমিট্যান্স) ও রপ্তানি আয়। বাংলাদেশ ব্যাংকের ইসলামীধারার ব্যাংকগুলোকে নিয়ে করা প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে ইসলামী শরীয়াহভিত্তিক ব্যাংকগুলোর আমানতের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৪ লাখ ১৮ হাজার ৯১৪ কোটি টাকা। এ সময় মোট বিনিয়োগ ছিল ৪ লাখ ৮৮ হাজার ৯০১ কোটি। আগের মাস অর্থাৎ জানুয়ারিতে আমানত ছিল ৪ লাখ ১৩ হাজার ৯৬৯ কোটি টাকা, এ সময় বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৪ লাখ ৮২ হাজার ৩২৫ কোটি টাকা। এক মাসের ব্যবধানে আমানত বেড়েছে ৪ হাজার ৯৪৫ কোটি টাকা। এর মধ্যে শুধু ইসলামীধারার ব্যাংকগুলোর আমানত বেড়েছে ৪ হাজার ৭৬১ কোটি টাকা, বিনিয়োগ বেড়েছে ৬ হাজার ৪৫২ কোটি টাকা। এছাড়া এ সময় প্রচলিতধারার ব্যাংকগুলোর ইসলামী ব্যাংকিং শাখাগুলোতে আমানত বেড়েছে ১০ কোটি টাকা। তবে এসব শাখায় বিনিয়োগ কমেছে ১০০ কোটি টাকা। ইসলামী উইন্ডোগুলোতে আমানত বেড়েছে ১৭৪ কোটি টাকা, বিনিয়োগ বেড়েছে ২২৪ কোটি টাকা।

আলোচ্য সময়ে ইসলামী ব্যাংকগুলোর প্রবাসী আয় (রেমিট্যান্স) ও রপ্তানি আয় কমেছে। গত ফেব্রুয়ারিতে ইসলামী ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে প্রবাসীরা পাঠিয়েছে ৯ হাজার ৮৭১ কোটি টাকা। আগের মাস অর্থাৎ জানুয়ারিতে প্রবাসীরা পাঠিয়েছিল ১১ হাজার ৬৩৪ কোটি। এক মাসে রেমিট্যান্স কমেছে ১ হাজার ৭৬৩ কোটি টাকা। তবে এ সময় প্রচলিতধারার ব্যাংকগুলোর ইসলামি ব্যাংকিং শাখা ও উইন্ডোগুলোতে প্রবাসী আয় কিছুটা বেড়েছে।

ফেব্রুয়ারিতে ইসলামী শরীয়াহভিত্তিক ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে রপ্তানি আয় এসেছে ৬ হাজার ৯০৮ কোটি টাকা, শুধু ইসলামীধারার ব্যাংকগুলোতে এসেছে ৬ হাজার ২৮৯ কোটি টাকা। জানুয়ারিতে রপ্তানি আয় এসেছিল ৭ হাজার ৫৪৮ কোটি টাকা, শুধু ইসলামীধারার ব্যাংকগুলোতে এসেছিল ৬ হাজার ৭৬৮ কোটি। আলোচ্য সময়ে রপ্তানি আয় আসা কমেছে ৬৩৯ কোটি টাকা, শুধু ইসলামী ব্যাংকগুলোতে কমেছে ৪৭৯ কোটি টাকা।

ফেব্রুয়ারিতে ইসলামী ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে আমদানি দায় পরিশোধও কমেছে। ফেব্রুয়ারিতে আমদানি দায় পরিশোধের পরিমাণ ৯ হাজার ৯২১ কোটি টাকা। জানুয়ারিতে ইসলামী ব্যাংকিংয়ে আমদানি দায় পরিশোধের পরিমাণ ছিল ১২ হাজার ২০২ কোটি টাকা। আলোচ্য সময়ের ব্যবধানে আমদানি দায় পরিশোধ কমেছে ২ হাজার ২৮২ কোটি টাকা।

উল্লেখ্য, দেশে বর্তমানে পূর্ণাঙ্গ শরিয়াহভিত্তিক ব্যাংক রয়েছে ১০টি। ব্যাংকগুলো হচ্ছে—ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ, আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক, সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড (এসআইবিএল), স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, গ্লোবাল ইসলামী ব্যাংক, ইউনিয়ন ব্যাংক, আইসিবি ইসলামিক ও শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংক।

/এনএফ/এসবি/

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়