ঢাকা     মঙ্গলবার   ২১ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ৭ ১৪৩১

বারী সিদ্দিকী নেই, ইথারে ভাসে তার গান 

রাহাত সাইফুল || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:১৫, ২৪ নভেম্বর ২০২১  
বারী সিদ্দিকী নেই, ইথারে ভাসে তার গান 

‘শুয়া চান পাখি আমার, আমি ডাকিতেছি তুমি ঘুমাইছ নাকি’- গানের কথার মতোই জাদুকরী সুর যার কণ্ঠে শোনা যেত তিনি বারী সিদ্দিকী। আধুনিক-ফোক ঘরানার এই শিল্পী চিরঘুমের দেশে পাড়ি জমিয়েছেন ২০১৭ সালের ২৪ নভেম্বর। শত ডাকাডাকিতেও তিনি আর সাড়া দিয়ে গাইবেন না- ‘আমি একটা জিন্দা লাশ, কাটিস নারে জংলার বাঁশ, আমার লাইগা সাড়ে তিন হাত কবর খুঁড়িস না’

গুণী এই সংগীতশিল্পী আমাদের মাঝে না থাকলেও ইথারে ভেসে বেড়ায় তার অসংখ্য গান। সংগীতপ্রিয় শ্রোতা এখনও তার গান শুনে বিভোর হন।

বারী সিদ্দিকীর মৃত্যুর খবর শুনে সেদিন ছুটে গিয়েছিলেন গণসংগীত শিল্পী ফকির আলমগীর। তিনি সে সময় বলেছিলেন, বারী সিদ্দিকী থাকবেন না, কিন্তু আকাশে-বাতাসে, ইথারে যখন তার গান ভেসে বেড়াবে তখন বারবার আমাদের মনের মধ্যে কলতান জেগে উঠবে।’

দুঃখজনক হলো, ফকির আলমগীরও আমাদের মাঝে নেই। বারী সিদ্দিকী মৃত্যুর আগে দুই বছর কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন। ডায়াবেটিসও ছিল। হৃদরোগে আক্রান্ত হলে তাকে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে বেশ কিছুদিন চিকিৎসা নেয়ার পর আজকের এই দিনে তিনি মারা যান।

প্রখ্যাত এই সংগীতশিল্পী ১৯৫৪ সালের ১৫ নভেম্বর নেত্রকোনা জেলার এক সংগীতজ্ঞ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। মাত্র ১২ বছর বয়সে নেত্রকোনার শিল্পী ওস্তাদ গোপাল দত্তের অধীনে আনুষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ শুরু হয় তার। তিনি ওস্তাদ আমিনুর রহমান, দবির খান, পান্নালাল ঘোষসহ অসংখ্য গুণী শিল্পীর সান্নিধ্য লাভ করেন। ক্লাসিক্যাল মিউজিকের ওপর পড়াশোনা করেন বারী সিদ্দিকী।

দীর্ঘদিন সংগীতের সঙ্গে জড়িত থাকলেও সবার কাছে বারী সিদ্দিকী শিল্পী হিসেবে পরিচিতি পান ১৯৯৯ সালে। ওই বছর হুমায়ূন আহমেদের ‘শ্রাবণ মেঘের দিন’ সিনেমাটি মুক্তি পায়। এই সিনেমায় তিনি ছয়টি গান গেয়ে ব্যাপক সুনাম অর্জন করেন।

হৃদয়স্পর্শী সুরের অনন্য এই কারিগরের উল্লেখযোগ্য একক অ্যালবামগুলো হলো ‘সরলা’, ‘ভাবের দেশে চলো’, ‘সাদা রুমাল’, ‘মাটির মালিকানা’, ‘মাটির দেহ’, ‘মনে বড় জ্বালা’, ‘নিলুয়া বাতাস’ ও ‘দুঃখ দিলে দুঃখ পাবি’। এছাড়া তার কণ্ঠে বিরহ-বিচ্ছেদ আর মরমী গানগুলোর মধ্যে রয়েছে ‘শুয়া চান পাখি’, ‘আমার গায়ে যত দুঃখ সয়’, ‘সাড়ে তিন হাত কবর’, ‘রজনী’, ‘আমি একটা জিন্দা লাশ’, ‘পুবালি বাতাসে’, মানুষ ধরো মানুষ ভজো’, ‘আমার মন্দ স্বভাব জেনেও’ প্রমুখ।
বংশীবাদক হিসেবেও এই সংগীতশিল্পী সুনাম অর্জন করেছিলেন। 

/তারা/ 

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়