ঢাকা     বুধবার   ২৯ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪৩১

‘অশ্লীল সিনেমা প্রদর্শন হলেই ব্যবস্থা’

জ্যেষ্ঠ বিনোদন প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:২৩, ১৫ মে ২০২৪   আপডেট: ১৬:৪২, ১৫ মে ২০২৪
‘অশ্লীল সিনেমা প্রদর্শন হলেই ব্যবস্থা’

চলচ্চিত্রের সোনালি যুগের অবসানের পর নব্বই দশকের শেষ দিকে কাটপিস সিনেমার আগ্রাসন শুরু হয়। ২০০০ সালের পর বেশকিছু শিল্পীর বিরুদ্ধে অশ্লীল দৃশ্যে অভিনয়ের ব্যাপকভাবে অভিযোগ ওঠে। যে কারণে সিনেমাপ্রেমী মানুষ হলবিমুখ হতে শুরু করেন। সরকারের কঠোর মনোভাব আর চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টদের একান্ত প্রচেষ্টায় বর্তমানে অশ্লীল চলচ্চিত্র নির্মাণের সুযোগ নেই।

এখন আবার দেশীয় চলচ্চিত্রে সুবাতাস বইতে শুরু করেছে। ঠিক এমন সময় সরকারের কঠোর অবস্থানের পরও দেশের কিছু প্রেক্ষাগৃহে অশ্লীল সিনেমা প্রদর্শনের অভিযোগ রয়েছে। বাংলাদেশ সেন্সর বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান খালেদা বেগম বিষয়টি নিয়ে সোচ্চার। অশ্লীল সিনেমা প্রদর্শনের অভিযোগ তার কাছেও গিয়েছে বলে রাইজিংবিডিকে জানিয়েছেন তিনি।  

রাইজিংবিডিকে খালেদা বেগম বলেন, “অশ্লীল সিনেমা ও অশ্লীল দৃশ্য প্রদর্শনের বিরুদ্ধে আমরা সোচ্চার। যেখানেই এমন অভিযোগ পাব, সেখানেই সেন্সর বোর্ডের ইন্সপেক্টর যাবে। নারায়ণগঞ্জে ‘গুলশান’ সিনেমা হলে সেন্সরবিহীন ‘তুফান’ সিনেমার টিজার প্রর্দশনের অভিযোগ পেয়ে ইন্সপেক্টর সেখানে গিয়েছিল। কিন্তু হল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি অস্বীকার করেছে।”

অনিয়মের বিরুদ্ধে এখন সেন্সর বোর্ডের অবস্থান। তা উল্লেখ করে খালেদা বেগম বলেন, ‘সেন্সর বোর্ড যেকোনো অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। আমরা অভিযোগ পেলে তদন্ত করব। শুনেছি, দেশের বিভিন্ন সিনেমা হলে এখনো অশ্লীল সিনেমা প্রদর্শন করা হয়। বিষয়টি আমরা আমলে নিয়ে খোঁজ রাখছি। কোথাও অশ্লীল সিনেমা প্রদর্শনের তথ্য আমাদের দিলে আমরা ব্যবস্থা নেব।’

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বছর দশেক আগে নির্মিত অশ্লীল চলচ্চিত্রগুলোই ডিজিটাল ফরমেটে রূপান্তর করে কিছু প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শন করা হচ্ছে। মাঝে মাঝে দেশের বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহের সামনে অশ্লীল সিনেমার পোস্টারও দেখা যায়।

রাহাত//

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়