ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২০ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৬ ১৪৩১

ইসরায়েলের অভিযান বন্ধে আন্তর্জাতিক আদালতের নির্দেশ চেয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:১৮, ১৬ মে ২০২৪   আপডেট: ২১:১৯, ১৬ মে ২০২৪
ইসরায়েলের অভিযান বন্ধে আন্তর্জাতিক আদালতের নির্দেশ চেয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা

গাজার রাফাহ শহরে ইসরায়েলের অভিযান বন্ধে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতের আদেশ চেয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। বৃহস্পতিবার ইসরায়েলের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার শুনানিতে এ আবেদন করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার আইনজীবীরা।

গাজায় বসবাসকারী ফিলিস্তিনিদের ইসরায়েল গণহত্যা করছে অভিযোগ করে গত বছরের ডিসেম্বরে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে দক্ষিণ আফ্রিকা মামলা করে। দক্ষিণ আফ্রিকার উপস্থাপিত ৮৪ পৃষ্ঠার নথিতে বলে হয়েছে, ইসরায়েলের কার্যকলাপ ‘চরিত্রগতভাবে গণহত্যাই।’ কারণ তারা গাজায় বসবাসকারী ফিলিস্তিনিদের একটি বড় অংশকে ধ্বংস করে দিতে চেয়েছে। জানুয়ারিতে এই মামলার প্রথম পর্বের শুনানি হয়।

বৃহস্পতিবার শুনানিতে দক্ষিণ আফ্রিকার আইনজীবীরা বলেন, রাফাহতে সামরিক হামলার পরিণতি সম্পর্কে জাতিসংঘের অঙ্গসংস্থাগুলোর মতামত সম্পর্কে জানে ইসরায়েল। দেশটি জানে এ ব্যাপারে বিচার আদালত কী নির্দেশ দিয়েছে। তবুও ইসরায়েলের নেতারা গণহত্যাকে উসকে দিচ্ছেন এবং গণহত্যার অভিপ্রায় প্রকাশ করে যাচ্ছেন। এটি করার মাধ্যমে, ইসরায়েল গণহত্যা কনভেনশনের রাষ্ট্রীয় পক্ষ হিসাবে তার বাধ্যবাধকতাগুলোকে শুধু উপেক্ষা করেনি, বরং তারা এই আদালতকে অবমাননা করেছে এবং আইনের শাসনকে হুমকি দিয়েছে।

দক্ষিণ আফ্রিকার আইনজীবী প্যানেলের সদস্য তেম্বেকা এনগকুকাইতোবি বলেছেন, গণহত্যার পরিণতি সম্পর্কে ‘স্পষ্ট সতর্কতা’ সত্ত্বেও ইসরায়েল এটি চালিয়ে যাচ্ছে। ফিলিস্তিনিদের জীবন সম্পূর্ণ ধ্বংসের শেষ পর্যায়ে।

রাফাহতে ইসরায়েলের অভিযান বন্ধে আদালতের নির্দেশ চেয়ে তিনি বলেন, ‘ফিলিস্তিনিরা গণহত্যা কনভেনশনের অধীনে একটি সুরক্ষিত গোষ্ঠী হিসাবে অস্তিত্ব বজায় রাখতে সক্ষম হওয়ার জন্য, তাদের একটি জায়গা দরকার যেখান থেকে পুনর্নির্মাণ করা যায় … রাফাহ হল সেই জায়গা, শেষ অবস্থান। রাফাহ ছাড়া (গাজা) পুনর্নির্মাণের সম্ভাবনা চিরতরে হারিয়ে যাবে।’

ঢাকা/শাহেদ

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়