ঢাকা     শুক্রবার   ১২ এপ্রিল ২০২৪ ||  চৈত্র ৩০ ১৪৩০

‘মেগা প্রজেক্ট ছাড়া সব কাজ করবে প্রাইভেট সেক্টর’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:৪৯, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১   আপডেট: ১৭:৩১, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১
‘মেগা প্রজেক্ট ছাড়া সব কাজ করবে প্রাইভেট সেক্টর’

জমি বরাদ্দপ্রাপ্ত ৯টি দেশীয় প্রতিষ্ঠানের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান

প্রাইভেট সেক্টরই হচ্ছে দেশের উন্নয়নের চাবিকাঠি। সরকার সামান্য কিছু মেগা প্রজেক্ট নিজেরা করবে। দেশের বাকি সব উন্নয়নকাজ করবে প্রাইভেট সেক্টর।

বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে আয়োজিত বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ এবং জমি বরাদ্দপ্রাপ্ত ৯টি দেশীয় প্রতিষ্ঠানের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, যে ৯টি প্রতিষ্ঠান জমি বরাদ্দ পেয়েছে- তাদের সবাইকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। এসব প্রতিষ্ঠান তাদের দক্ষ জনবল ও নিষ্ঠার সঙ্গে গুণগত মান বজায় রেখে পণ্য উৎপাদন করবে।

মন্ত্রী বলেন, একসময় যেসব পণ্য আমদানি করতাম আমরা, আজ সেসব পণ্য দেশে উৎপাদিত হচ্ছে। দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও রপ্তানি হচ্ছে। দেশের মেগা প্রজেক্টগুলো ছাড়া সব কাজই করবে প্রাইভেট প্রতিষ্ঠান।

পরিকল্পনামন্ত্রী আরও বলেন, এই ৯টি প্রতিষ্ঠান নতুন করে মোট বিনিয়োগ করবে ৫৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এসব প্রতিষ্ঠানে কাজ করবেন প্রায় ৩ হাজার ৫০০ দক্ষ জনবল। 

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, কালিয়াকৈরে ৩৫৫ একর জমির ওপর স্থাপিত বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটি বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ফ্ল্যাগশিপ প্রকল্প।  আজ চুক্তির মাধ্যমে যে ৯টি প্রতিষ্ঠান জমি বরাদ্দ পেলো, আশা করছি তারা হার্ডওয়ার, সফটওয়ার, আইওটি, বিপিও, আর অ্যান্ড ডি, ডাটা সেন্টারসহ উচ্চ প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করবে।

শুভেচ্ছা বক্তব্যে ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম মুর্শেদ বলেন, ওয়ালটন হাই টেকসহ এর অঙ্গ প্রতিষ্ঠানে ৩০ হাজার গর্বিত সদস্য রয়েছেন। দেশের বাজারে ফ্রিজের ৭০ শতাংশ শেয়ার ওয়ালটনের।  এছাড়াও আমরা টেলিভিশন, মাইক্রোওভেন, লিফট, মোবাইলসহ বিভিন্ন ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী প্রস্তত করছি। সেসব পণ্য দেশীয় বাজারের চাহিদা মিটিয়ে বিশ্বের ৪০টিরও বেশি দেশে রপ্তানি করছি।

জমি বরাদ্দপ্রাপ্ত ৯টি দেশীয় প্রতিষ্ঠানের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে গোলাম মুর্শেদ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, দেশে যেমন এক নম্বর তেমনি খুব অল্প সময়ের মধ্যে ওয়ালটন হবে এক নম্বর গ্লোবাল ব্র্যান্ড। ওয়ালটনকে বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটিতে ৩.০১ একর জমি বরাদ্দের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষহ প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানাই। এখানে নতুন করে আমাদের বিনিয়োগ হবে ৬.৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং এখানে কর্মসংস্থান হবে ১ হাজার ৫৫০ জন দক্ষ জনবলের।

বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটি, কালিয়াকৈরে ইন্ডাস্টিয়াল জোনে ৭টি এবং শেখ হাসিনা সফটওয়ার টেকনোলজি পার্কে ২টিসহ মোট ৯টি প্রতিষ্ঠানের জন্য বরাদ্দকৃত জমির পরিমাণ ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড ৩.০১ একর, চাইল্ড হেলথ রিসার্চ ফাউন্ডেশন ২.২৫ একর, টেকনোমিডিয়া লিমিটেড .৮৭ একর, ড্যাফোডিলস কম্পিউটারস লিমিটেড .৯৬ একর, সেলট্রোন ইলেক্ট্রো ম্যানুফ্যাকচারিং সার্ভিস লিমিটেড .৬৫ একর, উল্কাসেমি প্রাইভেট লিমিটেড ১.৮১ একর, ম্যাকটেল লিমিটেড ১.৩৭ একর, রেডডট ডিজিটাল লিমিটেড .২১ একর এবং ফেলিসিটি বিগ ডাটা লিমিটেড .৪৫ একর। 

এসব প্রতিষ্ঠানকে জমি বরাদ্দের চুক্তিসই করাসহ হালিমা টেলিকমকে বেসরকারি সফটওয়ার টেকনোলজি পার্ক ঘোষণার অনুমতিপত্র আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা হয়।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, বাংলাদেশ হাইটেক পার্কের সভাপতি বিকর্ণ কুমার ঘোষ এবং জমি বরাদ্দপ্রাপ্ত ৯টি কোম্পানির উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

মেসবাহ/এসবি

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়