ঢাকা     সোমবার   ১৭ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৩ ১৪৩১

চাহিদা মেটাতে ভোলার উদ্বৃত্ত গ্যাস আসছে

কেএমএ হাসনাত || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৯:১০, ২৯ মার্চ ২০২৩  
চাহিদা মেটাতে ভোলার উদ্বৃত্ত গ্যাস আসছে

সুন্দরবন গ্যাস কোম্পানি লিমিটেড (এসজিসিএল)-এর আওতাধীন ভোলা জেলায় অবস্থিত বাপেক্সের শাহবাজপুর গ্যাস ক্ষেত্রের উদ্বৃত্ত গ্যাস দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের শিল্প প্রতিষ্ঠানে সরবরাহের উদ্যোগ নিয়েছে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ।

সূত্র জানায়, শাহবাজপুর গ্যাস ক্ষেত্রের ২টি প্রসেস প্লান্টের গ্যাস উৎপাদন ক্ষমতা ১২০ এমএমসিএফডি। ওই গ্যাস থেকে আবাসিক খাতে এবং বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রে সরবরাহের পর ৩৪ এমএমসিএফডি গ্যাস উদ্বৃত্ত থাকে। ভোলার উদ্বৃত্ত গ্যাস ঢাকার শিল্প প্রতিষ্ঠানে সুষ্ঠু ও নিরাপদে পরিহন ও বিতরণের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে বিভিন্ন পদ্ধতিতে গ্যাস পরিবহনের লক্ষ্যে মোট ৯টি প্রস্তাব পাওয়া যায়।

সূত্র জানায়, সর্বপ্রথম ভোলা থেকে গ্যাস কম্প্রেসড অবস্থায় সিলিন্ডারে পরিবহন করে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের শিল্প প্রতিষ্ঠানে সরবরাহের বিষয়ে ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিং স্টেশন লিমিটেড এসজিসিএল-এর কাছে আবেদন করে। পরবর্তীতে একই বিষয়ে ৫টি উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান আবেদন করে। এছাড়া নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানে ব্যবহারের জন্য ২টি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে প্রস্তাব পাওয়া যায়। পাশাপাশি ভোলার গ্যাস সিরিলন্ডারে করে নৌপথে বার্জের মাধ্যমে পরিবহন করে ঢাকার শিল্প প্রতিষ্ঠানে সরবরাহের জন্য ১টি প্রতিষ্ঠান আবেদন করে।

সূত্র জানায়, উদ্যোক্তা শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রস্তাবের তুলনামূলক বিবরণী পর্যালোচনা কওে দেখা যায় যে, দ্রুততম সময়ে গ্যাস কম্প্রেসড করে সরবরাহ করার লক্ষ্যে অবকাঠামো স্থাপনের জমিসহ প্রয়োজনীয় অন্যান্য যন্ত্রপাতির সক্ষমতা শুধুমাত্র ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিং স্টেশন লিমিটেড-এর রয়েছে।

সূত্র জানায়, এ অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিং স্টেশন লিমিটেড-এর বিদ্যমান সক্ষমতা বিবেচনায় ভোলার উদ্বৃত্ত গ্যাসের সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করতে এবং দ্রুততম সময়ে গ্যাস ঘাটতি শিল্প কারখানায় গ্যাস সরবরাহের মাধ্যমে দেশের অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী (প্রধানমন্ত্রী) নীতিগত অনুমোদন দিয়েছেন।

সূত্র জানায়, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি দ্রুত সরবরাহ বৃদ্ধি (বিশেষ বিধান) আইন, ২০১০ (২০২১ সনে সর্বশেষ সংশোধনসহ) অনুসরণ করে ভোলা এলাকার উদ্বৃত্ত গ্যাস থেকে সুন্দরবন গ্যাস কোম্পানি লিমিটেড (এসজিসিএল)-এর তত্ত্বাবধানে ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিং স্টেশন লিমিটেড-এর মাধ্যমে প্রাথমিকভাবে ৫ এমএমসিএফডি ও পরবর্তীতে ২০ এমএমসিএফডি গ্যাস কম্প্রেসড করে মাদার-ডটার পদ্ধতিতে ক্যাসকেড সিলিন্ডারে পরিবহন করে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড-এর আওতাধীন এলাকার গ্রাহক শিল্প প্রতিষ্ঠানে সরবরাহ করা হবে।

ভোলা থেকে কম্প্রেসড গ্যাস পরিবহন করে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (টিজিটিডিসিএল)-এর আওতায় গ্যাস ঘাটতি রয়েছে এমন শিল্প প্রতিষ্ঠানে সরবরাহের জন্য ভোক্তা পর্যায়ে উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠানের প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম পরবে ৩০.৫০ টাকা এবং ভোক্তা পর্যায়ে (গ্রাহক শিল্প প্রতিষ্ঠানে) প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম পড়বে ৪৭.৬০ টাকা। সরকারিভাবে প্রযোজ্য বিধি-বিধান অনুসারে উদ্যোক্তার ক্ষেত্রে ভ্যাট-ট্যাক্স প্রযোজ্য হবে।

এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাবে অনুমোদনের জন্য অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভপতিত্বে অনুষ্ঠেয় অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির পরবর্তী সভায় উপস্থাপন করা হবে বলে সূত্র জানিয়েছে।

/হাসনাত/সাইফ/

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ