ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৬ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ৩ ১৪৩১

এআইআইবি জলবায়ু ও অবকাঠামোগত খাতে সহায়তা দিতে আগ্রহী: অর্থমন্ত্রী

বিশেষ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:০০, ৫ মার্চ ২০২৪   আপডেট: ১৫:০২, ৫ মার্চ ২০২৪
এআইআইবি জলবায়ু ও অবকাঠামোগত খাতে সহায়তা দিতে আগ্রহী: অর্থমন্ত্রী

ফাইল ছবি

অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী বলেছেন, এশিয়ান ইনফ্রাস্ট্রাকচার ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংক (এআইআইবি) জলবায়ু ও অবকাঠামোগত খাতে সহায়তা দিতে আগ্রহী। আমরা খুবই খুশি। এআইআইবি আমাদের খুব কাছের উন্নয়ন সহযোগী। তারা আমাদের সহযোগিতা করতে চাচ্ছে।

মঙ্গলবার (৫ মার্চ) বেলা সাড়ে ১১টায় সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন এআইআইবির ভারপ্রাপ্ত ভাইস চেয়ারম্যান রজত মিশ্র। সাক্ষাৎ শেষে মন্ত্রী সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন। এ সময় অর্থসচিব মো. খায়েরুজ্জামান মজুমদার উপস্থিত ছিলেন।

নতুন কোনো খাতের উন্নয়নে সহযোগিতা চেয়েছেন কি না-এমন প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, জলবায়ু ও অবকাঠামোগত খাতে তারা যুক্ত হতে চান। তারা বলেছেন, যেটাই হোক আপনারা বের করুন আমরা সহযোগিতা করার চেষ্টা করবো। তারা পলিসি নিয়েও কাজ করছে, একইসঙ্গে প্রয়োজনের বিষয়টিও আসছে। ওনারা একই সঙ্গে দুইটা কনসিডার করবেন। এটা কিছুটা নতুন, আমরা নতুন কোন খাতে তাদের সহযোগিতা নেবো সেটা জানাবো।

এ সময় অর্থ সচিব মো. খায়েরুজ্জামান মজুমদার বলেন, অবকাঠামোগত খাতে তারা বেশি যুক্ত হতে চান। আমরা সে ব্যাপারে সম্মত। আমরা বাজেট সহায়তা হিসেবে আরও সহযোগিতা দেওয়ার অনুরোধ করেছি। তারা বলেছেন, এটাই তাদের প্রথম বৈশ্বিক জলবায়ুতে অর্থায়ন।

পরে এশিয়ান ইনফ্রাস্ট্রাকচার ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংকের (এআইআইবি) ভারপ্রাপ্ত ভাইস চেয়ারম্যান রজত মিশ্র বলেন, আমরা বাংলাদেশের উন্নয়ন সহযোগী হতে চাই। কারণ দেশটির অবকাঠামোর ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। মেট্রোরেলসহ নানান ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সফলতা মুগ্ধ হয়েছি, সেটি হয়তো সামনে আরও সমৃদ্ধ হবে। আমরা কিছু ঝুঁকিপূর্ণ এরিয়াতে কাজ করি, যেমন জলবায়ুতে অর্থায়ন। আমরা ক্লাইমেট ফাইন্যান্সের জন্য পলিসি তৈরি শুরু করেছি। আমরা বাংলাদেশে একটি প্রকল্প নিতে চাই যেটি হবে বৈশ্বিক জলবায়ুতে এআইআইবির প্রথম অর্থায়ন। তাই এটি আমাদের জন্য মূল্যবান অংশীদারত্ব।

এআইআইবি ১৭ প্রকল্পে ৩.৩৫ বিলিয়ন ডলার অর্থায়ন করেছে, সেটি সামনে বাড়ানোর পরিকল্পনা আছে কি না- জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমাদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে কোনো লিমিট নেই, আমরা অবশ্যই এটি বাড়ানোর চেষ্টা করবো। আমরা পলিসি গ্রহণের জন্য কাজ করছি, একই সঙ্গে আমরা অন্যান্য প্রকল্পগুলো নিয়েও কাজ করছি।

/হাসনাত/সাইফ/

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়