ঢাকা     সোমবার   ২২ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ৯ ১৪৩১

‘বাংলাদেশ উন্নত পাট বীজ উৎপাদনে স্বনির্ভর হবে’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:১৫, ৫ মার্চ ২০২৪   আপডেট: ১৬:১৬, ৫ মার্চ ২০২৪
‘বাংলাদেশ উন্নত পাট বীজ উৎপাদনে স্বনির্ভর হবে’

বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, বাংলাদেশকে উন্নত পাট বীজ উৎপাদনে স্বনির্ভর করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। প্রয়োজনীয় পাট বীজ সংগ্রহে আমদানিনির্ভরতা আর থাকবে না।

মঙ্গলবার (৫ মার্চ) সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

পাট মৌসুমে হাট-বাজারে নজরদারি জোরদার এবং নিয়মবহির্ভূত মজুত রোধে নিয়মিত তদারকি করা হচ্ছে, জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, এতে মিল মালিকরা নিরবচ্ছিন্নভাবে পাট সংগ্রহ করতে পারছেন, যা রপ্তানি আয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হচ্ছে। চাষিরা পাটের সঠিক মূল্য পাচ্ছেন। জুট ডাইভারসিফিকেশন প্রমোশন সেন্টারের (জেডিপিসি) মাধ্যমে পাটপণ্যের ব্যবহার বৃদ্ধির পাশাপাশি সরকার বহুমুখী পাটজাত পণ্যের উদ্ভাবন ও ব্যবহার সম্প্রসারণে গুরুত্ব আরোপ করেছে। 

পাটমন্ত্রী বলেন, পলিথিনের ব্যবহার বন্ধ করে পাটজাত পণ্যের ব্যবহার বাড়াতে আমরা পাটের ব্যাগ ব্যবহার এবং সোনালী ব্যাগ নামের একটা পাটজাত ব্যাগ তৈরি করেছি৷ আমরা গতকাল ডিসি সম্মেলনে ডিসিদেরও বলেছি। পবিত্র মাহে রমজানের কারণে আমরা এই মুহূর্তে বাজারে কোনো ধরনের খোঁচা দিতে চাইনি। আমরা বাজারকে অস্থিতিশীল করতে চাই না। সে কারণে আমরা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ডিসিদের প্রস্তুত থাকার কথা বলেছি। রমজানে যেসব মিলার বস্তা ব্যবহার করে, তাদের এনে সভা ও কাউন্সেলিং করার কথা বলা হয়েছে। রোজার পরে এ বিষয়ে আমরা ব্যাপক অভিযান চালাবো বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, ইতোমধ্যে পরিবেশমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সব মন্ত্রী মিলে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে, পলিথিনের ব্যবহার বন্ধে একটি যৌথ সভা করা হবে। সেই যৌথ সভায় আমরা একটি রোডম্যাপ করব। সেই রোডম্যাপ অনুসারে আমরা পলিথিনের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করব।

তিনি আরও বলেন, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় ‘পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন, ২০১০’ এর আওতায় ১৯টি পণ্যে পাটের মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার বাস্তবায়ন করছে। এ আইনটি প্রয়োগের ফলে আন্তর্জাতিক বাজারের পাশাপাশি অভ্যন্তরীণ বাজারে প্রতি বছর পাটজাত পণ্যের চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

মন্ত্রী বলেন, পাট বীজের আমদানিনির্ভরতা হ্রাস করে পাট বীজ উৎপাদনে চাষিদের আত্মনির্ভরশীল করে গড়ে তোলা, পাটচাষের আধুনিক কলাকৌশল সম্পর্কে চাষিদের প্রশিক্ষণ দিতে পাট অধিদপ্তরের অধীন ‘উন্নত প্রযুক্তিনির্ভর পাট ও পাট বীজ উৎপাদন এবং সম্প্রসারণ’ শীর্ষক প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এ প্রকল্পটি দেশের ৪৫টি জেলার ২২৮টি উপজেলায় বাস্তবায়িত হচ্ছে। আশা করি, বাংলাদেশ উন্নত পাট বীজ উৎপাদনে স্বনির্ভর হবে। প্রয়োজনীয় পাট বীজ সংগ্রহে আমদানিনির্ভরতা আর থাকবে না।

এএএম/রফিক

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়