ঢাকা     শনিবার   ১৮ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ৪ ১৪৩১

চিড়িয়াখানায় তিল ধারণের ঠাঁই নেই

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:০৩, ১২ এপ্রিল ২০২৪  
চিড়িয়াখানায় তিল ধারণের ঠাঁই নেই

রাজধানীর অন্যতম বিনোদনকেন্দ্র মিরপুর জাতীয় চিড়িয়াখানা। ঈদুল ফিতরের দ্বিতীয় দিনে দর্শনার্থীদের উপচেপড়া ভিড় এখানে। তিল ধারণের ঠাঁই নেই। উৎসবে রূপ নিয়েছে গোটা চিড়িয়াখানা।

শুক্রবার (১২ এপ্রিল) দুপুর গড়াতেই অসংখ্য মানুষের ভিড়ে জমে ওঠে চিড়িয়াখানা প্রাঙ্গণ। বেলা গড়াতে গড়াতে লোকে লোকারণ্য হয়ে পড়েছে পুরো চিড়িয়াখানা প্রাঙ্গণ। দেশের নানা প্রান্ত থেকে এসেছেন অগণিত দর্শনার্থী। অধিকাংশই এসেছেন পরিবারসহ। আবার কেউ এসেছেন বন্ধু-বান্ধবের সঙ্গে।

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের তথ্যমতে, ঈদের দিন চিড়িয়াখানায় দর্শনার্থীর পরিমাণ ছিল প্রায় এক লাখ। আজ ঈদের দ্বিতীয় দিনে দর্শনার্থীর সংখ্যা ২ লাখেরও বেশি।

চিড়িয়াখানায় অবস্থিত বিভিন্ন পশুর খাঁচার সামনে এসে তারা ভিড় করছে। শিশুরা অভিভাবকদের কাছে পশু-পাখিদের নাম জানতে চাচ্ছে। অভিভাবকরাও তাদের সন্তানদের আগ্রহ নিয়ে বিভিন্ন পশুর খাঁচার সামনে নিয়ে যাচ্ছেন। বিভিন্ন প্রাণীর খাঁচার সামনে দর্শনার্থীদের ভিড় করতে দেখা যায়। বাঘ, ভাল্লুক, সিংহ, হরিণ, বানর, জলহস্তী, জিরাফসহ বেশিরভাগ পশু-পাখির শেডের সামনে ছিল দর্শনার্থীরা‌।

বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) ঈদের দিন সকাল সাড়ে ১০টা থেকে ১১টার মধ্যে জাতীয় চিড়িয়াখানায় হাতির আঘাতে এক কিশোর নিহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানায়, ঈদের দিন সকালে চিড়িয়াখানায় মানুষের প্রচণ্ড ভিড় ছিল। প্রতিদিনের মতোই হাতি ও ফুটবলের খেলা চলছিল। কিছু সময় খেলাধুলার পর হঠাৎ করে হাতিটি বিগড়ে গিয়ে সামনে একটি কিশোরকে শুঁড় দিয়ে ধরে আছাড় মারে। এতে কিশোরটি মারা যায়। সূত্রটি আরও জানায়, নিহত কিশোর হাতিটির মাহুতের সন্তান।

হাতির আঘাতে মাহুতের ছেলের মৃত্যু বিষয় জানতে চাইলে চিড়িয়াখানা পরিচালক রফিকুল ইসলাম বলেন, এই ঘটনায় প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর থেকে এক সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ওই কমিটির সদস্য বিসিএস লাইভস্টক একাডেমি পরিচালক মো. শাহজামান খান।  

চিড়িয়াখানা পরিচালক বলেন, নতুন করে চিড়িয়াখানায় দর্শনার্থীদের সুরক্ষার জন্য কয়েকটি পশুর খাঁচার উচ্চতা বাড়ানো হয়েছে এবং কয়েকটি পশুর পুরানো খাঁচার সংস্কার করা হয়েছে। গত বছর হায়নার আক্রমণে এক শিশুর হাত হারায়। তাই এই বছর আরও বেশি নিরাপত্তার বিষয়টি দেখছি। তবে আগত দর্শনার্থীদেরও সচেতন হতে হবে। এছাড়া দর্শনার্থীদের নিরাপত্তার জন্য আনসার পুলিশ, টুরিস্ট পুলিশ ও র‍্যাব দায়িত্ব পালন করছে।

ঢাকা/হাসান/এনএইচ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়