ঢাকা     বুধবার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||  ফাল্গুন ১৫ ১৪৩০

এবার সুখকর স্মৃতি নিয়ে ফেরার আশা

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:৫৬, ১০ ডিসেম্বর ২০২৩   আপডেট: ১২:০৫, ১০ ডিসেম্বর ২০২৩
এবার সুখকর স্মৃতি নিয়ে ফেরার আশা

কারও পৌষ মাস তো কারও সর্বনাশ! কাঁধের চোট এনামুল হক বিজয়ের ক্যারিয়ারের মোড় এমনভাবে ঘুরিয়ে দিয়েছিল যে, ৮ বছর পেরিয়ে গেলেও পুরোনো অবস্থানে ফিরতে পারেননি। এমন না যে সুযোগ পাননি। পেয়েছেন কিন্তু কাজে লাগাতে পারেননি। পুরনো আস্থা অর্জন করতে পারেননি।

২০১৫ সালের বিশ্বকাপ আসরে এনামুল প্রথমবার দলে ছিলেন। সেবার স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে তৃতীয় ম্যাচে কাঁধের চোটে ছিটকে যান তিনি। সৌম্য সরকার তার ওপেনিং পজিশনে জায়গা নিয়ে থিতু হয়ে যান। এনামুলের জন্য ধীরে ধীরে বন্ধ হতে থাকে জাতীয় দলের দরজা।

৮ বছর আগে নিউ জিল্যান্ড থেকে দুঃস্মৃতি নিয়ে ফিরেছিলেন ডানহাতি ওপেনার। লম্বা সময় পর সেই নিউ জিল্যান্ডে আবার গেলেন তিনি। এ সময়ে ক্যারিয়ারে নানা উত্থান-পতন, একাধিক বাঁক বদল। কিন্তু এনামুলের পায়ের নিচের জমিন শক্ত হয় না।

ঘরোয়া ক্রিকেটে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স, রেকর্ডের মালা পড়ে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় জাতীয় দলে। কিন্তু সেখানে প্রত্যাশা মেটাতে না পারায় এনামুলকে আবার বাদ পড়তে হয়। সবশেষ বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচে তাকে সাকিব আল হাসানের জায়গায় উড়িয়ে নেওয়া হয়েছিল ভারতে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে তাকে খেলানো হয়নি।

এবার জাতীয় দল নিউ জিল্যান্ড গেছে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে। এনামুলকেও উড়িয়ে নিয়ে গেছে টিম ম্যানেজমেন্ট। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে তার ম্যাচ খেলার সম্ভাবনাও আছে। ৮ বছর আগে যে নিউ জিল্যান্ড তাকে দুঃস্মৃতিতে ভাসিয়েছিল, এবার সেখান থেকে সুখস্মৃতি নিয়ে আসার প্রত্যাশায়।

‘চেষ্টা করবো ভালো খেলার যদি সুযোগ আসে। দলের সঙ্গে আছি। ভালো লাগছে যে দলে আছি। নিউ জিল্যান্ডে আমার একটা ইনজুরি আছে। ২০১৫ সালে ইনজুরিতে পড়েছিলাম। চেষ্টা করবো এবার যেন ভালো সুখকর স্মৃতি নিয়ে ফিরতে পারি।’

তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খেলতে জাতীয় দলের প্রথম বহর শনিবার রাতে নিউ জিল্যান্ডের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছে। ১০-১২ জনের বহরে রয়েছেন এনামুল, সৌম্য, লিটন, মোস্তাফিজ, আফিফ, রাকিবুলরা। মূলত যারা নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট স্কোয়াডে ছিলেন না তারাই তাসমান পাড়ের দেশটিতে উড়াল দিয়েছেন।

সফরের জন্য দুই ফরম্যাটের স্কোয়াডে ডাক পেয়েছেন সৌম্য সরকার ও আফিফ হোসেন ধ্রুব। ওয়ানডেতে নতুন মুখ লেগ স্পিনার রিশাদ হোসেন ও বাঁহাতি স্পিনার রাকিবুল হাসান। টি-টোয়েন্টি দলেও রিশাদকে রাখা হয়েছে। ফেরানো হয়েছে তানভীর ইসলামকে। দুই ফরম্যাটে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবেন নাজমুল হোসেন শান্ত। তার ডেপুটি করা হয়েছে মেহেদী হাসান মিরাজকে।

১৭ ডিসেম্বর প্রথম ওয়ানডে হবে ডানেডিনে। পরের দুটি ওয়ানডে ২০ ও ২৩ ডিসেম্বর যথাক্রমে নেলসন ও নেপিয়ারে। তিনটি ওয়ানডে শুরু হবে বাংলাদেশ সময় ভোর ৪টায়।

তিনটি টি-টোয়েন্টি হবে যথাক্রমে ২৭, ২৯ ও ৩১ ডিসেম্বর। প্রথম ম্যাচটি নেপিয়ারে। পরের দুটি মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে। প্রথম দুই টি-টোয়েন্টি শুরু হবে দুপুর ১টা ১০ মিনিটে। শেষ ম্যাচ ভোর ৬টায়।

ইয়াসিন/আমিনুল

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়