ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৩ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ১০ ১৪৩১

তিস্তার পানি বিপৎসীমার ২৫ সেন্টিমিটার উপরে

নীলফামারী প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:০৬, ১ আগস্ট ২০২২   আপডেট: ২০:২৯, ১ আগস্ট ২০২২
তিস্তার পানি বিপৎসীমার ২৫ সেন্টিমিটার উপরে

ভারী বর্ষণ ও উজানের ঢলে তিস্তা নদীর পানি হু হু করে বাড়ছে। সোমবার (১ আগস্ট) সন্ধ্যা ৬টায় নীলফামারীর ডালিয়া পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার ২৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধির ফলে চর ও নিম্নাঞ্চলে বসবাসকারী প্রায় ৬ হাজার পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। এর আগে, বেলা ৩টার দিকে পানি বিপৎসীমার ১০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবহিত হয়। তবে সকাল থেকে পানি বিপৎসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল।

ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আসফাউদ দৌলা বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘উজানের ঢল ও ভারী বর্ষণ তিস্তার পানি বিপদসীমার ২৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।’

এদিকে, তিস্তার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় জেলার ডিমলা উপজেলার টেপাখড়িবাড়ি ইউনিয়নের বাম তীরের চরখড়িবাড়ি এলাকার ১০০ মিটার বাঁধ বিধ্বস্ত হয়েছে। এতে তলিয়ে গেছে প্রায় দেড় শতাধিক বিঘা ফসলের জমি।

স্থানীয়রা জানান, প্রায় পাঁচ বছর আগে নিজেরা উদ্যোগ নিয়ে তৈরি করেছিলেন বাঁধটি। এটি টিকিয়ে রাখার জন্য স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ময়নুল হকও অনেক চেষ্টা করেছিলেন। তবে শেষ রক্ষা হলো না।

তারা অভিযোগ করে বলেন, স্থানীয় প্রভাবশালী একটি মহল কয়েকদিন ধরে ওই বাঁধের পাশ থেকে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন করে আসছিল। এতেই বাঁধটি বিধ্বস্ত হয়ে গেছে। দ্রুত পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় নদী তীরবর্তী ২২টি চর প্লাবিত হতে শুরু করেছে।

টেপাখড়িবাড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মঈনুল হক বলেন, ‘উজানের ঢল ও ভারী বর্ষণে নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বালির বাঁধটি বিধ্বস্ত হয়ে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হতে শুরু করেছে। পানিবন্দী হয়ে পড়েছে হাজারো পরিবার।’

পূর্বছাতনাই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ খান বলেন, ‘নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় খালিশাচাঁপানী এলাকায় ভাঙন দেখা দিয়েছে। এতে মানুষজন আতঙ্কিত হয়ে পড়ছে।’

সিথুন/কেআই

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়