ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৫ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ১১ ১৪৩১

‘ট্রানজিট সমস্যায় চালু হচ্ছে না ভুটানের সঙ্গে আমদানি-রপ্তানি’ 

শেরপুর প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৪০, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩  
‘ট্রানজিট সমস্যায় চালু হচ্ছে না ভুটানের সঙ্গে আমদানি-রপ্তানি’ 

ভুটানের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে স্থানীয় আমদানি-রপ্তানিকারকদের বৈঠক

সার্কভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ ও ভুটানের ভৌগলিক অবস্থান কাছাকাছি হলেও বাণিজ্যিক সম্পর্ক এগুচ্ছে না ভারতের ট্রানজিট সমস্যার কারণে। ইতোমধ্যে ভারতের সঙ্গে ভুটান একাধিক দফায় আলোচনা করে ট্রানজিটের সমাধানের কাছাকাছিতে পৌঁছেছে। 

আমদানি ও রপ্তানি এগিয়ে নেওয়ার জন্য সোমবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে শেরপুর সীমান্তের নাকুগাঁও স্থলবন্দর পরিদর্শন করেছেন ভুটানের রাষ্ট্রদূত রিচেন কুইনস্টুল। সেখানে তিনি এ কথা বলেন।   

এ সময় ভুটানের রাষ্ট্রদূত বলেন, শেরপুরের নাকুগাঁও স্থলবন্দরসহ ময়মনসিংহের গোবরাকুড়া ও করাইতলী স্থলবন্দর দিয়ে ভুটান বাংলাদেশ থেকে গার্মেন্টসপণ্য নিতে চুক্তি করেছে বাংলাদেশের সঙ্গে। ভুটানের সঙ্গে বাংলাদেশের বৈরিতা নেই। শুধু ভারতের ওপর দিয়ে ট্রানজিট চালুর চুক্তি ভারত অনুমোদন করলে গার্মেন্টসসহ অন্যান্য পণ্য ভুটান আমদানি করতে পারবে। 

এ সময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কাস্টমস কমিশনার (ঢাকা উত্তর) ওয়াহিদা রহমান চৌধুরী, ভূটানের বাণিজ্যিক মন্ত্রণালয়ের কমিশনার কেনচো থাইলো, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মনিরুল ইসলাম প্রমুখ।

কমিশনার ওয়াহিদা রহমান চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশের ৩টি এলসি পয়েন্ট দিয়ে ভুটান বাংলাদেশে পণ্য আমদানি ও রপ্তানি করবে। বৃহত্তর ময়মনসিংহ এলাকার এলসি পয়েন্টগুলো হলো নাকুগাঁও, গোবরাকুড়া ও করাইতলী। ভুটান বাংলাদেশে থেকে প্রধান পণ্য হিসেবে তৈরিপোশাক আমদানি করতে চায়। এর বিপরীতে পাথর, ফলসহ তাদের তৈরিপণ্য রপ্তানি করতে চায়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সর্বতভাবে নির্দেশনা দিয়েছেন, যেন নির্বিঘ্নে এই কার্যক্রম করা যায়। ইতোমধ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে চুক্তিও সম্পন্ন হয়েছে। তবে তালিকাভুক্ত ১৯টি পণ্যের বাইরেও পর্যায়ক্রমে আরও পণ্য রপ্তানি বাড়বে। 

পরিদর্শন শেষে রাষ্ট্রদূত কাস্টমস হলরুমে স্থানীয় আমদানি রপ্তানিকারক ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গে আলোচনায় অংশ নেন। পরে দুই দেশের মধ্যকার নানা সমস্যা নিয়ে আলোচনা করা হয়। এ সময় আমদানি-রপ্তানিকারক সমিতির সভাপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল বাংলাদেশ থেকে ৩টি পণ্য আমদানি করার জন্য রাষ্ট্রদূতকে অনুরোধ করেন। পণ্যগুলো হলো, শুঁটকি মাছ, প্লাস্টিকপণ্য ও তৈরিপোশাক। এই বিষয়ে সংগঠনের পক্ষ থেকে লিখিত আবেদনও দেওয়া হয়।

এর আগে ২০১৯ সালের ৩ মার্চ বাংলাদেশে নিযুক্ত ভুটানের রাষ্ট্র্রদূত সোনাম এল রাবগী শেরপুরের নালিতাবাড়ীর নাকুগাঁও স্থলবন্দর পরিদর্শন করেন। তখন তিনি স্থলবন্দরে ব্যবসা-বাণিজ্যের জন্য কী ধরনের সম্ভাবনা আছে তা নিয়ে আলোচনা ও সরেজমিন পরিদর্শন করেন।
 

তারিকুল/বকুল 

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়