ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৮ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪৩১

নিজের খামার থেকে মাংস বিক্রি করে স্বাবলম্বী

নড়াইল প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:২৮, ১২ জানুয়ারি ২০২৪   আপডেট: ২০:২৯, ১২ জানুয়ারি ২০২৪
নিজের খামার থেকে মাংস বিক্রি করে স্বাবলম্বী

নিজের খামারে প্রাকৃতিক উপায়ে ষাঁড় মোটাতাজাকরণের মাধ্যমে স্বাবলম্বী হয়েছেন মোহাম্মদ আলী খান। তিনি নড়াইল পৌর এলাকার ডুমুরতলার বাসিন্দা। তার এই ব্যতিক্রমী উদ্যোগের পেছনে রয়েছে ভিন্নরকম গল্প।

শুক্রবার (১২জানুয়ারি) সকালে মোহাম্মদ আলী খান বলেন, ২০১০ সালে বেসরকারি সংস্থা ব্র্যাক থেকে ৫০হাজার টাকা ঋণ নিয়ে গরু মোটাতাজাকরণ শুরু করি। প্রতিবছর কোরবানির হাটে গরু বিক্রি করতাম। পাঁচ বছর আগে ঢাকায় কোরবানির হাটে গরু নিয়ে বেশ লোকসানে পড়ি। এরপর সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে কোরবানির হাটে আর গরু বিক্রি করিনি। নিজের খামারে গরু বড় করে জবাই দিয়ে মাংস ৬৫০ টাকা করে ন্যায্যমূল্যে খুচরা এবং পাইকারি দরে নড়াইল শহরের ১৫টি হোটেলে বিক্রি করে আসছি। সেই থেকে গরুর মাংস বিক্রি করে আর লোকসানে পড়তে হয়নি।

মোহাম্মদ আলী আরও বলেন, তিন ছেলে ও স্ত্রী নিয়ে সুখেই আছি। অথচ একসময় নিদারুণ কষ্টে দিন কেটেছে। প্রথমে দু’টি গরু কিনে মোটাতাজাকরণ শুরু করি। সেই দু’টি গরু বিক্রি করে লাভবান হই। পরবর্তীতে আরও ঋণ নিয়ে গরুর সংখ্যা বাড়াই। একসময় খামারে গরুর সংখ্যা হয় ২০টি। নিয়মিত গরু লালন-পালন করে যাচ্ছি। মাংস ক্রেতা শহিদুল ইসলাম বলেন, মোহাম্মদ আলী খানের গরুর খামার থেকে সরবরাহকৃত মাংসের বেশ সুনাম রয়েছে। তিনি ভালো মাংস দেওয়ার চেষ্টা করেন।

শরিফুল/ফয়সাল

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়