ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৩ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ১০ ১৪৩১

ছুটিতে এসে ভাই-ভাবিকে পেটালেন পুলিশের এএসআই!

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:০৭, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  
ছুটিতে এসে ভাই-ভাবিকে পেটালেন পুলিশের এএসআই!

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলায় নিজ বাড়িতে ছুটিতে এসে ভাই ও ভাবিকে পেটানোর অভিযোগ উঠেছে পুলিশের এক এএসআই’র বিরুদ্ধে। গত কয়েক বছরের পারিবারিক বিরোধের জের ধরে এই ঘটনা ঘটিয়েছেন কুমিল্লার লালমাই থানার এএসআই মো. জাহাঙ্গীর আলম— এমনটাই অভিযোগ।

এই ঘটনায় জাহাঙ্গীরের ভাই আলমগীর হোসেন (৩৬) ও ভাবি রাশেদা আক্তার (৩২) আহত হন। গত বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে তারা বাড়িতে ফিরে যান।

জানা যায়, এএসআই জাহাঙ্গীর পাঁচ দিনের ছুটিতে বাড়বকুণ্ড ইউনিয়নের হাতিলোটা গ্রামে আসেন গত ১৮ ফেব্রুয়ারি। ২১ ফেব্রুয়ারি বিকেলে পানির সংযোগের জের ধরে জাহাঙ্গীর সীতাকুণ্ড থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. নাসির উদ্দিন ভূঁইয়াকে তার পৈত্রিক বাড়িতে ডেকে আনেন। সিভিল ড্রেসে থাকা নাসির ও সঙ্গীয় ফোর্স আলমগীর আর জাহাঙ্গীরকে ‘সমঝোতা করতে’ বলে চলে যান। 

আহত রাশেদা আক্তার অভিযোগ করে বলেন, দুই পুলিশ সদস্য চলে যাওয়ার পরপরই জাহাঙ্গীর আমার স্বামীকে লাঠিসোটা নিয়ে আক্রমণ করে। আমি বাঁচাতে গেলে আমাকেও মাথায় ও হাতে আঘাত করে। এরপর জোর জবরদস্তি মাটিতে ফেলে দিয়ে ফেলে আবারও আলমগীরকে মারতে থাকে। এতে আমরা (স্বামী-স্ত্রী) দুজনই আহত হই।

জানতে চাইলে এ ব্যাপারে অভিযুক্ত কুমিল্লার লালমাই থানার এএসআই জাহাঙ্গীরের জানান, তার বড় ভাই আলমগীর মাদকাসক্ত। যৌথ বাসভবনে বিভিন্ন সময় ‘মাদকের আসর’ বসানোয় তার সঙ্গে পারিবারিক কলহ বাধে। ঘটনার দিন (২১ ফেব্রুয়ারি) পানির মোটর লাইনের সংযোগ নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে বাবা আবুল বাশারকে ধাক্কা দেওয়ায় বড় ভাই আলমগীরকে তিনি মারধরে বাধ্য হন বলে জানান এএসআই জাহাঙ্গীর।

এদিকে, এ ঘটনায় আলমগীর ও রাশেদা বৃহস্পতিবার ইউনিয়নে অভিযোগ নিয়ে গেলে বাড়বকুণ্ড ইউপি চেয়ারম্যান উভয় পক্ষকে আগামী ৩ মার্চ বৈঠকে ডাকেন। 

ইউপি চেয়ারম্যান ছাদাকাত উল্লাহ মিয়াজী বৈঠকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মূলত তাদের পারিবারিক বিরোধ অনেক দিনের। এ ব্যাপারে আগামী ৩ মার্চ ইউনিয়ন পরিষদে বৈঠক ডাকা হয়েছে। 

এ ব্যাপারে লালমাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল্লাহ আল মাহফুজ বলেন, আমার জানামতে এএসআই জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ নেই। তারপরও বিষয়টি দেখার দায়িত্ব সীতাকুণ্ড থানা প্রশাসনের। 

রেজাউল/এনএইচ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়