ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৬ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ৩ ১৪৩১

টাঙ্গাইলে ধানের পোকা নিধনে পার্চিং উৎসব

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:১৯, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  
টাঙ্গাইলে ধানের পোকা নিধনে পার্চিং উৎসব

‘ধানের জমিতে ডাল পুতুন, পোকার আক্রমণ রোধ করুন’ স্লোগানে বিষ প্রয়োগ ছাড়া প্রাকৃতিকভাবে ধানের পোকা নিধন পদ্ধতি কৃষকদের শেখাতে টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে পার্চিং উৎসব পালন করেছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।

মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ফারহানা মামুন কালিহাতী পৌরসভা ব্লকের ঘুনী গ্রামের কৃষক রতন চন্দ্র নাথের বোরো (ব্রি ধান- ২৯ ও ৮৯) ধান খেতে এই উৎসবের উদ্বোধন করেন। এসময় উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. মাসুদ রানাসহ কৃষকগণ উপস্থিত ছিলেন।

কৃষক নুরুল ইসলাম ও রতন চন্দ্র নাথ জানান, বর্তমানে ধান গাছ মোটামুটি বড় হয়েছে। এখন এতে রোগ জীবাণু যাতে না হয় এজন্য কৃষি অফিসের পরামর্শে পার্চিংয়ের ব্যবস্থা করছি। এছাড়া এগুলোতে পাখি বসে কীটপতঙ্গ খেয়ে ফসলকে যাতে সুরক্ষা দেয় এবং সার ও কীটনাশক যেন না দিতে হয় এজন্যই আমরা পার্চিং করতে শুরু করেছি।

কৃষি কর্মকর্তা ফারহানা মামুন বলেন, ঢাকা অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক মো. আহ্সানুল বাসার’র নির্দেশনা মোতাবেক ঢাকা অঞ্চলের ৭টি জেলার ৫৮৯টি ইউনিয়নের ১৮৪০টি ব্লকে একযোগে পার্চিং উৎসব পালিত হয়। তারই ধারাবাহিকতায় উপ-পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ দুলাল উদ্দিনের পরামর্শে কালিহাতী উপজেলার ৪১টি ব্লকে একযোগে এই উৎসব পালিত হয়।

তিনি আরও বলেন, পার্চিং পদ্ধতির মাধ্যমে প্রাকৃতিকভাবে ধানের পোকা নিধন করা যায়। জমিতে পুঁতে রাখা লম্বা গাছের ডাল, বাঁশের খুঁটি বা কঞ্চিতে ফিঙেসহ বিভিন্ন প্রজাতির পাখি বসে। এই পাখিগুলো জমির উপরিভাগের দৃশ্যমান পোকা খেয়ে ফসল সুরক্ষা করে। এতে করে ফসলের উৎপাদন খরচ কমে এবং আর্থিকভাবেও লাভবান হয় কৃষক। আর বিষ প্রয়োগ না করার কারণে পরিবেশ দূষিত হয় না।

কাওছার/ফয়সাল

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়