ঢাকা     মঙ্গলবার   ২১ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ৭ ১৪৩১

বৃষ্টির জন্য কাঁদলেন শত শত মুসল্লি

লালমনিরহাট প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:২৮, ২৩ এপ্রিল ২০২৪   আপডেট: ২৩:০২, ২৩ এপ্রিল ২০২৪
বৃষ্টির জন্য কাঁদলেন শত শত মুসল্লি

লালমনিরহাট জেলা জুড়ে চলা তীব্র দাবদাহে জনজীবন বিপর্যস্ত৷ ওষ্ঠাগত মানুষ ও পশুপাখির প্রাণ৷ হুমকির মুখে ফল ও ফসল। এর পরিত্রাণের জন্য আল্লাহর কাছে বৃষ্টি চেয়ে তওবা, ইস্তিস্কার নামাজ ও দোয়া আদায় করেছেন এলাকাবাসী। এ সময় শত শত মুসল্লি অংশ নেয়। 

মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) দুপুর ১২টায় লালমনিরহাটে হাতীবান্ধা উপজেলার বড়খাতা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ইস্তিস্কার নামাজ আদায় করা হয়। নামাজের ইমামতি ও দোয়া পরিচালনা করেন বড়খাতা নূরানী জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মো. নাজমুল হুদা। হাতীবান্ধা উপজেলার বড়খাতা বাজার ব্যবসায়ী ও ওলামা সমিতির উদ্যোগে এই নামাজ হয়।

সকাল সাড়ে ১০ থেকে বড়খাতা উচ্চ বিদ্যালয়ে মাঠে খোলা আকাশের নিচে প্রথমে মুসল্লিরা পাপ মোচনের জন্য তওবা করেন। পরে টুপি ও পাঞ্জাবি উল্টে সালাতুল ইস্তিস্কার নামাজ ও পরে দোয়া করেন। এ সময় শত শত মুসল্লি আল্লাহ কাছে চোখের পানি ছেড়ে দিয়ে অনাবৃষ্টি থেকে মুক্তির জন্য আল্লাহ কাছে মোনাজাত করেন।

ফকিরপাড়ায় ইউনিয়নের গ্রামের আব্দুস সালাম বলেন, ‘প্রায় এক মাস ধরে এলাকায় বৃষ্টিপাত নেই। শ্যালো মেশিন দিয়ে পানি দিতে অবস্থা খারাপ। প্রচণ্ড দাবদাহে ভুট্টা গাছ পুড়ে যাচ্ছে। পাট ক্ষেতের অবস্থা খুব খারাপ। বৃষ্টির জন্য নামাজ হবে এ কথা শুনে ছুটে এসেছি।’ 

বড়খাতা নূরানী জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মো. নাজমুল হুদা বলেন, ‘অনাবৃষ্টির কারণে বড়খাতা ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন এলাকার মানুষ মিলে ইস্তিস্কার নামাজ আদায় করেছি। দোয়া করেছি, এই এলাকায় রহমতের বৃষ্টি দিয়ে পরিপূর্ণ করে দেন। অনাবৃষ্টির কারণেও ক্ষেত, ফসল, পশুপাখি কষ্টে আছে। এ জন্য যেন আল্লাহতালার রহমতের বৃষ্টি বর্ষণ করেন।’
 

জামাল/বকুল 

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়