ঢাকা     শুক্রবার   ১৪ জুন ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ৩১ ১৪৩১

গাজীপুরে বনের জমি দখল করে স্থাপনা, ৩ কোটি টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৫৯, ১৯ মে ২০২৪   আপডেট: ২০:০৩, ১৯ মে ২০২৪
গাজীপুরে বনের জমি দখল করে স্থাপনা, ৩ কোটি টাকা জরিমানা

ভাওয়াল রিসোর্টের কটেজ

বনের জমি দখল করে স্থাপনা তৈরি এবং পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র ছাড়া প্রতিষ্ঠান চালানোর দায়ে গাজীপুরের ভাওয়াল রিসোর্ট, হোটেল এক্সসহ সাত প্রতিষ্ঠানকে প্রায় ৩ কোটি জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া প্রতিষ্ঠানগুলোকে ছাড়পত্র গ্রহণ না করা পর্যন্ত তাদের কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

রোববার (১৯ মে) বিকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গাজীপুর পরিবেশ অধিদপ্তরের উপপরিচালক নয়ন মিয়া।

পরিবেশ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গাজীপুরে বনের জমির দখল করে পরিবেশ ও পরিবেশত ক্ষতি সাধন করে দীর্ঘদিন ধরে ভাওয়াল রিসোর্ট, হোটেল এক্স ব্যবসা করে আসছে। তারা পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্রও নেয়নি। পরিবেশ অধিদপ্তরের মনিটরিং এন্ড এনফোর্সমেন্ট উইং একটি কমিটি গঠন করে। ওই কমিটি গত কয়েক দিনে গাজীপুরে সাতটি প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করে এবং নানা অনিয়ম পায়। কোনো প্রতিষ্ঠান পরিবেশের ছাড়পত্র দেখাতে পারেনি। সাতটি প্রতিষ্ঠানের মালিকদের গত ১৪ মে ঢাকায় তলব করা হয়। সেখানে শুনানি শেষে গাজীপুর সদর উপজেলার নলজানি এলাকার ভাওয়াল রিসোর্ট এন্ড স্পা সেন্টারকে ২ কোটি ৪০ লাখ টাকা জরিমানা ধার্য করা হয়। এছাড়া রাজেন্দ্রপুর এলাকায় বনের জমিতে অবস্থিত হোটেল এক্সকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা ধার্য করা হয়। 

এছাড়া গাজীপুর সদর উপজেলার ভবনীপুর এলাকা ইউনাইটেড শক্তি লিমিটেডকে ১০ লাখ টাকা, শিরিরচালা এলাকার কোয়ালিটি ইন্টিগ্রেটেড এগ্রো লিমিটেডকে ১০ লাখ টাকা, একই এলাকার মেঘনা এসোসিয়েটস লিমিটেডকে ১০ লাখ টাকা, ভবানীপুর এলাকার সোয়ান নিট কম্পোজিট লিমিটেডকে ১২ লাখ টাকা এবং একই এলাকার হলিকেয়ার ডায়গনস্টিক সেন্টারকে ১০ হাজার টাকা অর্থাৎ মোট ২ কোটি ৯২ কোটি ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

পরিবেশ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানান, গাজীপুরে গত দুই মাস ধরে ওই সাত প্রতিষ্ঠানে পরিবেশ অধিদপ্তর সরেজমিন অভিযান চালায়। পরে তাদের পরিবেশ অধিদপ্তরের ঢাকার কার্যালয়ে শুনানি হয়। গত ১৪ মে ওই জরিমানা ধার্য করা হয়।

উপপরিচালক নয়ন মিয়া জানান, জরিমানার পাশাপাশি এ আদেশ প্রাপ্তির পর থেকে পরিবেশগত ছাড়পত্র গ্রহণ না করা পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর কার্যক্রম বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

পরিবেশ রক্ষায় পরিবেশ অধিদপ্তরের এ ধরনের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

রেজাউল/বকুল

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ