ঢাকা     বুধবার   ২৯ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪৩১

মাশরুম চাষে সফল কাইয়ূম 

কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:৫৮, ২০ মার্চ ২০২৪  
মাশরুম চাষে সফল কাইয়ূম 

ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের বাস্তা ইউনিয়নের দরিগাও এলাকায় মাশরুম চাষ করে সফলতা পেয়েছেন তরুণ উদ্যোক্তা মো. কাইয়ুম। প্রায় পাঁচ বছর আগে মাশরুম চাষ সম্পর্কে অনলাইনের মাধ্যমে জানতে পারেন।

কাইয়ুম বলেন, লেখাপড়ার পাশাপাশি আত্মকর্মসংস্থানের লক্ষ্যে অনেকটা নিজের শখের বসে গড়ে তোলা মাশরুম চাষে সফলতা পেয়েছি৷ বেকারত্ব থেকে মুক্তির প্রত্যয় নিয়ে মাসরুম চাষ শুরু করি।

বর্তমানে কাইয়ুমের খামারে ৮০০টির অধিক মাশরুমের স্পন প্যাকেট রয়েছে। এর থেকে তিনি প্রায় ৪০০-৫০০ কেজির মতো মাশরুম উত্তোলনের লক্ষমাত্রা নিয়েছেন।

তিনি জানান, দুই মাস আগে চাষ শুরু করার প্রায় এক মাস পর থেকে ফলন দেওয়া শুরু হয়। প্রতি প্যাকেট থেকে এক মাস অনবরত ফলন পাওয়া যায়। খামারে তিন প্রজাতির মাশরুম রয়েছে।

কাইয়ুম প্রতিদিন ২০-৩০ কেজি করে মাশরুম পান। প্রতি কেজি মাশরুম ২৫০-৩০০ টাকা ধরে পাইকারি বিক্রি হয়। এছাড়া ড্রাই মাশরুম বা রোদে শুকালে প্রতি কেজি ১৫০০-২০০০ টাকা দরে বিক্রি করা যায়। তার দাবি, খুব সহজে মাশরুম চাষ করা যায়। এই খামার থেকে প্রতি মাসে মাশরুম চাষের মাধ্যমে তিনি ৬০ থেকে ৭০ হাজার টাকা আয় করেন।

কেরানীগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মহুয়া শারমিন মুনমুন বলেন, মাশরুম ‘গরীবের মাংস’ হিসেবে খ্যাত। এটি খেতে সুস্বাদু। এটি ব্যাপক চাহিদাসম্পন্ন একটি সবজি জাতীয় ফসল, যা বর্তমানে অনেকেই চাষ করছেন। বিভিন্ন পুষ্টি উপাদানে সমৃদ্ধ এবং স্বাদ ভালো হওয়ায় এটি মানুষের কাছে সমাদৃত হয়েছে। বর্তমান বাজারে দিন দিন মাশরুমের চাহিদা বাড়ছে। তাই বাণিজ্যিকভাবে এর চাষ শুরু হয়েছে। বহু বেকার যুবক-যুবতী মাশরুম চাষ করে এরই মধ্যে আর্থিকভাবে স্বনির্ভর হচ্ছেন।

/শিপন/মেহেদী/

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়