ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ১৮ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ৫ ১৪৩১

আগুনে পোড়া রোগীকে বাঁচাতে প্রথমে যা করবেন

দেহঘড়ি ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:৩৪, ১ মার্চ ২০২৪   আপডেট: ১৫:২১, ২ মার্চ ২০২৪
আগুনে পোড়া রোগীকে বাঁচাতে প্রথমে যা করবেন

বিশেষজ্ঞরা বলেন, আগুনে পোড়ার পর প্রথম ২৪ ঘণ্টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই সময়ের মধ্যে আগুনে পোড়া রোগীকে সঠিক চিকিৎসা দিতে হবে। তাহলেই মৃত্যু ঝুঁকি কমানো সম্ভব। 

আগুনে পোড়ার তিনটি পর্যায় রয়েছে। 

এক. তরল পদার্থ বা শক্ত পদার্থের সংস্পর্শে এসে পোড়াকে বলা হয় কন্টাক্ট বার্ন। 

দুই. সরাসরি আগুনের সংস্পর্শে পোড়াকে বলা হয় ফ্লেম বার্ন।

তিন. রাসায়নিকের সংস্পর্শে পোড়াকে বলা হয় কেমিকেল বার্ন।

মানবদেহকে ১০০ ভাগের ১৫ ভাগ বা তার বেশি পুড়ে গেলে অবস্থা খারাপ হওয়া শুরু হয়। এক্ষেত্রে ৩০ ভাগের বেশি হলে সেখানে এক্সটেনসিভ ট্রিটমেন্ট (বিশেষ চিকিৎসা) প্রয়োজন হয়। 

আগুনে শরীরের যেকোন অংশ পুড়ে গেলে প্রাথমিক অবস্থায় আক্রান্ত স্থানে স্বাভাবিক তাপমাত্রার পানি ঢালুন। এভাবে পানি ঢাললে যেখানে ২০ শতাংশ পুড়তো সেটা হয়তো ১৫ বা ১০% এ নামিয়ে আনা যেতে পারে। চিকিৎসকেরা বলেন, ঠান্ডা পানি, বরফ, কুসুম গরম পানি এগুলোর কোনোটাই পোড়া স্থানের জন্য উপযোগী নয়। পোড়া স্থানে  খুব ঠান্ডা পানি ঢাললে আক্রান্ত স্থানের কোষগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। 

অগ্নিকাণ্ডের শিকার হলে পরিহিত কাপড় ও গহনা যত দ্রুত সম্ভব খুলে ফেলতে হবে।

পোড়া রোগীকে বার বার তরল খাবার দিতে হবে। যেমন, স্যালাইন, ডাবের পানি ইত্যাদি। 

পোড়া স্থানে লবণ মেশানো পানি, ভাতের মাড়, তেল, টুথপেস্ট, ডিম- এগুলো কোনো কিছুই প্রয়োগ করবেন না। এতে সংক্রমণ হতে পারে।

তথ্যসূত্র: বিবিসি অবলম্বণে

/লিপি

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়