ঢাকা     সোমবার   ২৮ নভেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ১৪ ১৪২৯ ||  ০২ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

নির্ভিক ক্রিকেটে আফগান জুজু কাটানোর প্রত্যয়

সাইফুল ইসলাম রিয়াদ || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৭:৪৭, ৩ মার্চ ২০২২  
নির্ভিক ক্রিকেটে আফগান জুজু কাটানোর প্রত্যয়

দশ মিনিটের সংবাদ সম্মেলন শেষের পথে। শের-ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের সবুজ গলিচায় অস্থায়ী ডায়াসের সামনে দাঁড়িয়ে প্রশ্নবাণে জর্জরিত হচ্ছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দলীয় ম্যানেজার শেষের ইঙ্গিত দিলেও মাহমুদউল্লাহ উত্তর না দিয়ে থামতে পারছেন না। শুরু হচ্ছে যে আফগানিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি মিশন। ক্রিকেটের এই সংক্ষিপ্ত সংস্করণে বাংলাদেশ এমনিতেই টালমাটাল; আর আফগানরা সামনে এলে আরও যেন ঘাবড়ে যায় লাল সবুজের প্রতিনিধিরা।

ম্যাচের আগের দিন তাই মাহমুদউল্লাহকে দিতে হচ্ছে একের পর এক প্রশ্নের উত্তর। দলীয় লক্ষ্যের সঙ্গে নিজের জায়গা নিয়ে অবস্থান পরিস্কার করেছেন টি-টোয়েন্টি কাপ্তান। আজ বৃহস্পতিবার (৩ মার্চ) মিরপুর শের-ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ২ ম্যাচ টি-টোয়েন্টির প্রথমটিতে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। আফগানিস্তানের বিপক্ষে এই ম্যাচটি শুরু হবে বিকেল ৩টায়।

দেশটির বিপক্ষে এখন পর্যন্ত ৬ ম্যাচ খেলে ৪টিতেই হেরেছে বাংলাদেশ। আরেকটি ম্যাচ ভেসে যায় বৃষ্টিতে। তবে সবশেষ ম্যাচে জয় বাংলাদেশরই। সাম্প্রতিক পারফর্ম্যান্সের কারণে নিজের জায়গা নিয়ে কোনো সংশয়ে না থাকা মাহমুদউল্লাহর প্রত্যয় নির্ভিক ক্রিকেট খেলে আফগান জুজু কাটানো।

বাংলাদেশ কাপ্তান বলেন, ‘স্টাইলের (ব্যাটিং) বিষয়টা হয়তো আমি ঠিক সেভাবে বর্ণনা করতে পারবো না। আমি সবসময় পছন্দ করি ইনটেন্ট নিয়ে ব্যাটিং করা। ইতিবাচক অ্যাপ্রোচে ব্যাটিং করা। নির্ভয়ে ব্যাটিং করা। একই সঙ্গে বোলারদেরও একই ধরনের মানসিকতা থাকা প্রয়োজন। যদি আমরা শুরুতে উইকেট নিতে পারি তাহলে আমরা ম্যাচে থাকবো। সব সময় ইতিবাচক মানসিকতা নিয়ে খেলাই আমরা প্রেফার করবো। চেষ্টা করব কালকে একই অ্যাটিটিউড নিয়ে যেন আমরা খেলতে পারি।’

জেতার লক্ষ্য নিয়েই আফগান মহারণে নামবে বাংলাদেশ। ‘আশা তো অবশ্যই জেতার। আমি সবসময় বলি, টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট এমন একটা ফরম্যাট যেকোনো দিন যেকোনো দল জিততে পারে। আমাদের ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে। আমরা কালকের ম্যাচটা ফোকাস করছি। আমাদের শুরুটা নিয়ে আমরা ফোকাস করছি’-যোগ করেন মাহমুদউল্লাহ।

কেমন হতে পারে বাংলাদেশের একাদশ? ওপেনিংয়ে অভিষেক হতে পারে মুনিম শাহরিয়ারের। সঙ্গী হিসেবে থাকতে পারেন পাকিস্তান সিরিজে বাদ পড়া লিটন দাস। এ ছাড়া সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, ইয়াসির আলী ও আফিফ হোসেন ও মেহেদি হাসানরা আছেন। মুশফিকুর রহিম আঙুলে চোট পাওয়ায় তাকে নিয়ে আছে শঙ্কা। শেষ মুহূর্তে দলে নেওয়া হয়েছে নুরুল হাসান সোহানকে। তবে তার একাদশে আসার সম্ভাবনা কম। পেস আক্রমণে মোস্তাফিজুর রহমানের সঙ্গে শরিফুল ইসলাম/তাসকিন আহমেদকে দেখা যেতে পারে। আর বিশেষজ্ঞ স্পিনার নাসুম আহমেদতো আছেনই!

তবে একাদশ নিয়ে মাহমুদউল্লাহ সঠিক ধারণা দিতে পারেননি। আর উইকেট নিতে তার প্রত্যাশা স্পোর্টিং হবে। ‘আশা করি ভালো উইকেট, স্পোর্টিং উইকেট হবে। বোলারদের পাশাপাশি ব্যাটাররাও সুবিধা পাবে। একটু সময় কাটানো গেলে ব্যাটাররা ভালো সময় কাটাতে পারবে।’

এদিকে মোহাম্মদ নবীর আফগানিস্তান দলে আছে কিছুটা নতুনত্ব। দলে নেই মোহাম্মদ শাহজাদ, গুলবাদিন নায়েব, হামিদ হাসান ও হাসমতুল্লাহ শাহিদীর মতো সিনিয়র ক্রিকেটার। ডারউইশ রাসুলি, আজমতুল্লাহ ওমরজাই, নিঝাত মাসুদ ও কাঈস আহমেদের মতো তরুণ ক্রিকেটারদের নিয়ে দল সাজিয়েছে আফগানরা। তাদের মূল শক্তি অবশ্য ঘূর্ণি। তারকা স্পিনার রশিদ খানের সঙ্গে রহস্যময়ী স্পিনার মুজিব উর রহমান ছাড়াও হাত ঘোরাবেন মোহাম্মদ নবী নিজেই। পেস আক্রমণে আছেন ফজলহক ফারুকি ও ফরিদ আহমেদ। ওয়ানডেতে ফজল বেশ ভুগিয়েছেন স্বাগতিক ব্যাটসম্যানদের।

সিরিজ শুরুর আগে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলন না হওয়ায় আফগানদের লক্ষ্য জানা যায়নি। তবে এটি যে জয় ছাড়া কিছু হবে না; তা সন্দেহাতীত। টানা দুই ম্যাচ হেরে ওয়ানডে সিরিজ হারার পরও শেষটিতে দারুণ প্রত্যাবর্তন হয়েছে তাদের। সেই ধারাবাহিকতা টি-টোয়েন্টিতেও বজায় রাখতে চাইবে সফরকারীরা।

বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ:
মুনিম শাহরিয়ার, লিটন দাস, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, নুরুল হাসান সোহান, ইয়াসির আলী, আফিফ হোসেন, মেহেদি হাসান, মোস্তাফিজুর রহমান, শরিফুল ইসলাম/তাসকিন আহমেদ ও নাসুম আহমেদ।  

আফগানিস্তানের সম্ভাব্য একাদশ:
হজরতুল্লাহ জাজাই, রহমানুল্লাহ গুরবাজ, ডারউইশ রাসুলি, নাজিবুল্লাহ জাদরান, মোহাম্মদ নবী, আজমতুল্লাহ ওমরজাই, করিম জানাত, রশিদ খান, মুজিব উর রহমান, ফজলহক ফারুকি ও ফরিদ আহমেদ।

ঢাকা/আমিনুল

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়