ঢাকা     বুধবার   ২৯ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪৩১

সাবেক রাষ্ট্রপতি নাশিদের দাবি

ভারত থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে দুর্বল হয়ে পড়েছে মালদ্বীপ

মোহাম্মদ মাহামুদুল, মালদ্বীপ থেকে  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:১৮, ১৩ মে ২০২৪  
ভারত থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে দুর্বল হয়ে পড়েছে মালদ্বীপ

মোহাম্মদ নাশিদ

মালদ্বীপের সাবেক রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ নাশিদ দাবি করেছেন, চীন মালদ্বীপকে ‘ঋণ ফাঁদে ফেলেছে’ এবং দ্বীপ দেশটি ভারত থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে দুর্বল হয়ে পড়েছে।

ভারত ও মালদ্বীপের মধ্যে উত্তেজনা শুরু হয় তৎকালীন বিরোধী দল এবং বর্তমান সরকারের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের নেতৃত্বে ‘ভারতবিরোধী’ প্রচারণার মাধ্যমে।

এরপরে, মালদ্বীপের তিন জন উচ্চপদস্থ সরকারি কর্মকর্তা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে অবমাননাকর মন্তব্য করায় সম্পর্কের আরও অবনতি হয়। এতে ভারতীয় নেটিজেন এবং সেলিব্রেটিরাও ‘মালদ্বীপবিরোধী’ হয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মালদ্বীপ বয়কটের শুরু করেন।

শ্রীলঙ্কার নিউজ আউটলেট ‘দ্য মর্নিং’র সাথে কথা বলার সময় নাশিদ বলেন, দ্বীপ দেশটির প্রাচীনতম মিত্র ভারতকে দূরে সড়িয়ে দেওয়া মালদ্বীপের পক্ষে নিরর্থক ছিল। নাশিদ মন্তব্য করেছেন, আমি বিশ্বাস করি, ভারত থেকে নিজেদেরকে দূরে রাখার পর আমরা বর্তমানে আরও বেশি সংবেদনশীল স্থানে রয়েছি। আমাদের সম্পদ এবং সুস্থতার জন্য আমাদের সুরক্ষা প্রয়োজন, যা ভারতের সাথে যুক্ত।

এর পাশাপাশি নাশিদ তার সাক্ষাৎকারে চীনের সমালোচনা করে বলেন, চীন ঋণের ফাঁদের দিকে নিয়ে যাবে মালদ্বীপকে যা মালদ্বীপ শোধ করতে সক্ষম হবে না।

মালদ্বীপের সাবেক প্রেসিডেন্ট নাশিদ ভারতকে প্রাচীনতম মিত্র দাবি করে বলেন, আমাদের ভারতকে সাথে নিয়ে সব কাজে সহযোগিতা করতে শিখতে হবে এবং আমাদের সমৃদ্ধি ভারতের বৃদ্ধির পথের সাথে সংযুক্ত। আমরা একে অপরের সাথে যুক্ত আছি তা ভৌগলিক, সাংস্কৃতিক এবং ঐতিহাসিকভাবে স্বীকৃত।

স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে ভারত ও মালদ্বীপের মধ্যে উত্তেজনা সত্ত্বেও, মালদ্বীপের বর্তমান পররাষ্ট্রমন্ত্রী মুসা জমির সম্প্রতি দাবি করেছেন দু’দেশের সম্পর্ক এখন স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে এসেছে। তিনি ঘোষণা করেছেন, রাষ্ট্রপতি ড. মোহাম্মদ মুইজ্জু শিগগিরই ভারত সফরের পরিকল্পনা করছেন এবং ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এস. জয়শঙ্করের সাথে আলোচনা এরই মধ্যে শুরু হয়েছে।

মালদ্বীপের সাবেক প্রেসিডেন্ট নাশিদ ভারতের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার করার পক্ষে সবসময় সোচ্চার ছিলেন এবং তার শক্তিশালী ‘চীনবিরোধী’ নীতির জন্য তিনি বিশ্বে পরিচিত।

ঢাকা/হাসান/এনএইচ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়