ঢাকা     শুক্রবার   ১৪ জুন ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ৩১ ১৪৩১

স্বর্ণের খোঁজে ঠাকুরগাঁওয়ে মাটি খুঁড়লেন হাজারো মানুষ, ১৪৪ ধারা জারি

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৯:৫০, ২৬ মে ২০২৪   আপডেট: ০৯:৫৪, ২৬ মে ২০২৪
স্বর্ণের খোঁজে ঠাকুরগাঁওয়ে মাটি খুঁড়লেন হাজারো মানুষ, ১৪৪ ধারা জারি

ঠাকুরগাঁওয়ের একটি ইটভাটায় স্বর্ণের খোঁজে দিনরাত মাটি খুঁড়েছিলেন হাজারো মানুষ। ভাটার বিভিন্ন স্থানে মাটি খুঁড়ে চলেছিলেন তারা। নিরাপত্তার ঝুঁকি চিন্তা করে ওই ইটভাটা ও তার আশপাশের এলাকায় গতকাল শনিবার (২৫ মে) রাত সাড়ে ১০টার দিকে ১৪৪ ধারা জারি করেছে প্রশাসন।

ঠাকুরগাঁও জেলা শহর থেকে প্রায় ৩৫ কিলোমিটার দূরে রানীশংকৈল উপজেলার কাতিহার অবস্থিত আরবিবি ইটভাটা। মাস দেড়েক আগে সেখান থেকে গুঞ্জন ওঠে মাটি নিচ থেকে স্বর্ণ পাওয়ার। তখন থেকেই পাহাড়ের মতো স্তূপ করা ভাটার মাটি খুঁড়ে স্বর্ণ খোঁজার চেষ্টা করছিলেন স্থানীয়রা। বিশেষ করে গত কয়েকদিন ধরে স্থানীয়দের পাশাপাশি বিভিন্ন জেলা থেকে আগত হাজারো মানুষ দিনরাত স্বর্ণের খোঁজে মাটি খুঁড়েছেন। গতকাল রাত সাড়ে ১০টার দিকে ওই ভাটা ও তার আশপাশের এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করেন প্রশাসন। 

শনিবার সরেজমিনে আরবিবি ইটভাটায় গিয়ে দেখা যায়, বিভিন্ন বয়সের মানুষ কোদাল ও বাসিলা নিয়ে মাটি খুঁড়ছেন স্বর্ণের খোঁজে। রাতের অন্ধকারে মানুষের হাতে থাকা টর্চ লাইট ও মোবাইল ফোনের আলোতে ইটভাটার মাটির স্তূপ স্বর্ণালী রূপ ধারণ করে। 

স্থানীয়রা জানান, রাজা টংকনাথের বাড়ির বিলুপ্ত এক মন্দিরের পাশ থেকে ইট তৈরির জন্য মাটি নিয়ে আসা হয় এই ভাটায়। তখনকার জমিদার ও ধনিদের অনেক স্বর্ণালঙ্কার ও রুপা ছিল। তারা মন্দিরে স্বর্ণ ও রুপা দান করতেন। মন্দিরটি ধ্বংসের ফলে স্বর্ণ হয়তো সেখানকার আশপাশের মাটিতে চাপা পড়ে। আর সেই মাটির সঙ্গে স্বর্ণ উঠে এসেছে বলে ধারণা তাদের।

স্বর্ণের সন্ধানে মাটি খুঁড়তে আসা সালাম বলন, মাটি খুঁড়ে অনেকে সোনা পাচ্ছেন বলে শুনেছি। আমি ও আমার এলাকার অনেকে এসেছি এখানে। ভাগ্য বদলের আশায় দিনের পর দিন মাটি খুঁড়েই চলেছি। কিন্তু, সোনা পাচ্ছি না। 

মাটি খুড়ার দৃশ্য দেখতে আশা বাপ্পি বলন, মিডিয়া ও ফেসবুকে দেখে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে এখানে এসেছি মাটি খুঁড়ার দৃশ্য দেখতে। 

ইটভাটার পাশের বাসিন্দা রফিক বলেন, ইতোমধ্যে এখানে মাটি খুঁড়ে স্বর্ণলংকার পেয়ে ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটিয়েছেন পাঁচ শতাধিক মানুষ। অনেকেই স্বর্ণ পেয়েছেন। ঝামেলায় জড়িয়ে পড়তে পারেন এই ভয়ে মুখ খুলছেন না তারা। অনেকে আবার মাস দেড়েক ধরে রাত ভর মাটি খুঁড়েও পাননি কিছু। যারা স্বর্ণ পেয়েছেন তাদের অনেকে এলাকা ছেড়ে দূরে চলে গেছেন। 

রাণীশংকৈল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রকিবুল হাসান বলেন, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির আশঙ্কায় ওই ইটভাটা ও তার আশপাশ এলাকায় শনিবার রাত সাড়ে ১০টায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে।

মঈনুদ্দীন/মাসুদ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ