ঢাকা     রোববার   ১৪ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ১ ১৪৩১

শহিদ দিবস উপলক্ষে ঢাবি থিয়েটারের নাটক `সিদ্ধান্ত`

ঢাবি সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:২০, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪   আপডেট: ১৯:০৭, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
শহিদ দিবস উপলক্ষে ঢাবি থিয়েটারের নাটক `সিদ্ধান্ত`

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার অ্যান্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগ জ্ঞান ও সাংস্কৃতিক চর্চায় প্রতিনিয়ই দক্ষতার সাথে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক অবয়বে নাট্য প্রদর্শনীর আয়োজন করে আসছে। বছর জুড়ে বিভাগটি মঞ্চে আনে নতুন নতুন নাটক। বছর শেষে আয়োজন করা হয় নতুন নির্দেশকদের নাটক নিয়ে কেন্দ্রীয় নাট্যোৎসব। ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতায় শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বিভাগের উদ্যোগে মঞ্চে আসছে নতুন প্রযোজনা ‘সিদ্ধান্ত’।

প্রয়োজনাটি আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ৫ মার্চ পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটমণ্ডল মিলনায়তনে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭টায় মঞ্চস্থ হবে। নাটকটির নির্দেশনায় রয়েছেন বহুমাত্রিক নাট্য ব্যাক্তিত্ব ও বিভাগের জেষ্ঠ্য অধ্যাপক ড. ইসরাফিল শাহীন।

বিখ্যাত জার্মান নাট্যকার বার্টল্ট ব্রেখট রচিত ‘মেজারস টেকেন’ থেকে অনুবাদ ও পুনর্লিখন করেছেন বিভাগের শিক্ষক ড. শাহমান মৈশান। নাটকে অভিনয় করেছেন বিভাগের স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থী মো. তানভীর আহম্মেদ, নাসরিন সুলতানা অনু, ওবায়দুর রহমান সোহান, প্রণব রঞ্জন বালা এবং বিভাগের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মনোহর চন্দ্র দাস।

নাটকের মঞ্চ ও আলোক পরিকল্পনা করেছেন অধ্যাপক ড. ইসরাফিল শাহীন, সহযোগীতায় ধীমান চন্দ্র বর্মণ। দেহবিন্যাস, চলন ও তাল বাদনে আছেন অমিত চৌধুরী। সংগীত পরিকল্পনা করেছেন ড. সাইম রানা এবং পোশাক পরিকল্পনা করেছেন মহসিনা আক্তার।

এছাড়াও দ্রব্য পরিকল্পনা ও প্রয়োগে আহসান খান, এবং নির্মাণ সহযোগিতায় উম্মে হানি, মিমো, নিবিড়, তানজিমা, খাশ্রি, সিথি, মিমি, মিম, কথক, সাগরিকা, সোহান, উপমা, অথৈ। পোস্টার ডিজাইনে দেবাশিস কুমার। প্রচার ও প্রকাশনায় তানভীর নাহিদ খান, আহসান খান এবং কারিগরী সহযোগিতায় রয়েছেন শাহাবুদ্দিন মিয়া, কাজী রুবেল ও মজনু মিয়া।

নাটকটির নির্দেশক অধ্যাপক ড. ইসরাফিল শাহীন বলেন, সিদ্ধান্ত বা দ্য মেজারস টেকেন প্রকৃতপক্ষে কয়েকজন বিপ্লবীর এমন এক সঙ্কটাপন্ন পরিণতিকে নির্দেশ করে, যা এক তরুণ কমরেডের মৌহূর্তিক আবেগের সঙ্গে কমিউনিস্ট পার্টির স্ট্র্যাটেজিক বিপ্লবের দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা হয়ে ওঠে অতি সাংঘর্ষিক। আর পার্টি থেকে  বিচ্যুত কিন্তু জনতার প্রতি মহাজাগতিক মমত্ববোধ সত্ত্বেও এই তরুণ কমরেডকে অন্যান্য কমরেডের সহযোগিতায় স্বেচ্ছা মৃত্যুর পরিণতি গুণতে হয়। এই মৃত্যু হত্যা নয়, আবার আত্মহত্যাও নয়। তবে কি? বিপ্লব, সংঘাত ও ভাবাবেগের সংশ্লেষে নির্মিত সিদ্ধান্ত প্রযোজনা।

এর আগে, এ বছরের ১৫ জানুয়ারি ভারতের কেরালায় একটি আন্তর্জাতিক থিয়েটার ফেস্টিভ্যালে, ২৩ জানুয়ারি পশ্চিমবঙ্গের বিশ্ব ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্তি নিকেতনে এবং ২৪ জানুয়ারি রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘সীদ্ধান্ত’ নাটকের প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

/হারুন/মেহেদী/

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়