ঢাকা     রোববার   ১৪ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ১ ১৪৩১

বাস ড্রাইভারের বিরুদ্ধে ইবি শিক্ষার্থীকে মারধরের অভিযোগ

ইবি সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৪১, ৩ মার্চ ২০২৪  
বাস ড্রাইভারের বিরুদ্ধে ইবি শিক্ষার্থীকে মারধরের অভিযোগ

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) শিক্ষার্থীবাহী বাস ড্রাইভারের বিরুদ্ধে এক শিক্ষার্থীকে মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।  এ নিয়ে রোববার (৩ মার্চ) প্রক্টর, ছাত্র উপদেষ্টা এবং পরিবহন প্রশাসকের নিকট বিচার চেয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী।

ভুক্তভোগী ইবির হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী সানি আহমেদ মিথুন। অভিযুক্ত রোকনুজ্জামান ‘নিউ এসবি সুপার ডিলাক্স’ বাসের ড্রাইভার।

অভিযোগপত্রে ভুক্তভোগী মিথুন বলেন, গত শনিবার আনুমানিক বিকাল ৩টায় কুষ্টিয়া থেকে ক্যাম্পাসে আসার উদ্দেশ্যে আমি বাসে উঠি। বাসে বহিরাগত যাত্রীদের তুললে আমি নিষেধ করি। বহিরাগতদের দ্রুত গাড়ি ছেড়ে যাওয়ার কথা বললে বাসের হেলপার আমাকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন। এক পর্যায়ে তারা আমাকে জোর করে বাস থেকে নামিয়ে দেন। পরে আমি তাদের ওই কর্মকাণ্ডের প্রমাণ রাখতে ভিডিও করলে বাসের ড্রাইভার ও হেলপার আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দেনে এবং তারা আমার ফোন কেড়ে নিয়ে ভিডিও ডিলিট করার জন্য জোরাজুরি করে। আমি ফোন দিতে রাজি না হলে তারা আবারও অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন এবং আমাকে মারধর করেন। পরে স্থানীয়রা আমাকে উদ্ধার করলে তারা গাড়ি নিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

জানতে চাইলে ভুক্তভোগী রাইজিংবিডিকে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈধ শিক্ষার্থী হিসেবে বাস ড্রাইভার ও হেলপার আমার সঙ্গে যে বাজে আচরণ ও মারধর করেছে, এতে আমি চরম ব্যথিত ও অপমানিত হয়েছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন সাধারণ শিক্ষার্থী হিসেবে আমি মেনে নিতে পারছি না। নেক্কারজনক এ ঘটনা তদন্তের মাধ্যমে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ড্রাইভার রোকনুজ্জামান বলেন, আমি আমার পরিচিত একজনকে গাড়িতে তুলেছিলাম। এসময় ওই ছেলে ভিডিও করে। তার পরিচয় জানার পর কোনো ধরনের বাজে আচরণ করা হয়নি। আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করা হয়েছে, তা মিথ্যা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. শাহাদাৎ হোসেন আজাদ বলেন, এ বিষয়ে এখনো কোন অভিযোগ পাইনি। এমন অভিযোগ আসলে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পরিবহন প্রশাসক অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন বলেন, এ বিষয়ে অভিযোগ পাওয়ার পর আমরা আলোচনা করেছি। অভিযুক্ত বাস ড্রাইভার ও হেলপারকে ক্যাম্পাসে বাস চালানো নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এছাড়া এ ঘটনার পুনরাবৃত্তি রুখতে গাড়ির মালিক সমিতির সঙ্গে আলোচনা করবো।

/ইদুল/মেহেদী/

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়