ঢাকা     মঙ্গলবার   ২১ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ৭ ১৪৩১

সহস্রাধিক সাইটেশনের মাইলফলক স্পর্শ করলেন রবি উপাচার্য

রবি সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:১০, ৬ এপ্রিল ২০২৪  
সহস্রাধিক সাইটেশনের মাইলফলক স্পর্শ করলেন রবি উপাচার্য

বাংলাদেশের বর্তমান প্রেক্ষিতে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের সম্পর্কে বিভিন্ন নেতিবাচক ধারণা পোষণ করেন অনেকেই। বিশেষ করে শিক্ষা-গবেষণার ক্ষেত্রে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যগণের কোন মনোযোগ না থাকার বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ মুলধারার গণমাধ্যমেও প্রতিবেদন প্রকাশিত হতে দেখা যায়।

এরকম নেতবাচক ভ্রান্তি দূর করতে সক্ষম হয়েছেন রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো: শাহ্ আজম। গুগল স্কলারের তথ্য অনুযায়ী রবি উপাচার্য অধ্যাপক শাহ্ আজমের গবেষণাপত্রের সাইটেশন এক হাজারের উপরে পৌঁছেছে।

অধ্যাপক ড. মো: শাহ্ আজমের গুগল স্কলার অ্যাকাউন্টে প্রবেশ করে দেখা যায়, ২০০৭ সাল থেকে ২০২৪ সালের মার্চ পর্যন্ত কিউ ওয়ান ক্যাটাগরির জার্নালে অর্ধ শতাধিক গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে। একই সঙ্গে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক কনফারেন্সে নিবন্ধ উপস্থাপনের পাশাপাশি তিনি আন্তর্জাতিক অনেক কনফারেন্সের মডারেটর ও চেয়ারের দায়িত্ব পালন করেছেন।

গুগল স্কলারে সহস্রাধিক সাইটেশনের বিষয়ে অধ্যাপক শাহ্ আজম জানান, ২০২১ সালের ৮ ডিসেম্বর তিনি রবি উপাচার্যের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা-গবেষণার পাশাপাশি সহশিক্ষামূলক কার্যক্রমের উপর গুরুত্বারোপ করেন। প্রশাসনিক কাজে মনোনিবেশ করতে গিয়ে তার ব্যক্তিগত গবেষণা অনেকটাই বাধাগ্রস্ত হয়েছে। এরপরও গুগল স্কলারে সহস্র সাইটেশন নিঃসন্দেহে আনন্দের বিষয়।

উপাচার্য শাহ্ আজমের গবেষণার ক্ষেত্রে আগ্রহ রয়েছে ইনোভেশন, স্ট্র‍্যাটেজি, লিডারশিপ এবং সার্ভিস রিসার্চের উপর। তিনি বলেন,  বাঙালি জাতির পিতা হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল বিশ্বকবির নামে একটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা। বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্নের বাস্তবায়ন করেছেন তারই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ কারণে আমরা রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়কে বিশ্বমানের প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলতে বদ্ধপরিকর। আমাদের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা যেন নির্বিঘ্নে শিক্ষার পাশাপাশি গবেষণামূলক কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে পারে, সে বিষয়ে আমরা সচেষ্ট রয়েছি।

নিজস্ব জমি না থাকা স্বত্বেও উপাচার্যের প্রচেষ্টায় এখন পর্যন্ত দুটি আন্তর্জাতিক কনফারেন্স আয়োজন করেছে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়। এছাড়া, বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠালগ্নের তিনটি বিভাগের প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের স্নাতক সম্পন্ন হয়েছে এবং দ্বিতীয় ব্যাচের শিক্ষার্থীদেরও স্নাতক খুব দ্রুতই সম্পন্ন হবে।

রবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. মো. ফখরুল ইসলাম বলেন, উপাচার্য হিসেবে অধ্যাপক শাহ্ আজম স্যার একজন অসাধারণ মানুষ। প্রশাসনিক নেতৃত্বের পাশাপাশি তিনি অনেক উঁচুমানের একজন গবেষক। আর এর প্রমাণ গুগল স্কলারেই ফুটে উঠেছে। আমি তার সাফল্যের জন্য শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করছি।

উল্লেখ্য, ২০২৩ সালের এডি সাইন্টিফিক ইনডেক্সের মার্কেটিং বিষয়ের র‍্যাংকিং অনুযায়ী দেশসেরা গবেষকের স্বীকৃতি পেয়েছিলেন রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো: শাহ্ আজম।

/হাবিবুর/মেহেদী/

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়