ঢাকা     বুধবার   ১৯ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৫ ১৪৩১

তিতুমীর কলেজে সনদ উত্তোলনে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ 

তিতুমীর কলেজ সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:৩৮, ৩০ মে ২০২৪  
তিতুমীর কলেজে সনদ উত্তোলনে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ 

সরকারি তিতুমীর কলেজের ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের মাস্টার্স শেষ পর্বে ভর্তির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে শিক্ষার্থীদের আবেদনপত্রের সঙ্গে অনার্সের নম্বরপত্র/সনদ, প্রশংসাপত্র ও চারিত্রিক সনদের ফটোকপি সংযুক্ত করতে বলা হয়েছে।

তবে এসব সনদ উত্তোলন বাবদ কলেজ প্রশাসন শিক্ষার্থীদের থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ফলে ভর্তির জন্য শিক্ষার্থীদের গুণতে হচ্ছে বাড়তি টাকা।

কলেজের সিটিজেন চার্টারে উল্লেখ আছে, প্রশংসাপত্র ও চারিত্রিক সনদ নেওয়ার জন্য শিক্ষার্থীদের কোনো প্রকার ফি দিতে হবে না। কিন্তু কলেজ প্রশাসন নম্বর পত্র ও প্রশংসাপত্রের জন্য নিয়ম বহির্ভূতভাবে অতিরিক্ত ২০০ টাকা আদায় করেছে।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে এবং প্রশাসনিক ভবন ঘুরে জানা গেছে, প্রশংসাপত্র ও চারিত্রিক সনদ উত্তোলনে কোন প্রকার অর্থ আদায়ের নিয়ম না থাকলেও শেখ কামাল প্রশাসনিক ভবন থেকে ফরম পূরণ করে ১০০ টাকা দিতে হচ্ছে। তাছাড়া নম্বপত্র সংগ্রহ করতেও শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ বিভাগকে ১০০ টাকা দিতে হচ্ছে। নিয়ম বহির্ভূত কলেজ প্রশাসন ও বিভাগকে শিক্ষার্থীরা অতিরিক্ত ২০০ টাকা না দিলে মিলছে না নম্বরপত্র/সনদ, চারিত্রিক সনদ ও প্রশংসাপত্র।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থী জানান, টাকা না দিলে চারিত্রিক সনদ পাওয়া যায় না এবং অফিসের কর্মকর্তাদের কথামতো না চললে তারা ঠিকমতো কাজ করেন না। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করলেও কোনো কাজ হবে না।

অপর এক শিক্ষার্থী বলেন, অফিসের লোকেরা নিজেদের এখতিয়ার থেকে টাকা নিচ্ছে এবং কলেজের উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তারা এ বিষয়টি দেখছেন না। আমরা এখানে নিরুপায়, আমাদের তো ভর্তি হতে হবে।

কলেজের উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. মহিউদ্দিন জানান, এগুলোর জন্য টাকা নেওয়ার নিয়ম আছে। কারণ প্রিন্ট ও কালি ব্যবহারের খরচ থাকে। সিটিজেন চার্টারের ব্যাপারে তিনি বলেন, ওখানে হয়তো ভুল হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে অধ্যক্ষ অধ্যাপক ফেরদৌস আরা বেগমের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করে কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি।

/সিয়াম/মেহেদী/

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়